তারিখ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইল মহসড়কে ধান মাড়াই,দূর্ঘটনার আশংকা

নান্দাইল মহসড়কে কৃষাণ-কৃষাণীদের ধান মাড়াই,দূর্ঘটনার আশংকা   
[ভালুকা ডট কম : ০২ মে]
ময়মনসিংহের নান্দাইল মহাসড়কের উপর চলতি বোরো ধান ও খড় সহ বিভিন্ন শস্য শুকানোর হিড়িক পড়েছে। এতে করে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে এবং পদে পদেই মারাত্মক দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।

সরজমিন দেখা যায়, উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের বিভিন্ন পাকা সড়কগুলোতেও চলছে ধান মাড়াই সহ ধান, খড়, মরিচ, ভূট্টা শুকানোর ধুম। কৃষকরা বাড়ির আঙ্গিনায় ধান মাড়াই না করে পাকা সড়কের উপর মাড়াই করে খড় ও ধান শুকাতে দেখা যাচ্ছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন কৃষক-কৃষাণী সহ কৃষক পরিবারের ছোট- ছোট শিশু বাচ্চারা। এর ফলে ঐসব পাকা সড়ক গুলো দিয়ে প্রতিনিয়ত জনসাধারণ ও যানবাহন চলাচলে বিঘ্নতার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশঙ্কা করছে অনেকেই। কিন্তু এ বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করার কারণে দিন দিন পাকা সড়ক গুলোতে ধান ও খড় শুকানোর মাত্রা বেড়েই চলছে।

এসব পাকা সড়কপথে অনবরত বাস, ট্রাক, মিনিবাস, মোটরসাইকেল ছাড়াও রিক্সা-ভ্যান এবং ইজিবাইক চালকরা সর্বক্ষণ দূর্ঘটনার আতঙ্কের মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছে। পাকা সড়কে ধান শুকাচ্ছেন এমন লোকদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, এই বোরো মৌসুমে বাড়ীতে কাঁচা মাটিতে ধান-খড় শুকাতে বেশি সময় লাগে। তা ছাড়া বৃষ্টি বাদল, ঝড়ে ক্ষতিও হয়। তাই তারা অত্যন্ত নিরাপদ এবং দ্রুত শুকানোর স্বার্থেই পাকা সড়কে ধান এবং খড় শুকিয়ে থাকেন।

নান্দাইল ঘোষপালা গ্রামের রায়হান মিয়া জানান, নিয়ম-কানুন তোয়াক্কা না করে সড়ক বন্ধ করে সড়কের উপর খড় শুকাচ্ছে স্থানীয় কৃষক-কৃষানীরা। তিনি আরো বলেন, সড়ক গুলো দেখলে মনে হয় চলাচলের জন্য সড়ক নয় এ যেন ধান ও খড় শুকানো ব্যক্তিদের পৈত্রিক সম্পত্তি।

দৃষ্টিনন্দন এই মহাসড়কের সৌন্দর্যহানির পাশপাশি ব্যাপক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। অহরহ ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। সম্প্রতি সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনাও বেড়েছে। সিএনজি চালক আলআমিন জানান, মহাসড়কতো আর মহাসড়ক নেই। ধান মরিচের চাতাল হয়ে গেছে। দুপাশে ধান মরিচ শুকাতে দেয়ায় আমরা বিপরীত দিক থেকে আসা যানবাহনকে সাইট দিতে পারি না। রাস্তাটা ঝুঁকিপূর্ণ করে ফেলছে। কোনো দুর্ঘটনা হলে সব দোষ আমাদের হয়। কিন্তু আমরাতো ইচ্ছে করে একটি পোকাও মারি না।

সড়ক দখল করে ধান মরিচসহ অন্যান্য ফসল শুকানোর কাজ করা হলেও স্থানীয় প্রশাসনের নীরব ভূমিকা জনমনে প্রশ্ন তুলেছে। দূর্ঘটনা এড়াতে এখনই কার্যকর পদক্ষেপ না নিলে যে কোন সময় ঘটতে পারে মর্মান্তিক দূর্ঘটনা। নান্দাইল হাইওয়ে থানার ওসি মামুন রহমান তিনি এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলে জানান।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

লাইফস্টাইল বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই