তারিখ : ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

গফরগাঁওয়ে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ, ধর্ষক আটক

গফরগাঁওয়ে কলেজ ছাত্রীকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ,ধর্ষক আটক
[ভালুকা ডট কম : ১৩ মে]
ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার আব্দুর রহমান ডিগ্রী কলেজের  দ্বাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে (১৭) অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে একাধিক বার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে স্থানীয় সংঘবদ্ধ একটি চক্র। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কান্দিপাড়া গ্রামে।

এঘটনায় রোববার রাতে ওই কলেজ ছাত্রী বাদী হয়ে চাঁন মিয়া সিং,মোশারফ হোসেন ও মোঃ স্বপনকে আসামী করে পাগলা থানায় মামলা দায়ের করেছে।পাগলা থানার ওসি(ভারপ্রপ্ত) ফয়েজুর রহমান জানান,ঘটনার সাথে জড়িত ধর্ষক  চাঁন মিয়া সিং কে(৪৩) গ্রেফতার করা হয়েছে ।

মামলা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাগলা থানাধীন কান্দিপাড়া গ্রামের জনৈক প্রবাসীর কলেজ পড়ুয়া মেয়ে মায়ের সাথে নিজ বাড়িতে বাস করে।একই গ্রামের আব্দুল বারেক সিং এর ছেলে চাঁন মিয়া সিং পরিবারটির খোঁজ নেওয়ার ছলে আসা যাওয়া করতো।গত ৮ ফেব্রুয়ারী ওই শিক্ষার্থীর মা তার অসুস্থ্য বড় মেয়েকে দেখতে সালটিয়া ইউনিয়নের পুখুরিয়া গ্রামে বড় মেয়ের শশুর বাড়ি দেখতে গিয়ে রাত্রী যাপন করেন। ঐ রাতে চাঁন মিয়া সিং একই গ্রামের মৃত কাশেম সিং এর ছেলে মোশারফ হোসেনকে(৪০) সাথে নিয়ে মেয়েটির বাড়িতে আসে এবং একটি কক্ষে আটকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চাঁন মিয়া সিং মেয়েটিকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় মোশারফ হোসেন মোবাইলে ধর্ষনের ভিডিও ধারণ করে।চলে যাওয়ার সময় চাঁন মিয়া সিং ধর্ষনের কথা কাউকে জানালে এবং মামলা করলে ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ও প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে যায়। মান সম্মান ও প্রাণের ভয়ে মেয়েটি এ ঘটনা কাউকে জানায়নি। এ ঘটনার প্রায় এক মাস পর চাঁন মিয়া সিং মেয়েটিকে তার সাথে ময়মনসিংহ শহরে আত্মীয়ের বিয়েতে যাওয়ার জন্য চাপ দেয়। এতে রাজি না হলে পূর্বের ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

এঅবস্থায় নিরুপায় হয়ে মেয়েটি চাঁন মিয়া সিংয়ের সাথে ময়মনসিংহে যেতে রাজি হয়। পরে চাঁন মিয়া সিং মেয়েটিকে ময়মনসিংহ চরপাড়া এলাকায় বেসরকারি স্পন্দন নামে একটি হাসপাতালে নিয়ে একটি কক্ষে আবারো জোর পূর্বক ধর্ষণ করে এবং ঐ ধর্ষণের দৃশ্যও ভিডিও ধারন করে স্পন্দন হাসপাতালের মালিক স্বপন। পরে সহযোগীদ্বয় মেয়েটিকে আবারো ধর্ষনের চেষ্টা করলে সেখান থেকে এক নার্সের সহযোগীতায় মেয়েটি পালিয়ে বাড়ি চলে আসে।বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে চাঁন মিয়া সিংয়ের লোকজন মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে মা-খালাকে মারধর করে তাদের বাড়ি থেকে বের করে তালা লাগিয়ে দেয়। এর পর অভিযুক্তদের প্রাণ নাশের হুমকি মাথায় নিয়ে প্রায় এক মাস যাবত মা মেয়ে পৌর শহরে আত্মীয়-স্বজনের বাসায় অবস্থান করছেন। এ অবস্থায় অভিযুক্তরা মেয়েটিকে তাদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য তার মাকে হুমকি দেওয়ায় গত রোববার রাতে মেয়েটি তার মাকে সঙ্গে নিয়ে পাগলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

মেয়েটির মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সে বলে,ধর্ষনের ভিডিও ফেইসবুকে ছেড়ে দেওয়ার ও প্রাণ নাশের ভয়ে ঘটনাটি এতদিন প্রকাশ করতে সাহস পাইনি।মেয়েটির মা জানান অভিযুক্তদের অত্যাচার থেকে বাঁচতে এক পর্যায়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে আমার মেয়ে। তিনি আরও বলেন, পালিয়েও এদের হাত থেকে আমার মেয়েকে আমি রক্ষা করতে পারছিলাম না। এরা মাদকাসক্ত ও মাদক ব্যবসায়ী। আমাকে ও আমার মেয়েকে প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে তাদের লোকজন।স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম তোতা জানান, লোকমুখে ঘটনা শুনেছি।





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৯৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই