তারিখ : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

দয়া করে খাবার অপচয় বন্ধ করুন

দয়া করে খাবার অপচয় বন্ধ করুন
[ভালুকা ডট কম : ১০ জুলাই] 
বিয়ের খাবার টেবিল। পাশে দুইটা শিশু বসা, সাথে মা। একজনের বয়স সাত-আট আরেক জনের চার-পাঁচ। দূ:খজনক হচ্ছে শিশু দুইটির প্রত্যেকের প্লেটে খাবারের পরিমান একজন পুর্নবয়স্ক মানুষের খাবারের সমান। প্লেটে যে খাবার আছে তার চার ভাগের এক ভাগও শিশুরা খায়নি।
চোখের সামনেই পরিচ্ছন্ন কর্মী বর্জ্যের ঝুড়িতে প্লেটের অবশিষ্ট খাবারগুলি ফেলে দিল! পুরাটাই অপচয়ের খাতায়!

এইত না হয় শিশুর কথা বললাম। বয়স্কদের অবস্থা এর থেকে বেশি ভালো ছিল না। একটা ভয়ঙ্কর সাইকোলজি কাজ করে আমাদের মনে। যে টাকার গিফট্ দিয়েছি তা উদ্ধার করে ছাড়ব। উদ্ধার করতে গিয়ে এই ভয়াবহ অপচয়।গত বছর একটি প্রোগ্রামে হোটেল রেডিসনের খাবার টেবিলে যা দেখলাম তা আমাকে আবার ভাবিয়ে তুলে। আমার টেবিলের বাকি সাত জন কেউই খাবারের অর্ধেকও খায়নি। শিক্ষিতরা যদি এই ভাবে অপচয় করি তাহলে অন্যদের কথা কি বলব?

আসলে খারাপ লাগে তাই এ কথা বলছি। আমাদের বড় ধরনের সচেতনতার প্রয়োজন আছে। এই সমাজের কিছুটা বাস্তব চিত্র আর খুব দরিদ্র শ্রেণীর মানুষের অবস্থা দেখে বড় হয়েছি। বাড়িতে মা-চাচিরা ভাত রান্না করার পরে দুপুরে পাড়ার দরিদ্র মেয়েরা প্রতিদিন বাড়ির সামননে পাতিল নিয়ে বসে থাকত। না, ভাতের জন্য নয়; ভাতের মাড়ের জন্য!

সারা বছর বিয়ে, বৌভাত, গায়েহলুদ, বার্থডে, ম্যারেজডে, দাওয়াত, মেজবান, খৎনা, আকিকা, মিলাদ, শ্রাদ্ধ, কুলখানি, কোরানখানি, চল্লিশা, সেমিনার, ওয়ার্কশপ, মাহফিল, পুনর্মিলন, রাজনৈতিক সভা ও রমজানে আরেকটা যোগ হয় ‘ইফতার পার্টি”। হয়ত বলবেন ‘আমার অনেক টাকাপয়সা আছে আমি অপচয় করি, তাতে আপনার সমস্যা কি?’

একটা গল্প বলি-
একবার ভারতের টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান রতন টাটা বন্ধু সহ জার্মানিতে বেড়াতে গেলেন। একটা রেস্টুরেন্টে ঢুকে তারা খাবার খেয়ে এক-তৃতীয়াংশ না খেয়ে বের হয়ে যাচ্ছিলেন। রেস্টুরেন্টে বসা কয়েকজন বৃদ্ধ মহিলা তাদেরকে বললেন খাবারগুলো অপচয় না করতে। টাটার এক বন্ধু জবাব দিলেন, “ আমার টাকা দিয়ে কিনেছি, আমি খাব না। তাতে আপনাদের কি?” একজন বৃদ্ধা রাগান্বিত হয়ে সেল ফোন উঠিয়ে কল দিলেন আর কিছু সময়ের মধ্যে উনির্ফম পরা সোশাল সার্ভিসের কিছু লোক এসে হাজির। সব শুনে টাটার দলকে পঞ্চাশ ইউরো জরিমানা করে বললেন, "Order what you can consume, money is yours but resources belongs to the society. There are many others in the world who are facing shortage of resources. You have no reason to waste resources."

আমরা যে ভাবে খাবার অপচয় করি তা রীতিমত এক ভয়াবহ  দৃশ্য! যেখানে আমাদের প্রায় ছাব্বিশ শতাংশ (২৬%) মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে সেখানে এইরকম অপচয় আমাদের জন্য অতিমাত্রায় বিলাসিতা ছাড়া আর কিছুই না!যারা সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্ম গ্রহন করেছেন; শহরের লাল, নীল আরও কত জমকালো বাতির করণে ওই প্রত্যন্ত অঞ্চলের অভাব অনটনের জগতটাকে দেখতে পান না; যারা এই শহরের উশৄঙ্খল ডিজে পার্টি আর ব্যান্ড - এর আওয়াজের কারণে ক্ষুদার্থ মানুষগুলোর কান্নার আওয়াজ শুনতে পান না;  এই শহরের চিইনিজ, BFC আর KFC এর স্বাদের কারণে ঐ গ্রামাঞ্চলের তিক্ত অভিজ্ঞতার স্বাদ পান না তাদেরকে বলছি; মানুষের মৌলিক অধিকার নষ্ট করছেন যেভাবে সেটা কি দেশ ও জাতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা নয়?

আজও পৃথিবীতে কোটি কোটি মানুষ না খেয়ে আছে। খবারের অভাবে বহু নারী, শিশু ও বৃদ্ধ অপুষ্টিতে ভুগছে! আমরা খাবারের অপচয় করছি! আর অভুক্ত থেকে বহু মানুষ অকালে মৃত্যুবরন করছে! তাই আবারও বলছি “Money is yours but resources belong to the society. You have no right to waste resources.”



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কলাম বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৪৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই