তারিখ : ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

কারাগারে আদালত বসানো সংবিধানের লঙ্ঘন

কারাগারে আদালত বসানো সংবিধানের লঙ্ঘন,সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি
[ভালুকা ডট কম : ০৬ সেপ্টেম্বর]
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন অভিযোগ করেছেন, ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের একটি কক্ষকে আদালত হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার  বিচার করা বাংলাদেশ সংবিধানের আর্টিক্যাল ৩৫(৩) এবং ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৫২ ধারা  বরখেলাপ।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবীর ব্যানারে আজ (বৃহস্পতিবার) এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেন। জয়নুল আবেদীন বলেন,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানের আর্টিক্যাল ৩৫(৩) এবং ফৌজদারী কার্যবিধি ৩৫২ ধারা মোতাবেক আদালত বলতে একটি উন্মুক্ত আদালতের কথা বলা হয়েছে যেখানে যেকোনো সাধারণ নাগরিকের প্রবেশাধিকার থাকে। কারাগারে যেখানে আদালত বসানো হয়েছে সেখানে পাবলিক তো দূরের কথা খালেদা জিয়া ও অন্যান্য আসামিদের নিয়োজিত আইনজীবী কিংবা আত্মীয়-স্বজন প্রবেশ এবং আদালতের কার্যক্রম দেখা বা শোনার কোনো সুযোগ নাই। নাটক সিনেমায় যেরকম দেখানো হয় সেই আদলে  একটি আদালত কক্ষ সাজানো হয়েছে।কারা অভ্যন্তরে গঠিত আদালতটি মোটেই উন্মুক্ত আদালত নয় এবং সেখানে পাবলিক ট্রায়াল হওয়ার কোনো সুযোগ না থাকায় এইরূপ বেআইনি আদালতে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলার বিচার কার্যক্রম চলার আইনগত কোনো সুযোগ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে থাকা অন্য মামলার শুনানির জন্য কারাগারের ভেতরে আদালত বসানোর বিষয়ে জারী করা প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার করে উন্মুক্ত স্থানে বিচারকার্য পরিচালনা করার দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, বিএনপি জোটের শরিক বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামের আমির মকবুল আহমাদ বুধবার এক বিবৃতিতে পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে বিচারালয় বসিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন, ২০ দলীয় জোট নেত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু করার ব্যাপারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন,সরকারের এই উদ্যোগ অন্যায়, অনভিপ্রেত ও মানবাধিকারের সম্পূর্ণ পরিপন্থী। সরকার প্রকাশ্যে বিচার করার পরিবর্তে কারাগারের মধ্যে বিচারালয় বসিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার বিচারের যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে তা ক্যামেরা ট্রায়ালের শামিল। শুধু তাই নয়, সরকারের এই উদ্যোগ সংবিধানের পরিপন্থী।

জামায়াত নেতা আরো বলেন,সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে বন্দী করে রেখে তাকে উপযুক্ত চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ থেকেও বঞ্চিত করেছে। এ অবস্থায় তার অসুস্থতা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। তাকে উপযুক্ত চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ না দিয়ে সরকার তার প্রাপ্য নাগরিক অধিকার থেকে তাকে বঞ্চিত করছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা পেয়ে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানির জন্য কারাগারের ভেতরে বিশেষ আদালত বসানোর বিষয়ে মঙ্গলবার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে আইন মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘নিরাপত্তার কারণে' এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই