তারিখ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে ভিজিএফ চাউল ইউএনও’র নির্দেশে বিতরণ বন্ধ

নান্দাইলে ভিজিএফ চাউল ইউএনও’র নির্দেশে বিতরণ বন্ধ   
[ভালুকা ডট কম : ১৪ জুন]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ৪নং চন্ডীপাশা ইউনিয়ন পরিষদের প্রায় দুই কোটি টাকা ব্যয়ে নিজস্ব ভবন থাকার পরেও ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে বরাদ্দকৃত ভিজিএফ চাউল ৭০৩৮জন উপকারভোগী ১০ কেজি করে ৭০.৩৮ মেট্টিক টন চাউল নিজস্ব ব্যবস্থাপনা নিজ বাড়ি সংলগ্ন বিদ্যালয়ে গোদামজাত করে।

চন্ডীপাশা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো. আব্দুল কাদির সহ, ইউপি সদস্য আব্দুল গণি ভূইয়া, জাহাঙ্গীর আলম, কামাল উদ্দিন, আব্দুর রশিদ, হাসিম উদ্দিন, সাবিনা ইয়াসমিন, হেলেনা আক্তার ইউপি সদস্য স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান,গত ১২ই জুন সর্বসম্মমিক্রমে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে অতীতের ন্যায় ভিজিএফ চাল উত্তোলন করা হবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তুু ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল হক ভূইয়া একক সিদ্ধান্তে পরিষদে চাউল উত্তোলন না করে কোথায় চাউল উঠিয়েছেন তা ইউপি সদস্যরা অবগত নন। এতে করে বিপুল পরিমাণ ভিজিএফ চাল আত্মসাত করার একক সুযোগ রয়েছে। একদল মিডিয়াকর্মী বিষয়টি অবহিত হয়ে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গিয়ে ৭জন ইউপি সদস্যকে বসে থাকতে দেখেন। পরবর্তী সময়ে খোঁজ নিয়ে বাশঁহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে সামান্য কিছু লোককে চাল নিতে দেখা গেছে। এসময় ট্যাগ অফিসার মোঃ সালাউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন না। বিষয়টি সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে সিনিয়র সাংবাদিক ও নান্দাইল প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ এনামুল হক বাবুল বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহমুদা আক্তারকে জানালে তিনি ইউপি সচিবকে সেলফোনে চাল বিতরণ বন্ধ রেখে সরকারী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থেকে চাল বিতরণের নির্দেশ প্রদান করেন। সঙ্গে সঙ্গে ইউপি সচিব চাল বিতরণ বন্ধ রেখে বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন।

চেয়ারম্যান দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে সাংবাদিকদের বলেন, জনগণের সুবিধার জন্য তিনি বাশঁহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ে চাল স্টক করেছেন। কতিপয় মেম্বার বিষয়টি নিয়ে বিরোধীতা করে যাচ্ছেন। এসময় নান্দাইল প্রেসক্লাবের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ইলিয়াস উদ্দিন ফকির রঞ্জু, মোহনা টেলিভিশনের আবুল হাসেম, যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক উপস্থিত ছিলেন। চন্ডীপাশা ইউনিয়নের জনগণ অতীতের ন্যায় সরকারি দুই কোটি টাকা মূল্যের পরিষদ ভবন থেকে অবশ্যই চাল বিতরণের দাবী জানান। তারা বলেন চেয়ারম্যানের বাড়ি সংলগ্ন বিদ্যালয় থেকে চাল দেওয়া হলে ৩০ থেকে ৩৫ টন চাউল গায়েব হয়ে যাবে।

নান্দাইল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মালেক চৌধুরী স্বপন জানান, সরকারি ভবন থাকলে সকল কার্যক্রম পরিষদ ভবন থেকে করতে হবে। অন্য কোন জায়গা থেকে চাল বিতরণ করা হলে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হবে এতে করে বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে। ১৫৪ ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মোঃ আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন এই প্রতিনিধিকে জানান, অবশ্যই ভিজিএফ চাউল ইউনিয়ন পরিষদ ভবন থেকে দিতে হবে সরকারী নির্দেশনার বাহিরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫২৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই