তারিখ : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সরকারের উন্নয়ন কাজে অংশগ্রহণ করতে নারাজ ভালুকার পল্লী বিদ্যুতের জিএম

কিশোরগঞ্জের লোক বলে কথা,ভালুকার পল্লী বিদ্যুতের লাইন উদ্বোধনে আসলেন না জিএম
সরকারের উন্নয়ন কাজে অংশগ্রহণ করতে নারাজ ভালুকার পল্লী বিদ্যুতের জিএম
[ভালুকা ডট কম : ০৭ এপ্রিল]
ভালুকা উপজেলার তিনটি এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের ১১.৬৭কিঃ মিঃ লাইনের উদ্বোধন করেন স্থানীয় এম,পি অধ্যাপক ডা.এম আমান উল্লাহ। এ সময় ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার কিশোরগঞ্জ জেলার বাসিন্দা জহিরুল ইসলাম সহ ভালুকা পল্লী বিদ্যুতের কোন কর্মকর্তাই ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হননি। কারিগরি সহযোগিতার জন্য পল্লী বিদ্যুৎ থেকে পাঠানো হয় দ্বীন নাথ নামে এক ফিল্ড সুপার ভাইজারকে।

স্থানীয় উপস্থিত নেতা কর্মীরা বলাবলি করছিল “জিএম কিশোরগঞ্জের বাসিন্দা বলে স্থানীয় এম.পি এর অনুষ্ঠানে নিজতো উপস্থিত হননি তার অফিসের কোন কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। তাহলে সরকারের উন্নয়ন কাজে অংশগ্রহণ করতে নারাজ ভালুকার পল্লী বিদ্যুতের জিএম”? অনুষ্ঠানে পল্লী বিদ্যুতের কোন কর্মকর্তা উপস্থিত না হওয়ায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথি ও সাধারণ জনগণের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ক্ষোব্ধ হয়ে সেখান থেকে উপজেলার কৃষকলীগে সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান জিএমকে ফোন করে তাদের ক্ষোভের কথা প্রকাশ করেন।

শুক্রবার সকালে স্থানীয় এমপি অধ্যাপক ডা.এম আমান উল্লাহ উপজেলার রাজৈ ইউনিয়নের পারুলদিয়া এলাকায় ১.৮০কিঃমিঃ ও উরাহাটি এলাকায় ২.৮৭কিঃমিঃ লাইনের উদ্বোধন করেন। বিকালে দেয়ালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ধীতপুর ইউনিয়নের দেয়ালিয়াপাড়া এলাকার ৭কিঃ মিঃ লম্বা পল্লী বিদ্যুতের লাইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংবাদ কর্মীরা বিদ্যুৎ সম্পর্কিয় কিছু তথ্যের জন্য পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তাদের খোঁজ নিতে গেলে তখনই বেরিয়ে আসে থলের বিড়াল তিনটি অনুষ্ঠানের কোনটাতেই পল্লী বিদ্যুতের কোন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন না কারগরি সহযোগীতার জন্য পাঠানো হয়েছে একজন সুপারভাইজারকে। বিষয়টি ছিল পল্লী বিদ্যুৎ অফিস কর্তৃক স্থানীয় এম,পিকে পরোক্ষভাবে অবমূল্যায়ন করা।

এ ব্যাপারে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার জহিরুল ইসলামের  সাথে বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধনের ব্যাপারে কথা হলে জিএম এর কথায় বুঝা যায়  তিনি বিষয়টি অবগতনন। তিনস্থানে বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধনের ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে প্রথম দিকে তিনি  প্রতিবেদককে উল্টো প্রশ্ন করেন কোথায় বিদ্যুৎ লাইনের উদ্বোধন হচ্ছে। প্রতিবেদক যখন তাঁকে বললেন রাজৈ ও ধীতপুর ইউনিয়নের তখন তিনি বলেন বিষয়টি এজিএম আরিফ আহম্মেদ দেখা শোনা করেন তিনি বলতে পারবেন। প্রতিবেদক জি,এমকে প্রশ্ন করেন আপনার লাইন উদ্বোধন হচ্ছে আপনার অফিসের কোন কর্মকর্তা সেখানে গিয়েছেন, তার উত্তর ও তিনি দিতে পারেননি।

অপর এক সুত্র জানায়, জিএম জহিরুল ইসলাম এই অফিসে যোগদান করার পর থেকে কিশোরগঞ্জ জেলার লোক হওয়ায় তিনি স্থানীয় লোকজনকে কোন মূল্যায়নই করেন না। স্থানীয় সংবাদকর্মী সহ গ্রাহকদের সাথে ভাল আচরণ করেন না। তার এমন আচরণে বিদ্যুৎ গ্রহকরা চরম ভাবে ক্ষোব্ধ।  

ধীতপূর ইউনিয়নের দেয়ালিয়াপাড়া বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন উপলক্ষ্যে দেয়ালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, অধ্যাপক ডা.এম আমান উল্যাহ। বক্তব্য রাখেন,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম পিন্টু,১১নং রাজৈ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম বাদশাহ,ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি বাবু নির্মল চন্দ্রদে বাবুল বিএসসি, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধুন,উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনিছুর রহমান খান রিপন,সাধারণ সম্পাদক এজাদুল হক পারুল,উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান, শ্রমিকলীগ ভালুকা আঞ্চলিক শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম সরকার,উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি  মনিরুজ্জামান মামুন,সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার হক সজীব ও  কামরুল ইসলাম।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

সম্পাদকীয় বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৪৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই