তারিখ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সান্তাহারে জমে উঠেছে কুরবানীর পশুর হাট

সান্তাহারে জমে উঠেছে কুরবানীর পশুর হাট,দেশীয় গরুর কদর বেশি
[ভালুকা ডট কম : ১২ আগস্ট]
বগুড়ার আদমদীঘিতে ঈদুল আযহাকে ঘিরে পশুর হাটগুলো জমতে শুরু করেছে। হাটগুলোতে প্রাধান্য পাচ্ছে স্থানীয় খামারের পালিত গরু। তবে ঈদ ঘনিয়ে আসলে ভারতীয় গরুর আমদানি ঢুকতে পারে বলে স্থানীয় গরু ব্যবসায়ীরা বলছেন।ঈদ আসতে আরও ১১ দিন বাঁকি থাকলেও এখনই জমে উঠতে শুরু করেছে কোরবানির পশুর হাট। আদমদীঘি উপজেলার বড় পশুর হাটগুলোর মধ্যে শনিবার-মঙ্গলবার সান্তাহার রাধাকান্ত হাট ও আদমদীঘির হাট ও শুক্রবার-সোমবার নশরতপুর হাট এবং বৃহস্পতিবারে বগুড়ার দুপচাঁচিয়ার ধাপের হাট অন্যতম। এসব হাটের সাথে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, হাটগুলোতে আগাম কোরবানির পশু আসা শুরু করেছে।

উপজেলার সান্তাহার রাধাকান্ত হাটে গতকাল শনিবার গিয়ে দেখা গেছে, ব্যাপক হারে কোরবানির পশু উঠেছে শুরু করেছে। ক্রেতা- বিক্রেতাদের জন্য রয়েছে নিরাপত্তার ব্যাবস্থা। নিরাপত্তার বিধান নিশ্চিত করার জন্য এ হাটে কোন ধরনের অপৃতিকর ঘটনার কথা শুনতে পাওয়া যায় নি। তাই এই হাটে বরাবরই স্বস্তি বোধ করে ক্রেতা-বিক্রেতারা। এবছর রাধাঁকান্ত হাটে পশুর দাম নাগালের মধ্যে থাকায় বিক্রেতারা ও ক্রেতারা উভয়েই খুশি। শনিবারের হাটে একটি গরুর দাম সবোর্চ্চ বিক্রি করতে দেখা যায় ১লক্ষ ১৫ হাজার টাকা। হাট ঘুরে আরো দেখা গেছে বিক্রেতাদের চাহিদা মোতাবেক অনেক ক্রেতারা পশু কিনছেন। ক্রেতারা বলছেন, এবারে পশুর দাম যেভাবে চাওয়া হচ্ছে তাতে পশু কিনতে দামের খুব একটা কমবেশি হচ্ছেনা। ক্রেতাদের মতে ঈদের আরো ১০/১২ দিন বাকি, তাই আগাম বেশি দামে পশু কিনতে অনেক ক্রেতারা নারাজ। তবে ক্রেতা আর বিক্রেতারা উভয়েই বলছেন, আগামী সপ্তাহে হাটে গরুর আমদানি বেড়ে যাবে। আর তখন ক্রেতারা আরো পশু কেনা শুরু করবেন। হাটগুলোতে এখন পর্যন্ত ভারতীয় গরুর আমদানি চোখে পরার মতো নয় বলে জানান গরু ব্যবসায়ীরা।

সান্তাহার রাধাকান্ত হাট কর্তৃপক্ষ নুর ইসলাম জানান, হাটের পক্ষ থেকে ক্রেতা-বিক্রেতাদের জন্য রয়েছে প্রচন্ড নিরাপত্তার ব্যাবস্থা। হাটে এপর্যন্ত কোন অপ্রতিকর ঘটনা ঘটেনি। স্থানীয় খামারের বা বাড়িতে পোষা গরুই বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। পশুর আমদানির উপর দামের নির্ভর করলেও এবছর সকল ধরণের পশুর দাম তুলনামূলক অনেক কম হবে বলে মনে করছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। পশু হাটের ইজারাদারা বলছেন, হাট সবেমাত্র জমতে শুরু করেছে আগামী হাট থেকে পজমজমাট বেচা-কেনা শুরু হবে। তাছাড়া এবারের কোরবানিতে দেশীয় গরুর কদর থাকবে।

তারা আরও বলেছেন এবারের ঈদে বিভিন্ন এলাকার খামার ও গৃহস্থদের বাড়ির গরু তাদের হাটে প্রাধান্য পাবে। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অন্যান্য বছরের মতো এবারে স্থানীয়ভাবে গড়ে ওঠা খামারের সংখ্যাও অনেক কম নয়। তবে বিভিন্ন গ্রামের গৃহস্থদের বাড়িতে বাড়িতে ২-৪ টি দেশীয় গরু পালন করেছেন অনেকে। আর ঐসব গরু এবারের কোরবানীর ঈদের ক্রেতাদের হবে প্রধান টার্গেট। সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মুসা মিয়া জানান, হাটুরেদের নিরাপত্তায় প্রয়োজনিয় ব্যাবস্থা নেয়া হয়েছে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

বিনোদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই