তারিখ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

শহীদ নূর হোসেন স্বপ্নের গণতন্ত্র আজও প্রতিষ্ঠিত হয় নাই

শহীদ নূর হোসেন স্বপ্নের গণতন্ত্র আজও প্রতিষ্ঠিত হয় নাই
[ভালুকা ডট কম : ১০ নভেম্বর]
শহীদ নূর হোসেন স্বপ্নের গণতন্ত্র আজও প্রতিষ্ঠিত হয় নাই মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, নূর হোসেনের যে আয়ু কেড়ে নিয়েছিলো বাংলাদেশের রাজনীতি, সেই রাজনীতি আজও গণতন্ত্রকে নূর হোসেনের মতোই বাড়তে দেয়নি। ৩২ বছরেও নূর হোসেন আর বড় হননি।

তিনি বলেন, তার সে সময়ের সহযোদ্ধারা ধনে-প্রাণে অনেক বড় হয়েছেন। অনেকেই  মন্ত্রী-এমপি হয়েছেন। আমলা-মিলিয়নিয়ার কতজন হয়েছেন, তা গুনতে শুরু করলে হাত-পায়ের সব আঙুলেও কুলাবে না। পিঠে ও বুকে ‘গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক’ লিখে তিনি নিজেকে পুলিশের বন্দুকের নিশানা করেছিলেন। কবরে নামানোর সময় অনেক ঘষাঘষি করেও তার গায়ে লেখা বাংলাদেশের সেই ললাটলিখন ওঠানো যায়নি। পুলিশের যে গুলিটি তার পাজরে রক্তজবা ফুটিয়েছিল, সেটিও সেখানেই থেকে গেছে।

রবিবার (১০ অক্টোবর) নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে শহীদ নূর হোসেন দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নূর হোসেনকে খুন করে রাতের আঁধারে জুরাইনের বেওয়ারিশ কবরস্থানে মাটি চাপা দিল; সেখান থেকে তাকে তুলে আনার কথা মনে হয়নি কারও। নূর হোসেন সেখানে শুয়ে শুয়ে অপঘাতে নিহত সব লাশের বুকে-পিঠে লিখে দিচ্ছে, ‘জীবন মুক্তি পাক’। সেখানে তাজরীন আর রানা প্লাজার বেওয়ারিশ শ্রমিকের বোবা প্রতিবাদকে ভাষা দেয় নূর হোসেনের ডাক, ‘অপঘাত নিপাত পাক’।

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, কোন গণতন্ত্র চেয়েছিলেন নূর হোসেন? নির্বাচনী গণতন্ত্র? জনগণের ক্ষমতায়নের গণতন্ত্র? অবাধে জনগণকে বঞ্চিত করে যাওয়ার লুটেরা গণতন্ত্র? নূর হোসেন গণতন্ত্র গরিবের সমস্যা সমাধানের গণতন্ত্র, স্বৈরতন্ত্র হলো গরিবের শত্রু আর লুটেরাগোষ্টি।  যতবার নূর হোসেনের নাম উচ্চারিত হয়, ততবারই নূর হোসেন যেন দূরে চলে যায়।

তিনি বলেন, এত আত্মদান কেন বৃথা গেল? কারা দায়ী? গণতন্ত্রের জন্য শহীদানের মিথের আড়ালে বিত্ত, ভোগ আর জিঘাংসাকাতর রাজনীতি প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। নূর হোসেনদের নিজস্ব গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধকে আত্মসাৎ করেই তো রাজনীতি থেকে জনগণকে উৎখাত করা সম্ভব হয়। লুটেরা শাসকগোষ্টির ওয়ারিশ বহনেরই যোগ্য, শহীদ নূর হোসেনদের নয়। আজকের বাংলাদেশে নূর হোসেনেরা কেবলই হেরে যাচ্ছে, বেওয়ারিশ হয়ে থাকছে।

বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, মহনগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মো. শামিম ভুইয়া, শ্রম সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান, মহিলা সম্পাদিকা সাদিয়া ইসলাম ঈমন, যুব নেতা বাহাদুর শামিম আহমেদ পিন্টু প্রমুখ।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই