তারিখ : ১৩ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পত্নীতলার ঘোলাদিঘীকে মাদকমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন

পত্নীতলার ঘোলাদিঘীকে মাদকমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন
[ভালুকা ডট কম : ২১ অক্টোবর]
মাদকের আখড়া হিসেবে পরিচিত নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার দিবর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী ঘোলাদিঘী গ্রামকে মাদকমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় সচেতন যুব সমাজ। মানববন্ধনে নিজে এবং নিজের পরিবারকে মাদক থেকে দূরে রাখার শপথ নেন সবাই। এছাড়া মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকসেবীদের বিরুদ্ধে স্বোচ্ছার হওয়ার প্রতিশ্রুতি নেওয়া হয়।

ঘোলাদিঘী যুবসমাজ সংঘের ব্যানারে রোববার গ্রামের পাশ দিয়ে যাওয়া দুই ধারে দাঁড়িয়ে মাদকবিরোধী মানববন্ধন করে। মানবন্ধনে গ্রামের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া কিশোর-তরুণ সহ প্রায় দুই শতাধিক গ্রামবাসী অংশগ্রহণ করে।

ঘোলাদিঘী যুবসমাজ সংঘের আহ্বায়ক শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিমল কুমার চক্রবর্তী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পত্নীতলা থানার পুলিশ পরিদর্শক জহুরুল ইসলাম, উপজেলার দিবর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ সরকার, ইউপি সদস্য নাদিরা বেগম প্রমুখ।

ঘোলাদিঘী গ্রামকে মাদকমুক্ত করতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি গ্রহণ করায় ওসি পরিমল চন্দ্র স্থানীয় যুব সমাজকে স্বাগত জানিয়ে বলেন,এই গ্রামে গুটিকয়েক মানুষ মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তাঁদের জন্য ঘোলাদিঘী গ্রাম সহ আশপাশের গ্রামের যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। তবে আশার কথা, সচেতন যুব সমাজ এগিয়ে এসেছে। সমাজের সচেতন মানুষেরা এগিয়ে এলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাজ আরও সহজ হয়। মাদকমুক্ত গ্রাম গড়তে মাদক ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে পুলিশ তথ্য দিয়ে সাহায্য করার জন্য যুব সমাজের প্রতি আহ্বান জানান ওসি।

ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ বলেন, কয়েক মাস আগে এই গ্রামের ৩০-৩৫ জন মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করে মাদক ব্যবসা না করার প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু বাস্তবে সেটা ছিল লোক দেখানো প্রতিশ্রুতি। কিছু দিন না যেতেই তাঁরা আবার মাদক ব্যবসা শুরু করেছে। থানা পুলিশ যথাযথ উদ্যোগ না নেওয়ায় দেদারছে মাদক কেনাবেচা হচ্ছে এই গ্রামে। পুলিশ র‌্যাব মাঝে মাঝে অভিযান চালিয়ে মাদক সহ দুই-একজন গ্রেপ্তার করলেও আইনের ফাঁক গলিয়ে তাঁরা বের হয়ে এসে আবার ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ছে। ঘোলাদিঘী গ্রামের জন্য পুরো ইউনিয়নের বদনাম হচ্ছে।

ঘোলাদিঘী যুবসমাজ সংঘের আহ্বায়ক শাহাদাত হোসেন বলেন, এ গ্রামে মাদকের ভয়াবহতা অনেক বেড়ে গেছে। সীমান্তবর্তী গ্রাম হওয়ায় ভারত পাচার হয়ে আসা মাদক সহজেই ঢুকে পড়ছে গ্রামে। মাদকের কারণে গ্রামের বদনাম চারিদিকেযে কোনো মূল্যে আমরা এই গ্রামকে মাদকমুক্ত করতে চাই। এটা আমাদের যুদ্ধ।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই