তারিখ : ১৮ জুন ২০১৮, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৩৮তম জাতীয় সমাবেশে-প্রধানমন্ত্রী

দেশের সর্ব বৃহৎ শৃংখলা বাহিনী হিসেবে এ বাহিনীর এক গৌরবময় ঐতিহ্য রয়েছে
আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৩৮তম জাতীয় সমাবেশে-প্রধানমন্ত্রী
[ভালুকা ডট কম : ১৯ ফেব্রুয়ারী]
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশকে জঙ্গিবাদমুক্ত করে উন্নয়নের যে ধারা আমরা শুরু করেছি সেটা আমরা অব্যাহত রাখব। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশ ক্ষুধা মুক্ত দারীদ্র মুক্ত দেশ হিসেবে বিশ্বসভায় মাথা উচু করে চলবে সেটাই আমরা চাই।

আমরা বাঙ্গালী রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা এনেছি কারো কাছে মাথা নত করে নয়।মাথা উচু করেই আমরা চলব।এছাড়া তিনি বলেন কোন ছেলে মেয়ে যাতে কোন ভাবেই মাদক জঙ্গিবাদের সাথে সম্পৃক্ত না হতে পারে  সেদিকে লক্ষ রাখার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।আনসার সদস্যদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন জনগনের নিরাপত্তার জন্য আপনাদের উপর যে দায়ীত্ব অর্পন করা হয়েছে তা পালন করার জন্য সর্বদা সচেষ্ট থাকবেন।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুর আনসার ভিডিপি একাডেমীতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৩৮তম জাতীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

আনসার সদস্যদের সতর্ক থাকার আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের অভ্যন্তরে আগামী নির্বাচন জাতির জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। আমরা যে কোন মূল্যে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করতে বদ্ধপরিকর। অতীতের মতই যে কোন জরুরী পরিস্থিতি মোকাবেলায় একনিষ্ঠভাবে দায়িত্বপালনের জন্য আমি আপনাদের নির্দেশ দিচ্ছি।  আসন্ন নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে আনসার বাহিনীর প্রতিটি সদস্যকে প্রস্তুত থাকতে হবে। ভোটের অধিকার, জনগনের মৌলিক অধিকার- সেটা যেন তারা যথাযথ ভাবে প্রয়োগ করতে পারে। আমরা চাই জনগন যেন তাদের সাংবিধানিক অধিকার প্রয়োগ করতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব যখন স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন এবং সেই ঘোষণা অনুসারে যখন প্রথম স্বাধীন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকাকে যে সালাম দেয়া হয়েছিল সেখানে আনসার বাহিনীর বিরাট ভূমিকা রয়েছে। তাদের সেই গৌরবময় অধ্যায় আমি শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করি। আজকে আমাদের আনসার বাহিনী সমগ্র বাংলাদেশে বিস্তৃত তৃণমূল পর্যন্ত এ বাহিনী আমাদের আর্ত সামাজিক উন্নয়নে বিরাট অবদান  রেখে যাচ্ছে এবং দেশের সর্ব বৃহৎ শৃংখলা বাহিনী হিসেবে এ বাহিনীর এক গৌরবময় ঐতিহ্য রয়েছে। কাজেই আমাদের বাংলাদেশের ইতিহাসের সাথেও এ বাহিনী সম্পৃক্ত রয়েছে।

তিনি বলেন, আনসার বাহিনীর পতাকা ছিলনা। ১৯৯৬ সালে আমি সরকারে এসে এ বাহিনীকে প্রথম পতাকা দিয়েছিলাম। এরপর আপনারা জাতীয় পতাকা আপনারা পেয়েছেন আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে। তিনি বলেন আপনাদের যত সুযোগ সুবিধার জন্য কখনো দাবি করতে হয়নি। আপনাদের কাজের প্রতি আন্তরিকতা ও দৃষ্টান্তমূলক দায়িত্বশীলতার স্বীকৃতি সরূপ প্রতিবছর সেবা ও সাহসিকতা পদক প্রবর্তন এটা আওয়ামীলীগ সরকারই করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাড়ে ১০ টায় হেলিকপ্টার যোগে সফিপুর আনসার একাডেমিতে আসেন। তিনি একাডেমীর প্যারেড গ্রাউন্ডে পৌছালে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও আনসার ও ভিডিপি’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল পাশা হাবিব উদ্দিন তাকে স্বাগত জানান। পরে তিনি ইয়াদ আলী প্যারেড গ্রাউন্ডে খোলা জিপে পরিদর্শন করেন এবং আনসার সদস্যদের কুচকাওয়াজ, ছালাম গ্রহণ করেন।  বিভিন্ন কাজে আনসার সদস্যদের সেবা ও সাহসীকতার জন্য ১২৭ জন সদস্যদের মধ্যে ৫০জন সদস্যকে নিজ হাতে ব্যাচ পরিয়ে দেন,পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনসার একাডেমির লেকের ধারে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, স্বরাষ্ট্র সচিব, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক মো: দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, কালিয়াকৈর উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করীম রাসেল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ কামাল উদ্দিন সিকদার,সাধারন সম্পাদক মুরাদ কবিরসহ আনসার ও ভিডিপির পদস্থ কর্মকর্তাসহ প্রমুখ।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জাতীয় বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ২০৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই