তারিখ : ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

চতুরতায় অপহরনকারীর হাত থেকে রক্ষা পেল নাঈম

চতুরতায় অপহরনকারীর হাত থেকে রক্ষা পেল নাঈম
[ভালুকা ডট কম : ০৫ আগস্ট]
নওগাঁ সরকারি কেডি উচ্চ বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর শিক্ষার্থী নাঈম আহমেদ। চতুরতায় অপহরনকারীর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে সে। ঘটনাস্থল থেকে শনিবার দুপুর ২টার দিকে তার বাবা উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। ঘটনার পর নাঈমের বাবা নওগাঁ শহরের চকএনায়েত মহল্লার রফিক এর ছেলে ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক চালক পঁচা (৩৫) সহ অজ্ঞাত আরো চার জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। শিক্ষার্থী নাঈম আহমেদ নওগাঁ শহরের চকমুক্তার মহল্লার বউ বাজার এলাকার নাজমুল হুদার ছেলে।

নাঈমের পরিবার সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকাল ৯টার দিকে স্কুলে যাওয়ার উদ্যেশে বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে শহরের দয়ালের মোড়ে ইজিবাইকের জন্য অপেক্ষা করছিল। এসময় একটি ইজিবাইক খালি পেয়ে সেখানে উঠে নাঈম। পথিমেধ্যে শহরের রুবীর মোড়ে আরো ৩-৪ জন যাত্রী উঠে। এরপর যাত্রী বেশে অপহরনকারীর সদস্যরা রুমাল দিয়ে নাঈমের নাক চেপে ধরলে সে অজ্ঞান হয়ে যায়। নাঈমের জ্ঞান ফেরার পর দেখে সে বগুড়া জেলার সান্তাহার রেল স্টেশনে। তবে ইজিবাইকে যারা ছিল তারা আর কেউ নেই।

সান্তাহারে নাঈমকে একা দেখে তার এক প্রতিবেশী আশিক (বেসরকারি কোম্পানির এসআর) তাকে বলে কোথায় যাবে। তখন উত্তরে নাঈম বলে খালার বাড়িতে বেড়াতে যাব শুনে আশিক চলে যান। একথাটি অপহরনকারীদের শিখিয়ে দেয়া ছিল। এরপর নাঈমের তৃষ্ণা পেলে পানি খেতে চাই। এসময় অপহরকারীর এক সদস্য পানি নিতে যায়। আরো দুই সদস্য মোবাইলে কথা বলায় ব্যস্ত ছিল। এসুযোগে নাঈম তাদের কাছ থেকে পালিয়ে এসে ফলের দোকানীকে তার বাবার কাছে ফোন দিতে বলে এবং দোকানীকে বলে ওই লোকগুলো তাকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। এসময় অপহরনকারীরা সটকে পড়ে।

ফলের দোকানী তৎক্ষনিক নাঈমের বাবাকে ফোন করে জানিয়ে দেন তার ছেলে এখন দোকানে আছে। অপহরনকারীরা তাকে ধরে নিয়ে যাওয়া সময় পালিয়ে এসেছে। এরপর দুপুর ২টার দিকে নাঈমের বাবা নাজমুল হুদা ঘটনাস্থল থেকে ছেলেকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

নাঈমের বাবা নাজমুল হুদা বলেন, প্রতিদিনের মতো ছেলে স্কুলে যায় এবং বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে বাড়িতে ফিরে আসে। কিন্তু দুপুর ২টার দিকে হঠাৎ করে এক দোকানী ফোন করে বলেন আপনার ছেলে এখন আমার কাছে আছে। এসে নিয়ে যান। ওই ফোন যদি না পেতাম তাহলে স্কুল ছুটির পর ছেলেকে খোঁজাখুজি করতে হতো।

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, ঘটনার পর শনিবার বিকেল ৬টার দিকে ছেলের বাবা ইজিবাইক চালক পঁচা নামসহ অজ্ঞাত আরো চার জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই