তারিখ : ২১ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় মেধাবি শিক্ষার্থী শরীফ বাঁচতে চায়

সাহায্যের আবেদন
কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় মেধাবি শিক্ষার্থী শরীফ বাঁচতে চায়
[ভালুকা ডট কম : ০৫ মে]
মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনেরি জন্য” জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রথম বর্ষের মেধাবি  শিক্ষার্থী শরীফ আহমেদ বাঁচতে চান মরণব্যাধি থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, চার ছেলের মাঝে বড় ছেলে কিছু পড়াশুনা করে পরিবারের আর্ধিক যোগান দিতে কাজে লেগে পরে। ছোট দুই ছেলে রাকিম ৮ম ও মৃদুল ২য় শ্রেণীতে পড়ে। ২য় ছেলে শরিফ কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র। প্রাইমারি জীবনথেকে ও সব ক্লাসেই ফাস্টবয় ছিলো। শরীফকে নিয়ে অনেক আশা  তার বাবা-মায়ের। ছয় বছর আগে যখন শরিফ নবম শ্রেণীতে পড়ে তখন শরীফের শরীরে রক্তশূন্যতা ধরা পড়ে। তারপর থেকে পড়াশুনার পাশাপাশি চলতে থাকে চিকিৎসা। শরীফ ২০১৪ সালে কান্দানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ ও ২০১৬ সালে এডভান্স রেসিডেন্সিয়াল কলেজ ময়মনসিংহ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৪.০৮ নিয়ে পাশ করে। গতবছর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে ভর্তিহয়। দারিদ্র বাবার পক্ষে উন্নত মানের চিকিৎসা করানো সম্ভব না হওয়ায় এই ছয় বছরের রক্তশূন্যতা রূপ নেয় থ্যালাসেমিয়ায়। থ্যালাসেমিয়া এমন একটি রোগ যার ফলে দেহের লোহিত রক্তকণিকা উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। চিকিৎসক বলছেন শিগগিরই শরীফের বোনম্যারো ট্রান্সপান্ট করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা। শরিফ বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শরীফের বাবা সোবহান আলী বলেন, চা বিক্রি করে সংসার আর ছেলেদের পড়াশুনার খরচ  কোনরকম চালাচ্ছি। পড়াশুনা শেষ করে ভালো চাকরি করবে, আমাদের কষ্টের দিনগুলোর অবসান ঘটাবে। অভাবের সংসারে ভালো চিকিৎসা করতে পারিনি তার।  কিন্তু দরিদ্র চা বিক্রেতা বাবার পক্ষে এতো টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। তাই প্রিয় মেধাবি সন্তানকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন সোবহান আলী।

ডাক্তার বলছে খুব দ্রুত শরীফের উন্নত চিকিৎসা করা দরকার প্রায় ৩০লক্ষ টাকা লাগবে। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. খোরশেদ আলম জানান, শিগগিরই শরীফের বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে হবে। এজন্য ব্যায় হতে পারে প্রায় ৩০ লাখ টাকা।সে ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ভবানিপুর ইউনিয়নের কান্দানিয়া গ্রামের বাসিন্দা সোবহান আলীর ছেলে।

আর্থিক সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা ও যোগাযোগ, ডাচ্-বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং আইডি- ০১৯২৬২৭৪৯১৪৫ শাহিনুর রহমান শিমুল। বিকাশ আইডি- ০১৬৮৫০৪৮৬৩৪ শরীফ আহমেদ, ০১৯১৩৬৬৫৩২২ , ০১৭২৭৯০০৮১৭  আকরাম হোসাইন।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

পাঠক মতামত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫২৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই