তারিখ : ১৪ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুন ২০২০, সোমবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
৫ জন ২২৯ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৮২ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

দেশে প্রতিবছর ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে ২ লাখ মানুষ

দেশে প্রতিবছর ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে ২ লাখ মানুষ,করণীয় কী?
[ভালুকা ডট কম : ১৭ ফেব্রুয়ারী]
সারা বিশ্বে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। বিভিন্ন তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১৩ থেকে ১৫ লাখ ক্যান্সার রোগী রয়েছে। বছরে প্রায় ২ লাখ নতুন ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। কিছু ক্যান্সার বংশগতভাবে হয়। বেশিরভাগ ক্যান্সারের জন্য দায়ী আমাদের খাদ্যবস্তু ও পরিবেশ।ক্যান্সার বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে রোববার রাজধানীতে আয়োজিত সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা এ তথ্য জানান।

বিভিন্ন গবেষণা তথ্য তুলে ধরে বিশেষজ্ঞরা বলেন, প্রায় ৭০ ভাগ ক্যান্সার পাওয়া যাচ্ছে- মধ্যবিত্ত থেকে নিম্ন-মধ্যবিত্ত শ্রেণির মধ্যে। এসব ক্যান্সারের এক-তৃতীয়াংশই  প্রতিরোধযোগ্য।বিশ্ব ক্যান্সার দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সভায় উপস্থিত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা বিভিন্ন উৎস থেকে পাওয়া তথ্য ব্যাখ্যা করে জানান, প্রতি বছর ৯ দশমিক ৬ মিলিয়ন মানুষ ক্যান্সারে মারা যায়। ক্যান্সারকে মৃত্যুর দ্বিতীয় কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে। উপযুক্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা, প্রাথমিক পর্যয়ে রোগ নির্ণয় এবং উপযুক্ত চিকিৎসার মাধ্যমে ৩ দশমিক ৭ মিলিয়ন ক্যান্সার প্রতিরোধ করা সম্ভব। প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পড়লে চিকিৎসার মাধ্যমে ক্যান্সার রোগী পুণরায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে।

ক্যান্সার প্রতিরোধের ব্যাপারে চিকিৎসকদের প্রধান পরামর্শ হচ্ছে- তামাক ব্যবহার বন্ধ করা। সিগারেট-বিড়ি ছাড়াও পানের সাথে তামাক, জর্দা বা গুল ব্যবহার ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় সেটা আজ গবেষণায় প্রমাণিত।

এ প্রসঙ্গে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের আবাসিক চিকিৎসক ও ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. কাজী ইফতেখার উদ্দিন আহমেদ তামাকের সাথে ক্যান্সারের সম্পর্কের বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বলেন, খাবার ও পরিবেশের মাধ্যমে যে সব ক্যান্সার আক্রমণের ঘটনা ঘটে তা থেকে রক্ষা পেতে ব্যক্তিগত পর্যায়ের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সরকাইরভাবে ও সামাজিক পর্যায়ে প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলা। সারা দেশে সরকারি মেডিকেল কলেজে এবং জেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলেতে ক্যান্সার চিকিৎসার প্রতুলতার কথাও তুলে ধরেন এ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

বাংলাদেশে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ক্যান্সারের চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকলেও তা মূলত রাজধানীকেন্দ্রিকই রয়ে গেছে। ক্যান্সার রোগীদের কাছে চিকিৎসা সুবিধা দিতে চিকিৎসা ব্যবস্থা জেলা পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত করা দরকার। আর সে জন্য দরকার পর্যাপ্তসংখ্যক উপযুক্ত চিকিৎসক, সেবাদান কর্মী, চিকিৎসা সরঞ্জাম ও ওষুধপত্র। গরীব রোগীদের জন্য এ সুবিধা সরকারকেই ব্যবস্থা করে দিতে হবে বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞমহল#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই