তারিখ : ১৬ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নতুন সড়ক পরিবহন আইন,সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড

নতুন সড়ক পরিবহন আইন,তবে দুর্ঘটনার দায় নেবে না পরিবহন মালিকরা,সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড
[ভালুকা ডট কম : ০২ নভেম্বর]
গতকাল থেকে কার্যকর হওয়া নতুন সড়ক পরিবহন আইনের ব্যাপারে পরিবহন মালিক-শ্রমিক ও যাত্রী সাধারণের সমালোচনার মুখে সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আজ জানিয়েছেন, এ বিষয়ে আগামী সাতদিন সারাদেশে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হবে। এই সময়ের মধ্যে কোনো পরিবহনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের না করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (০২ নভেম্বর) সকালে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় নতুন আইনের আওতায় বিআরটিএ'র ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিদর্শনে এসে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ আশ্বাসের কথা জানান। এসময় মন্ত্রী  নিজেও বিভিন্ন পরিবহন চালক ও যাত্রীদের হাতে সচেতনতামূলক লিফলেট তুলে দেন। সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ পুরোপুরিভাবে বাস্তবায়িত হলে দেশে দুর্ঘটনা অনেক হ্রাস পাবে এবং সড়ক-মহাসড়কগুলোতে শৃংখলা ফিরে আসবে।

এর আগে, পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের বাধার মুখে এতদিন আইনটি বাস্তবায়ন করতে পারেনি সরকার। নতুন এ আইনের বিভিন্ন ধারা বাতিলের দাবিতে তারা আন্দোলন করে। অত:পর গত মাসের শেষের দিকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ থেকে আইনটি কার্যকরের আদেশ জারি করা হয়েছে। তবে সড়ক ব্যবহারকারীদর আশংকা পর্যাপ্ত  ফুটপাত, পাকিং সুবিধা সিগনাল -এসব ব্যবস্থা না করে  আইনের  কড়াকড়িতে যাত্রী সাধারনেরই  দুর্ভোগ  বাড়বে।

এদিকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির জানিয়ে দিয়েছে, সড়কে দুর্ঘটরার জন্য দায়ী চালক বা  শ্রমিকের দায় তারা নেবে না। আজ শনিবার রাজধানীতে সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাস্তবায়ন সম্পর্কে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেছেন, সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাস্তবায়ন করতে গিয়ে মালিক-শ্রমিকরা যাতে অকারণে হয়রানির শিকার না হয় এবং আইনের অপপ্রয়োগ না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ উল্লেখ করেন, যথেষ্ট দক্ষ চালক তৈরি ছাড়া সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। যদি দুর্ঘটনার পর চালক কারাগারে যায়, তারা যদি জামিন না পায়, তাহলে চালক সংকট আরো প্রকট হবে।

পরিবহন মালিকরা জানিয়েছেন, মালিককে বড় অঙ্কের জরিমানা করা যাবে না। এটা করলে পরিবহন খাত বাধাগ্রস্ত হবে। আইন শুধু আমাদের একার জন্য না, যারা মোটরযান ব্যবহার করেন, তাদের সবার জন্য।

শুক্রবার থেকে কার্যকর হওয়া  বহুল আলোচিত সড়ক পরিবহন আইনে বলা হ‌য়ে‌ছে, বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে দুর্ঘটনার মাধ্যমে গুরুতর আহত কিংবা প্রাণহানি ঘটালে চালককে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে কিংবা অর্থদণ্ড পেতে হবে। ত‌বে তদ‌ন্তে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হত্যাকাণ্ড প্রমাণ হলে সর্বোচ্চ সাজা হ‌বে মৃত্যুদণ্ড। আর খুন না হলে ৩০৪ ধারা অনুযায়ী যাবজ্জীবন। লেন ভঙ্গ ও হেলমেট ব্যবহার না করায় অনধিক ১০ হাজার টাকা জরিমানা।

নতুন এ আইনে  ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল ও ২৫ হাজার টাকা বা উভয় দণ্ড এবং  নিবন্ধন ছাড়া গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল বা ৫০ হাজার টাকা বা উভয় দন্ডের বিধান রাখা হয়েছে। তাছাড়া,  ফিটনেসবিহীন গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল বা ২৫ হাজার টাকা বা উভয় দণ্ড প্রদান করা যাবে। নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী ও বয়ঃজ্যেষ্ঠ যাত্রীর জন্য সংরক্ষিত আসনে অন্য কোনো যাত্রী বসলে এক মাসের কারাদণ্ড বা ৫ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দেওয়া হবে।

মদপান করে বা নেশাজতীয় দ্রব্য খেয়ে গাড়ি চালালে, সহকারীকে দিয়ে গাড়ি চালালে, উল্টো দিকে গাড়ি চালালে, নির্ধারিত স্থান ছাড়া অন্য স্থানে গাড়ি থামিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি, চালকছাড়া মোটরসাইকেল একজনের বেশি সহযাত্রী উঠালে, মোটরসাইকেলের চালক ও সহযাত্রীর হেলমেট না থাকলে, ছাদে যাত্রী বা পণ্য বহন, সড়ক বা ফুটপাতে গাড়ি সারানোর নামে যানবাহন রেখে পথচারীদের চলাচলে বাধা সৃষ্টি, ফুটপাতের ওপর দিয়ে কোনো মোটরযান চলাচল করলে সর্বোচ্চ তিন মাস কারাদণ্ড বা ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড এর বিধান রাখা হয়ে‌ছে। গাড়ি চালানোর সময় চালক মোবাইল ফোন  ব্যবহার করলে এক মাসের কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে  হবে।

আইনে বিধান রাখা হয়েছে যে, নূন্যতম  অষ্টম শ্রেণি পাস না হলে চালকরা লাইসেন্স পাবেন না ।  সাধারণ চালকের ক্ষেত্রে  বয়স আগের মতোই কমপক্ষে ১৮ বছর এবং পেশাদার চালকদের বয়স হতে হবে কমপক্ষে ২১ বছর। জাল ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যবহারের জন্য দুই বছরের কারাদণ্ড এবং ৩ লাখ টাকা জ‌রিমানা গুনতে হবে। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জাতীয় বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই