তারিখ : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে বাল্যবিয়ে ভেঙে দিলেন ইউএনও

নান্দাইলে বাল্যবিয়ে ভেঙে দিলেন ইউএনও
[ভালুকা ডট কম : ১০ আগস্ট]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় বুধবার রাত থেকে মহাধুমধামে গান-বাজনা বাজিয়ে বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। দশম শ্রেণিতে পড়া এক ছাত্রীর এই বাল্যবিয়ের খবর পান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। পরে তাঁর নির্দেশে বৃহস্পতিবার বিকেলে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও ছাত্রীর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে পাঠিয়ে বাল্যবিয়েটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। পৌরসভার চার নম্বর ওয়ার্ডের কান্দাপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নান্দাইল সদরের বালিকা বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীর বিয়ে ঠিক হয়েছিল গাংগাইল ইউনিয়নের ধনারামা গ্রামের আব্দুল বারিকের ছেলে মো. আনোয়ার হোসেনের সঙ্গে। বৃহস্পতিবার বিয়ের ধার্য দিনে জোহর বাদ বর পক্ষসহ পাড়া পড়শিদের আপ্যায়ন চলছিল। এ সময় সেখানে গিয়ে হাজির হন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রুকন উদ্দিন আহমদ ও ছাত্রীর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল খালেক।

প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক জানান, জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী মেয়ের বয়স এখনো ১৮ বছর হয়নি। এ বয়সে বিয়ে দেওয়া আইনত দ-নীয় অপরাধ। এ অবস্থায় তাঁরা দুই পক্ষকেই বাল্যবিয়ের কার্যক্রম থেকে সরে আসার আহ্বান জানান। তাঁদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে মেয়ের বাবা মেয়ের বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না বলে অঙ্গীকার করে লিখিত দেন। সেই সঙ্গে বরপক্ষের স্বজনদের কাছ থেকেও লিখিত নেওয়া হয়।

নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহদী ইমাম বলেন, ‘এই উপজেলায় আমি সদ্য যোগ দিয়েছি। যত দিন থাকব, একটি বাল্যবিয়েও হতে দেব না। বাল্য বিবাহ বন্ধে সকলের সহযোগিতা চাই।’#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৪৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই