তারিখ : ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় প্রতিবন্ধী মা ও নবজাতকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর

ভালুকায় প্রতিবন্ধী মা ও নবজাতকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর  
[ভালুকা ডট কম : ১৩ জুন]
ভালুকায় প্রতিবন্ধী এক নারী নাবজাতক প্রসবের ১৪ দিন পর ১৩ জুন বৃহসম্প্রতিবার দুপুরে পরিবারের কাছে ওই নবজাতক ও প্রতিবন্ধী নারীকে হস্তান্তর করেছেন ভালুকা মডেল থানা পুলিশ। ওই প্রতিবন্ধী নারীর বাড়ী মানিকগঞ্জ জেলার শিংগাইর উপজেলার পৌর সদরের ৩নং ওয়ার্ড আজিমপুরের ফরহাদ এর মেয়ে রেহেনা খাতুন (২৫) ও একই উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের কুহিনুরের স্ত্রী।

জানা যায়, উপজেলার বহুলী গ্রামের জনৈক সোহাগ মিয়ার বাড়ির বাররান্দায় ৩১ মে শুক্রবার দুপুরে মানসিক ভারসাম্যহীন এক  নারী ছেলে সন্তান প্রসব করেন। ঘটনাটি জানানোর পরও ভালুকার কয়েকটি দপ্তর তাৎক্ষণিক ভাবে মা ও নবজাতকের ব্যবস্থা না নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার দিন রাত ১২ টার দিকে মা ও নবজাতককে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করেন ভালুকা মডেল থানা পুলিশ। রাতেই ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। ওই নারী ও নবজাতকের সুস্থ্য হওয়ার আগ পর্যন্ত চিকিৎসাসহ সব ধরনের ব্যয়ভার বহন করেন। ওই নারী কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। নাম-ঠিকানা কিছুই জানা যায়নি। পরে পুলিশ বুরো ইনবিষ্টিগ্রেশ (পিবিআই) এর সহায়তায় ওই প্রতিবন্ধী নারী আঙ্গুলের ছাপ সংগ্রহের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্রে মাধ্যমে ঠিকানা সংগ্রহ করে ওই নারীর পরিবারের লোকদেরকে খবর দিয়ে এনে প্রতিবন্ধী নারী ও নবজাতকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লক্সে থেকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভালুকা মডেল থানার ওসি তদন্ত মাজাহারুল ইসলাম, ওসি অপারেশন আবুল কালাম আজাদ।

প্রতিবন্ধী রেহেনার স্বামী কুহিনুর জানান, আমার স্ত্রী প্রায় ১৫ বৎসর যাবৎ মানসিক রোগি ৫ বৎসর পূর্বে বাড়ী থেকে উদাও হয়ে যায়। আমার দুটি সন্তান রয়েছে। আমার সন্তান গুলো তার মাকে ফিরে পেয়ে অনেক খুশি। এই নবজাতক সহ আমার স্ত্রীকে আমি বাড়ী নিয়ে যাচ্ছি।

ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন জানান, মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারী ছেলে সন্তান প্রসব করার পর আমি নিজ দায়ীত্বে হাসপাতালে এক জন আয়া রেখে তাদের দেখা শুনার দায়ীত্ব নেই এবং পিবিআই এর মাধ্যমে তাদের ঠিকানা সংগ্রহ করে পুলিশ অফিসার পাঠিয়ে পরিবারের লোকজনদেরকে এনে তাহাদের কাছে প্রতিবন্ধী নারী ও নবজাতককে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেই।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই