তারিখ : ২১ জানুয়ারী ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

গণঅভ্যুত্থান ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব নয়-ফখরুল

গণঅভ্যুত্থান ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব নয়-মির্জা ফখরুল
[ভালুকা ডট কম : ২৪ নভেম্বর]
সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি গণঅভ্যুত্থান ছাড়া সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ (রোববার) বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর বিএনপি এ সমাবেশ আয়োজন করে।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ১৬ কোটি মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক, স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য একটি গণঅভ্যুত্থান প্রয়োজন। সেই লক্ষ্যেই আমরা সমবেত হয়েছি। সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে, বেআইনিভাবে তাকে আটক রাখা হয়েছে প্রায় ত্রিশ মাস ধরে। আমরা জানি, কোনোভাবে কোনো কিছুতে জড়িত না থেকেও শুধু মাত্র প্রতিহিংসার কারণে তিনি এই সাজা পেয়েছেন। অথচ ওয়ান/ইলেভেনের সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা দেওয়া হয়েছিল, সেগুলো তুলে নেওয়া হয়েছে। আমাদের নেত্রীর বিরুদ্ধে মামলা ছিল মাত্র চারটি, সেটি আজ হয়েছে ৩৭টি। আর প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা ছিল ১৫টি, সেগুলো সব তুলে নেয়া হয়েছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেন,এই সরকার জনগণের সরকার নয়। জনগণের কোনো ম্যান্ডেট তাদের নেই। তারা সম্পূর্ণ অবৈধভাবে, জোর করে ক্ষমতা দখল করে বসে আছে। আমরা খুব স্পষ্ট করে বলতে চাই, আমরা ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছিলাম স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্রের জন্য। আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের জন্য এবং সেই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব অক্ষুন্ন রাখার জন্য প্রয়োজনে আবারও বুকের রক্ত ঢেলে দেব।

সরকার সব দিক দিয়ে ব্যর্থ হয়েছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন,তারা বাংলাদেশ রাষ্ট্রের সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছে। ফেইল স্ট্রেট বলে কাকে? যখন রাষ্ট্রের কোনো প্রতিষ্ঠান ঠিক মতো কাজ করে না। তারা হাজার হাজার পুলিশ নিয়োগ দিচ্ছে। অথচ ছিনতাই, হত্যা, রাহাজানি, ধর্ষণ— কোনো কিছুই কমছে না। তারা আইন করছেন সড়কে নিরাপত্তার জন্য। অথচ সড়কে প্রতিদিন হাজার হাজার লোক মরছে, আহত হচ্ছে, পঙ্গু হচ্ছে। আজ ব্যাংকগুলো ফাঁকা হয়ে গেছে। শেয়ার মার্কেট লুট হয়ে গেছে। ব্যাংকগুলো চলছে না। সমস্ত প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়ে তারা দেশ চালাতে চায়।

তিনি বলেন, এই সরকার আমাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। কথা বলার অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আজকের এই সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে সকাল দশটার পরে। এর পরে আর অনুমতি আমরা নেব না। এর পর আমাদের যখন প্রয়োজন হবে, তখন সমাবেশ করব। কারণ, সমাবেশ আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার।

সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন,সমস্ত দল ও মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সেই গণ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তাদেরকে উৎখাত করতে হবে। কোনো বিভক্তি নয়, এক সাথে এক হয়ে গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে আমরা দেশনেত্রী মুক্ত করব।

ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বরচন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, ড. মঈন খান, সেলিমা রহমান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম প্রমুখ।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই