তারিখ : ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকা ছাত্রদল নেতৃত্বহীন এক যুগের বেশি সময়

ভালুকা ছাত্রদল নেতৃত্বহীন এক যুগের বেশি সময়
[ভালুকা ডট কম : ০৬ আগস্ট]
ভালুকা উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক ছাত্রদল বেশ কয়েক বছর যাবৎ নেতৃত্বহীন সময় অতিক্রম করছে। অপরদিকে, বছরের পর বছর সম্মেলন না হওয়ায় নেতৃত্বের কাঙ্খিত লক্ষে পৌঁছতে না পারায় হতাশা এসে ভর করেছে ছাত্রদলের উপজেলা, পৌর, ওয়ার্ড ও প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক নেতৃত্ব প্রত্যাশীদের উপর।

এদিকে, দলের নেতৃত্বের জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে ছাত্রত্বের পাট চুকিয়ে বহু আগেই বিভিন্ন পেশার মাধ্যমে কর্মজীবনে প্রবেশ করেছেন অনেকেই। তাছাড়া, কমিটি না থাকায় মূলদলে চলমান কোন্দলের প্রভাবও পড়ছে তাদের উপর। উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রদলের নেতৃত্ব প্রত্যাশীরা পদ-পদবীর পাওয়ার আশায় একেকজন মূলদলের গ্রুপ ম্যানেজ করে চলছেন এবং তারা কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে দলীয় কার্যক্রমেও অংশ নিচ্ছেন অনেকটা হিসাব কষেই। উপজেলা বিএনপির গ্রাম-গঞ্জের ছাত্রদলের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মাঝে বিভক্তির রেখাও অনেকটা স্পষ্ট।

দলীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের তৎকালীন সভাপতির দায়িত্বে থাকা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর উপস্থিতিতে ২০০৩ সালের ফেব্রুয়ারী মাষের শেষ সপ্তাহে ভালুকায় অনুষ্ঠিত হয় ছাত্রদলের সম্মেলন। উসমান গণি মল্লিক মাখনকে সভাপতি ও রাকিবুল হাসান রাসেলকে সাধারণ সম্পাদক করে ভালুকা উপজেলা শাখা, মতিউর রহমান মিল্টনকে সভাপতি ও আসিফুজ্জামান তুহীন চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে ভালুকা পৌর শাখা এবং হারুন-অর-রশিদকে সভাপতি ও মাসুদ রানাকে সাধারণ সম্পাদক করে ভালুকা ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রদলের দুই বছর মেয়াদী কমিটি গঠিত হয়। ২০০৩ সালে ওই সম্মেলন অনুষ্ঠানের পর দু'একটি ইউনিয়ন ছাড়া ছাত্রদলের আর কোন সম্মেলন হয়নি ভালুকায়। অথচ, গঠনতন্ত্র অনুসাবে প্রতি দুই বছর অন্তর ছাত্রদলের কমিটি গঠনের কথা রয়েছে। এদিকে, গত ২০১৫ সালে উপজেলা পরিষদের নির্বাচলাকালীন সময়ে বিভিন্ন কারণে বিলুপ্ত করা হয় ছাত্রদল ভালুকা উপজেলা, পৌর শাখা এবং কলেজ, শাখা কমিটি।

এদিকে, বিলুপ্তির পর অদ্যবদি ভালুকা উপজেলা, পৌর বা কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রদলের কোন কমিটি গঠন করা হয়নি। ২০০৩ সালে গঠিত কমিটির ছাত্রদলের নেতাদের পর নেতৃত্ব প্রত্যাশীরা নিজের তাগিদেই এপর্যন্ত কোনভাবে ধরে রেখেছেন গ্রাম ও ওয়ার্ড পর্যায়ের কর্মী-সমর্থকদের। কিন্তু এখন তারাও হতাশ। তাছাড়া, স্থানীয় দুই নেতার নেতৃত্বে দু’টি ধারা চলছে ভালুকার বিএনপিতে। ছাত্রদলের দলীয় পদ-পদবী পাওয়ার আশায় একেকজন লেয়াজু করে চলছেন মূল দলের একেকটি গ্রুপ।

পৌর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মতিউর রহমান মিল্টন বলেন, এক সময় ভালুকা ছাত্রদলে প্রাণচাঞ্চল ছিল। ডাক দিলেই হাজারো নেতা-কর্মী সমর্থক রাস্তায় বের হয়ে আসতো। দীর্ঘদিন কমিটি না থাকায় কর্মীদের ধরে রাখা কষ্টকর হচ্ছে।

উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এডভোকেট উসমান গণি মল্লিক মাখন জানান, এক এগারো সরকার এবং পরবর্তী আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে রাজনৈতিক প্রতিকুল পরিবেশ ও দলীয় নেতা-কর্মীদের উপর মামলা-হামলার কারণে সময়মত ভালুকা উপজেলা ছাত্রদলের সম্মেলন করা সম্ভব হয়নি।

নবগঠিত জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান রানা জানান, যথাসম্ভব দ্রুত সময়ের মাঝে কমিটিগুলো গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হবে।#   





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই