তারিখ : ২১ জুন ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ফুলপুরে কয়েকটি গ্রামের অবশেষে যাতায়াত দুর্ভোগ লাঘব

ফুলপুরে কয়েকটি গ্রামের অবশেষে যাতায়াত দুর্ভোগ লাঘব
[ভালুকা ডট কম : ১১ জানুয়ারী]
ফুলপুর উপজেলার ৫নং ফুলপুর ইউনিয়নের বাতিকুড়া গ্রামের স্লুইস গেট সংযোগ সড়ক নির্মাণের ফলে অবশেষে কয়েকটি গ্রামবাসি যাতায়াত দুর্ভোগ থেকে রেহাই পেয়েছেন। এছাড়াও পাশ্ববর্তি ৩টি গ্রামের প্রায় ১০ টি কাঁচা রাস্তা নির্মাণ ও পুনঃ নির্মাণের ফলে জনমনে স্বস্থি ফিরে এসেছে।

জানা যায়, ফুলপুর ইউনিয়নের সরচাপুর- ডেফুলিয়া সড়কের বাতিকুড়া গ্রামের বটখালি খালের উপর এলাকাবাসি দীর্ঘ দিন ধরে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি করে আসছিলেন। ব্রিজ না থাকায় তারা বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হতেন। প্রায় ৪ বছর আগে স্থানটিতে ব্রিজের পরিবর্তে প্রায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয় বরাদ্দে বন্যা নিয়ন্ত্রণের নামে ব্রিজসহ স্লুইস গেট স্থাপন করা হয়। নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই বর্ষা মৌসুমে পানি প্রবাহিত হতে না পেরে হিতে বিপরীত হয়ে এলাকায় ব্যাপক বন্যার সৃষ্টি করে স্লুইস গেটের দু’পাশের অনেক রাস্তাসহ ভেঙে আরও ২ টি খালের সৃষ্টি করে। যা বিশাল ব্যয় বরাদ্দ ছাড়া ভরাট বা বাঁশের সাঁকো করে পারাপারে অবস্থা না থাকায় এলাকাবাসিকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল। এ নিয়ে দৈনিক যুগান্তরসহ বিভিন্ন পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশ হয়। অবশেষে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বর্তমান সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের সহায়তায় ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ভরাট করে চলাচলের উপযোগি করতে সক্ষম হন।

এ ছাড়াও টানা প্রায় ৩ মাস কাজ করে শিববাড়ি ব্রিজ হতে বাতিকুড়া গ্রামের বটখালি ব্রিজ পর্যন্ত ৩ কিলোমিটার রাস্তা পুনঃ নির্মাণ, শিববাড়ি থেকে মধ্যনগর গ্রাম পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, বাতিকুড়ার সাহাব উদ্দিনের বাড়ি হতে সুরুজ খার বাড়ি পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ ও পুনঃ নির্মাণ, হাসেমের বাড়ি হতে রৌয়া খাল পর্যন্ত ২ কিলোমিটার ও মতি মৌলভীর বাড়ি হতে রৌয়া খাল পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, হোছেন আলীর বাড়ি হতে মহর আলীর বাড়ি পর্যন্ত ২ কিলোমিটার, মন্ডলের ফিসারী হতে সুমনের ফিসারী পর্যন্ত ২ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়। এছাড়াও লুতুর বাড়ি হতে জালালের বাড়ি, সুলতানের বাড়ি হতে বাতিকুড়া মাদরাসা, হারুন ক্বারীর বাড়ি হতে বারেকের বাড়ি, সরকার বাড়ির মসজিদ হতে নুরুর বাড়ি পর্যন্ত খন্ড খন্ড রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে।

ফলে অত্র এলাকার আর কোন কাঁচা রাস্তার কাজ বাকি না থাকায় জনমনে স্বস্থি ফিরে এসেছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোফাখ্খারুল ইসলাম অক্লান্ত পরিশ্রম করে অবৈধ স্থাপনা ও গাছপালা উচ্ছেদসহ বিভিন্নজনের কাছ থেকে জায়গা নিয়ে রাস্তাগুলোর বাস্তবায়নে সহায়তা করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেবুন নাহার শাম্মী প্রকল্পগুলো পরিদর্শণ করেও সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই