তারিখ : ২৩ জুলাই ২০১৮, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

প্রধান মন্ত্রীর নিকট কালিয়াকৈরে স্কুল ছাত্রী তিন্নির চিঠি

প্রধান মন্ত্রীর নিকট কালিয়াকৈরে স্কুল ছাত্রী তিন্নির চিঠি
[ভালুকা ডট কম : ১০ জুলাই]
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার আনসার ভিডিপি স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেনীর মানবিক বিভাগের ছাত্রী আতিকা নাজনিন তিন্নি তার অসহায় পরিবারের করুন কাহিনী তুলে ধরে প্রধান মন্ত্রীর বরাবরে একটি চিঠি লিখেছেন। এছাড়া বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ, শেখ হাসিনা ও আওয়ামীলীগের সাফল্য নিয়ে ৪টি গান লিখেছেন তার বাবা হাকিম আতিকুর রহমান খান। তিনি নিজেই ওই গানের গীতিকার সুরকার ও শিল্পি। তিন্নির লেখা চিঠি এবং তার ওই গানের ক্যাসেট গুলো প্রধান মন্ত্রীর দপ্তরে পাঠিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিন্নির বাবা।

তিন্নির লেখা চিঠিঃ মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ,সর্ব প্রথমে অপনার কদমবুছি আরজ করছি। আমি হতদরিদ্র প্রকৃত ভুমিহীন পরিবারের একজন সন্তান। জন্মস্থান মাদারীপুর জেলার শিবচর থানার ২নং মালের কান্দি গ্রামে। আমারা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। আমার বাবাও একজন মুক্তিযোদ্ধা। কিন্ত ভাতা প্রাপ্ত নন। প্রায় ২২বছর আগে বাবা কাজের সন্ধানে কালিয়াকৈরে আসেন। বাবা একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বড় বোন আবিদা নাজনিন অপু দৃষ্টি প্রতিবন্ধি। বিয়ে দেওয়ার পর গর্ভে সন্তান রেখে স্বামী পালিয়েছে। বড় ভাই আমির খসরু শাহান শাহ ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ে একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন বিভাগে দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যায়ন রত। তিন্নির পরের বোন নাবিলা আতিক গাজীপুর মহিলা কলেজে রাষ্ট্র বিজ্ঞানে অর্নাস করছে। তারা দুজনই ছাত্রলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত।তার অপর ভাই মাহাথির মোহাম্মদ কোনাবাড়ী ডিগ্রী কলেজ থেকে একাদ্বশ ফাইনাল পরীক্ষা শেষ করেছে। সে ২০১৭ ইং সালে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে পুরস্কার পায়। কিন্ত দুঃেখের বিষয় আমাদের কোন জমি নেই। কোন ঘরবাড়ী নেই। স্থায়ী কোন ঠিকানা নেই। তাদের পরিবার হত দরিদ্র প্রকৃত ভুিমহীন। পরিবারে ৮জন সদস্য ভাড়া বাড়ীতে বসবাস করছে। ঘর ভাড়ার জন্য তার পরিবার বাড়ীওয়ালার কাছে অপমান হতে হয়। তার মা হেলেনা আতিক ও বাবা দুজনই ডায়াবেটিস রোগী ঠিকমত ওষধ সেবন করতে পারছেনা। ২২ বছর ধরে ভাসমান অবস্থায় কালিয়াকৈর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের সফিপুর পশ্চিমপাড়া ভাড়া থেকে কোন রকম মানবেতর জীবন যাপন করছে। বাবা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী তার পক্ষে আমাদের ভাইবোনদের লেখা পড়া ও সংসারের খরচ জোগানো সম্ববপর হয়ে উঠছেনা। আপনি মায়ের জাত তাই বলতে হয় আমাদেরতো বিয়ে সাদী হতে হবে, কিন্তু কি করে? যার বাবার মাটি দেওয়ার  জায়গাটুকু নেই তার মেয়েদের কে বিয়ে করবে? আর তার ছেলেদেরকে কে মেয়ে দিবে আপনি বলুন। আগামীতে সমস্যা আরো গভীর থেকে গভীরতর হবে এতে সন্দেহের অবকাশ নেই। তাই আমি আশাকরি আমাদের এই সমস্যা থেকে উত্তরনের  এক মাত্র পথ জাতির জনকের কন্য বাংলার জননীর দ্বারা সম্ভব। তাই অপনার দরবারে ফরিয়াদ করছি আমাদের তিন বোন ও দুই ভাইয়ের ভবিষ্যত ও বিয়ে সাদীর কথা আপনার কদমে পেশ করলাম।

বাবা হাকিম আতিকুর রহমান খান বলেন, আমরা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। আওয়ামীলীগ পরিবারের সাথে আমার পরিবার প্রত্যাক্ষভাবে জড়িত। আমার পরিবারে কোন জমি বাড়ী নেই। আমি বঙ্গবন্ধুকে ভালবাসি তার আদর্শ নিয়ে বেচে আছি। তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধান মন্ত্রির কাছে আমার লেখা সুর করা ও গাওয়া গানের ক্যাসেট ও আমার মেয়ের লেখা একটি চিঠি পাঠিয়েছি। আশা করি প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি গোচর হলে আমার পরিবারের সমস্যার সমাধান হবে।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

খোলা চিঠি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫১৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই