তারিখ : ১৬ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ত্রিশালে চাঞ্চল্যকর দুখু হত্যার বিচার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

ত্রিশালে চাঞ্চল্যকর দুখু হত্যার বিচার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন
[ভালুকা ডট কম : ২৩ জুলাই]
ময়মনসিংহের ত্রিশালে চাঞ্চল্যকর লুৎফর রহমান দুখু হত্যা মামলার আসামীদের বিচার দাবিতে সোমবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করেছে নিহতের পরিবার।ত্রিশাল প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহতের ছোট বোন শরিফা খাতুন।

একমাত্র ভাইয়ের খুনিদের বিচার চেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে তিনি বলেন, পরিবারের একমাত্র ভরসা বড় ভাইকে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২০১২ সালের ১৪ ই জুলাই দিবাগত রাতে আপন চাচা আব্দুল মান্নান চানু ও তার সহযোগীরা হত্যা করে। এ ঘটনায় ময়মনসিংহ বিজ্ঞ আদালতে মামলা করা হয় যা এখনো বিচারাধীন রয়েছে। ভাইকে হত্যার পর বাড়ী ঘর সহ সকল সম্পত্তি বেদখল করে নেয় চাচা। দীর্ঘ ২৫ বছর পর জেলা পুলিশ সুপার, ত্রিশালের ইউএনও এবং ওসি ত্রিশালের সহযোগিতায় সম্পত্তি ফিরে পেলেও ভাইয়ের হত্যাকারীদের কোন বিচার এখনও পাইনি। হত্যা মামলার আসামীগন মামলার মোড় ভিন্নদিকে প্রবাহিত করতে স্বাক্ষী মফিজুল ইসলামকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে। যদি আসামীদের যাবৎজীবন জেল বা ফাঁসি না হয় তাহলে স্বাক্ষী দেওয়া সম্ভব না বলে শরিফাকে জানিয়েছে মফিজুল ইসলাম।

শরিফা তার লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে মফিজুল ইসলাম ও হাসিনা খাতুন বিভিন্ন গনমাধ্যমে সাক্ষাতকার, এসপি অফিসে সুপারিশ ও উপজেলা সহকারী ভূমি অফিসের গনশুনানিতে স্বাক্ষী দিয়েছেন। এছাড়া ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনেও উপস্থিত ছিলেন তারা। এখন সুর পাল্টে বলছেন এ ব্যাপারে আমি বাইরে কথা বললেও জজের সামনে গিয়ে স্বাক্ষী দিতে পারব না।এসময় উপস্থিত ছিলেন দুখুর ছোট বোন নাছরিন সুলতানা, চাচাতো ভাই জামাল উদ্দিন, ভগ্নিপতি শরিফুল ইসলাম।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫২৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই