তারিখ : ০৭ জুন ২০২০, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সাংসদের কাছে চিঠি লিখে খাবার নিলো মরিয়ম

কর্মহীনদের পাশে “মানবিক খাদ্য সহায়তা কেন্দ্র”
সাংসদের কাছে চিঠি লিখে খাবার নিলো তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মরিয়ম
[ভালুকা ডট কম : ০৭ এপ্রিল]
সারা দেশে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে সবকিছু। তারই ধারাবাহিকতায় নওগাঁর রাণীনগরেও সবকিছু বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। উপজেলার কর্মহীন হয়ে পড়া দিনমজুর, রিকশাচালক, অসহায়, ভবঘুরে, দু:স্থ্যদের মাঝে ইসরাফিল আলম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে চালু করা হয়েছে “মানবিক খাদ্য সহায়তা কেন্দ্র”।

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: ইসরাফিল আলম তার নিজ উদ্যোগে সরকারের পাশাপাশি তার নির্বাচিত এলাকা জেলার রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার কর্মহীন হয়ে পড়া হাজার হাজার মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে রাণীনগর উপজেলার রাণীনগর হাউজে চালু করেছেন এই “মানবিক খাদ্য সহায়তা কেন্দ্র”। এই কেন্দ্র থেকে প্রতিদিনই কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষদের খুঁজে বের করে কিংবা মোবাইলে ফোন পেয়ে অথবা ফেইসবুকের মাধ্যমে সন্ধান পাওয়া মানুষদের ঘরে ঘরে গিয়ে প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী পৌছে দেওয়া হচ্ছে।

তারই ধারাবাহিকতায় রাণীনগর উপজেলা সদরের মাদারকেয়ার স্কুল এন্ড কলেজের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মরিয়ম স্বহস্তে সাংসদ ইসরাফিল আলমের কাছে চিঠি লিখে খাবার সামগ্রী সংগ্রহ করেছে। মরিয়মের লেখা চিঠি থেকে জানা যায় যে তার বাবা ও মা ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরী করেন। সে তার দাদার সঙ্গে পশ্চিম বালুভরা গ্রামে থাকে। তার দাদা শামছুর শাহ উপজেলার বিভিন্ন সাপ্তাহিক হাট ও বাজারে ফেরি করে তেল বিক্রি করেন। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারনে তার দাদা কোন হাট কিংবা বাজারে যেতে পারছেন না যার কারণে তাদের ঘরে কোন খাবারের ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। তার দাদার বাড়িতে ৫জন সদস্য।

মরিয়ম তার আশেপাশের মানুষদের কাছে জেনেছে যে সাংসদ ইসরাফিল আলমের রাণীনগর হাউজ থেকে কর্মহীন মানুষদের মাঝে প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী বিতরন করা হচ্ছে। তাই বাড়িতে খাবার না থাকায় সে নিজের হাতে একটি চিরকুট লিখে মঙ্গলবার বিকেলে নিজে রাণীনগর হাউজে গিয়ে সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের হাতে তুলে দেয়। সঙ্গে সঙ্গে সাংসদ ইসরাফিল আলম তার চালু করা “মানবিক খাদ্য সহায়তা কেন্দ্র” থেকে ৫কেজি চাল, দেড় কেজি আলু, ১কেজি ডাল, ১লিটার তেল, লবণ, পেঁয়াজ, মরিচ, রসুন, সাবানসহ অন্যান্য সামগ্রীর দুই প্যাকেট খাবার প্রদান করেন। এছাড়াও সাংসদ মরিয়মের পরিবারের পাশে সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়ানোর জন্য উপজেলা প্রশাসনকে লিখিত ভাবে নির্দেশনা প্রদান করেন।

সাংসদ ইসরাফিল আলম বলেন সারা বিশ্ব বর্তমানে করোনা ভাইরাসের মরণ থাবায় আবদ্ধ। দেশজুড়ে এই সংকটময় সময়ে আমি আমার নির্বাচিত এলাকার অসহায় ও কর্মহীন মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য এলাকায় চলে এসেছি। সব সময় এলাকার মানুষদের সার্বিক খোঁজ খবর রাখার চেষ্টা করছি। রাত-দিন বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়ে কর্মহীন মানুষদের খোঁজ-খবর নিচ্ছি। এরপর আমি নিজে ও ভ্রাম্যমাণ গাড়ীর মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবীরা প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী সেই সব মানুষদের ঘরে পৌছে দিচ্ছি। যতদিন এই সংকট থাকবে ততদিন এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। শুধুমাত্র আপনারা ঘরের বাহিরে বের হবেন না এবং অবশ্যই করনীয় নিয়মগুলো মেনে চলবেন। সরকারকে আরো কঠোর হতে বাধ্য করবেন না।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৬৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই