তারিখ : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাণীনগরে উপজেলা নির্বাচনে আ’লীগে নতুন মুখের হিড়িক

রাণীনগরে উপজেলা নির্বাচনে আ’লীগে নতুন মুখের হিড়িক,নিরব বিএনপি
[ভালুকা ডট কম : ১৮ জানুয়ারী]
নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী মার্চ মাসে ৫টি ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই দেশজুড়ে উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আলোচনা বেশ জমে উঠেছে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে পাড়া মহল্লায় আলোচনার ঝড় বইছে এই নির্বাচন নিয়ে।কে হচ্ছেন প্রার্থী, দলীয় মনোনয়ন কে পাবেন? ঐক্যফ্রন্ট আদৌ উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কি না, আওয়ামী লীগের টিকেট পাচ্ছেন কে? এসব নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। তবে বিএনপি জোট নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে কিনা, এই বিষয়ে নিশ্চিত না হওয়া গেলেও আওয়ামী লীগের প্রার্থীতা নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রচার-প্রচারনা তুঙ্গে উঠেছে। এছাড়াও ব্যানার, ফেস্টুন ও পোষ্টার টাঙ্গানোসহ আলোচনার মাধ্যমে ইচ্ছাপোষন করছেন প্রার্থীরা। তাই আবারো রাণীনগর উপজেলায় নতুন করে বাজতে শুরু করেছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ডামাডোল। সারাদেশের ন্যায় উপজেলা নির্বাচনী আলোচনার ঢেউ আছড়ে পড়েছে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায়। সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়টি উল্লেখ করে প্রার্থীদের পক্ষে জোরে-শোরে প্রচারণা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগ থেকে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে। নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে দৌড়ঝাঁপ শুরু হলেও এখনো নিরব বিএনপি-জামায়াত জোট। সম্প্রতি পুলিশের দায়ের করা গায়েবী মামলা ও বিস্ফোরক মামলার কারণে গা ঢাকা দিয়েছে রাণীনগর বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর সিনিয়র নেতারা। তাদের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে কোন আগ্রহই দেখা যাচ্ছে না। আগামী মার্চে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে। এ নিয়ে প্রক্রিয়া শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর সম্ভাব্য চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা মাঠ পর্যায়ে সরব হয়ে উঠেছেন। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে পুরো উপজেলা।

আওয়ামী লীগ থেকে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, উপজেলা আ’লীগরে সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা আ’লীগের সদস্য মো: রেজাউল ইসলাম, উপজেলা আ’লীগের কার্যকরী সদস্য আসাদুজ্জামান নুরুল, একডালা ইউপি আ’লীগের সাধারন সম্পাদক , বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মো: আনোয়ার হোসেন বিএ।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন সাবেক উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল্লাহ মিঞার ছেলে উপজেলা যুবলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক জারজিস হাসান (মিঠু), সদর ইউপি আ’লীগের সাধারন সম্পাদক সাফাত হোসেন, কাশিমপুর ইউপির সাবেক মেম্বার জাহাঙ্গির আলমসহ আরো অনেকের। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মোছা: ফরিদা পারভীনসহ আরো অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে।

উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মফিজ উদ্দিন বলেন, আমাদের মাঝে কোন দ্বন্দ্ব কিংবা কোন্দল নেই। স্থানীয় সংসদ সদস্য ভালো-মন্দ বিচার করে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যাকে নৌকা প্রতিক দিবেন আমরা তার হয়ে কাজ করবো এবং নৌকার বিজয়কে সুনিশ্চিত করবো।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি এসএম আল ফারুক জেমস বলেন, এই প্রথম উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রতিক ব্যবহার করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় বিএনপি যে সিদ্ধান্ত নেবে আমরা তা মেনে নেবো এবং সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা কাজ করবো। তবে আমাদের মধ্যে থেকে যদি কেউ নির্বাচনে অংশ নিতে চান তাহলে তিনি অবশ্যই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে পারবেন এতে কোন বাধা নেই।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নির্বাচন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৫৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই