তারিখ : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রায়গঞ্জে একটি স্কুলে ছুটির ঘন্টা কাহিনীর পুনরাবৃত্তি

অল্পের জন্য রক্ষা
রায়গঞ্জে একটি স্কুলে ছুটির ঘন্টা কাহিনীর পুনরাবৃত্তি
[ভালুকা ডট কম : ১৮ সেপ্টেম্বর]
রায়গঞ্জে একটি স্কুলে ‘ছুটির ঘন্টা’ কাহিনীর পুনরাবৃত্তি ঘটতে যাচ্ছিল। এলাকাবাসীর চেষ্টায় অল্পের জন্য রক্ষা পেল টয়লেটে আটকে পড়া শিশু স্কুলটির ৫ম শ্রেণির ছাত্র ইব্রাহিম (১১)। ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার উপজেলার সারুটিয়া নিঝুড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ৪ দিন অতিবাহিত হলেও শিশুটি এখনো চরমভাবে শারিরীক জটিলতায় ভূগছ্।

সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়- ঐদিন ইব্রাহিম প্রকৃতির ডাকে স্কুলের টয়লেটে গেলে তার বের হওয়ার আগেই টয়লেটের গেট তালা দিয়ে স্কুল ছুটি দিয়ে সবাই চলে যায়। এঅবস্থায় প্রচন্ড গরমের মধ্যে দুপুর প্রায় দেড়টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত সে ল্যাট্রিনের মধ্যে আটকা ছিল। বিকালে স্কুলের মাঠে গ্রামের ছেলেরা খেলতে এসে টয়লেটের ভিতরে গোংরানির আওয়াজ পেয়ে তালা ভেঙ্গে প্রায় অচেতন অবস্থায় ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ রহমতুল বারী রাসেল জানান- আতংকে শিশুটি খুবই কাহিল হয়ে পড়েছিল, কোন ‘রেসপঞ্চ’ করতে পারছিল না। মূমুর্ষাবস্থায় তিনি স্যালাইনসহ প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে শিশুটিকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে রেফার করেন। কিন্তু তাকে এখনো সেখানে নেয়া হয়নি।

ইব্রাহিমের মা আঞ্জুয়ারা বেগম কান্না ভেজা কন্ঠে বলেন- তার ছেলের হাত পায়ে  শক্তি নেই। কথা বলতে পারে না। কিছু খাচ্ছেও না। ধরে নিয়ে বাথরুম টয়লেটে করাতে হয়।  লোকে বলছে জ্বীনের আছর। এজন্য হাসপাতালে নেইনি।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক আলমগীর হোসেন মল্লিক বলেন- তিনি ঐ সময় প্রাতিষ্ঠানিক কাজে বাইরে ছিলেন। খবর পেয়ে তিনি শিশুটির তাৎক্ষণিক প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আকতারুজ্জামান জানান- প্রধান শিক্ষকে ঐ ছাত্রের ভালভাবে চিকিৎসা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সাথে বার বার চেষ্টা করেও কথা বলা যায়নি। উপজেলার মানসম্মত শিক্ষার টেকসই উন্নয়ন গবেষণা পরিষদের সদস্য আমিনুল ইসলাম শিহাব সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্তৃপক্ষের নিকট সুষ্ঠ্য তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্ত মূলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন। অপরদিকে একটি মহল ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য জোর তদ্বির চালিয়ে যাচ্ছে।  তারা জ্বীনের আছর বলে ভুল বুঝিয়ে শিশুটিকে হাসপাতালেও নিতে দিচ্ছে না। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

শিক্ষাঙ্গন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই