তারিখ : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পুনরায় কারাগারে নেয়া হয়েছে খালেদা জিয়াকে,তিনি এখনো সুস্থ নন

পুনরায় কারাগারে নেয়া হয়েছে খালেদা জিয়াকে,তিনি এখনো সুস্থ নন
[ভালুকা ডট কম : ০৮ নভেম্বর]
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে নাইকো দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানিতে হাজিরা শেষে পুনরায় কারাগারে নেয়া হয়েছে।

হাসপাতালের কেবিন ব্লকের ৬১২ নাম্বার ভিআইপি কেবিন থেকে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে নিচে নামিয়ে আনা হয় বেগম জিয়াকে।  কড়া নিরাপত্তার মাঝে কেবিন ব্লকের সামনে  কালো রঙের গাড়িতে উঠিয়ে  বেগম জিয়াকে  পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসা হয়। পরে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন হাসপাতালের পরিচালক। তিনি বলেন, বেগম জিয়ার চিকিৎসা শেষ হওয়ায় তাকে কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়েছে। তবে, চিকিৎসা অসমাপ্ত রেখেই বেগম জিয়াকে জোর করে কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপিপন্থী চিকিৎসকরা। বৃহস্পতিবার দুপুর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটে এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ অভিযোগ করেন।

এসময় বিএনপিপন্থি সিনিয়র চিকিৎসক ডা. সাইফুল ইসলাম বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দলের প্রধান এখন দেশে নেই। অন্যান্য চিকিৎসকগণ তাকে হাসপাতাল ত্যাগের বিষয়ে কোনো আভাস দেননি। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত চিকিৎসক নন এমন একজন কনিষ্ঠ চিকিৎসক যিনি বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য বিষয়ে অবগত ছিলেন না তাকে চাপ দিয়ে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ছাড়পত্র নেয়া হয়েছে।

এ প্রসংগে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেছেন,নিয়ম হচ্ছে, চিকিৎসকরা বলবেন তিনি ফিট কিনা। কিন্তু সেটা তারা বলেননি। তারা বলেছেন, তিনি এখনো চিকিৎসাধীন আছেন এবং এখনি তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ করা সঠিক নয়। আমরা তাকে দেখেছি, তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। হুইল চেয়ারেও তিনি ঠিকমতো বসতে পারছেন না। তাকে হুইল চেয়ারে নিয়ে আসা হয়েছে এবং তার মধ্যেও তাকে জোর করে আদালতে বসিয়ে রেখে কষ্ট দেয়া হচ্ছে। এটা অমানবিক। আমরা এর নিন্দা করছি এবং অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি করছি।

এ ছাড়া,বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী  বৃহস্পতিবার (০৮ নভেম্বর) সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন, বেগম জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে লাগাম ছাড়া ক্রোধে এই অবৈধ শাসকগোষ্ঠী এখন তার জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে। তার চিকিৎসা শেষ  না হতেই যার অধীনে তিনি চিকিৎসাধীন তিনি ছাড়পত্র দেননি। এছাড়া বোর্ডের যিনি চেয়ারম্যান তিনি দেশের বাইরে তারপরেও সরকার তার অবৈধ রাষ্ট্র ক্ষমতার জোরে কর্তৃপক্ষের ওপর চাপ প্রয়োগ করে তাকে আবার কারাগারে ঢোকানোর জন্য। এটা একটা হিংস্র মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা শুরু হয়নি, কেবল পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে, সেই মুহূর্তে তাকে কারাগারে প্রেরণ করার উদ্যোগ শুধু মনুষ্যত্বহীন কাজই নয়, এটি সরকারের ভয়ংকর চক্রান্ত। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসক ও তার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্য সৈয়দ আতিকুল হকের অধীনে তিনি চিকিৎসাধীন। চিকিৎসক খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেননি এবং মেডিকেল বোর্ডের চেয়ারম্যান চিকিৎসক জলিলুর রহমান বর্তমানে দেশের বাইরে আছেন। এ অবস্থায় সরকারের নির্দেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দিতে বাধ্য করতে চাপ সৃষ্টি করছে।

বিএনপির মুখপাত্র রিজভী বলেন, চিকিৎসা না দিয়ে কারাগারে প্রেরণ খালেদা জিয়ার জীবনকে বিপন্ন করার অথবা শারীরিকভাবে চিরতরে পঙ্গু করার চক্রান্ত। খালেদা জিয়া সুস্থ হোন, এটি ‘বিদ্বেষপ্রবণ’ সরকার কখনো চায় না। তিনি অভিযোগ করেন, খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে লাগামছাড়া ক্রোধে এই ‘অবৈধ’ শাসকগোষ্ঠী এখন তার জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে। এটি শেখ হাসিনার ‘হিংস্র’ আচরণেরই চরম বহিঃপ্রকাশ।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই