তারিখ : ৩১ মে ২০২০, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

তজুমদ্দিনে,ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর অভিযোগ।বিকাশে অর্থ সহায়তা

তজুমদ্দিনের ব্যবসায়ীকে বোরহানউদ্দিন থানার হত্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ১৪ মে]
ভোলার তজুমদ্দিনে জমিজমার বিরোধীয় শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ ব্যবসায়ীকে অন্য উপজেলায় হত্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে । এদিকে ওই ব্যবসায়ীর জমি দখল করে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ এবং মারপিট করার ঘটনায় মামলা করেও টাকার জোড় ও প্রভাবের কাছে হেরে যেতে বসেছে মানবতা।

সুত্র মতে জানাগেছে, উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের  ৮নং ওয়ার্ডের মাতাব্বরকান্দি গ্রামের মফিজুল ইসলামের ছেলে হুমায়ুন কবিরকে উদ্দেশ্যমূলক ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে বোরহানউদ্দিন থানার একটি হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। ওই মামলার বাদী কহিনুর বেগম তজুমদ্দিনের চাঁদপুর ইউপির ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। তার মেয়েকে বোরহানউদ্দিনের কাচিয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের চকঢোষ গ্রামের সোহাগ গংরা যৌতুকের দাবীতে হত্যা করা হয়েছে মর্মে ২৪/০২/২০২০ তারিখে বোরহানউদ্দিন থানায় মামলা রুজু হয়। যার নং ২১। এই মামলার ৬ নং স্বাক্ষী মোতাহার হোসেন পিতা খোরশেদ আলম সাং আড়ালিয়া, ৭ নং ওয়ার্ড, চাঁদপুর, তজুমদ্দিন, ভোলা। যিনি হুমায়ুন কবিরের ভোলা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে দায়ের করা ৪০/২০১৯ এবং ৫০/২০১৯ নং মামলার ৩ নং আসামী।

ওই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য জাকির হোসেন জানান, কহিনুর বেগম ও মোতাহার হোসেন একই বাড়ির বাসিন্দা। যে কারনে অন্য উপজেলার মামলাতে উদ্দেশ্যমূলক জড়ানো হয় হুমায়ুন কবির কে। কহিনুর বেগম বাদী হওয়া মামলার ২ নং স্বাক্ষী মোঃ জাহাঙ্গীর জানান, মামলার আসামী হওয়ার পর জানতে পারি হুমায়ুন কবিরের বাড়ী তজুমদ্দিন। তাকে আমাদের ভাগনী জামাই আসামী সোহাগের সাথে কখনো দেখিনি।

মামলার ৩ নং স্বাক্ষী মোঃ সোহাগ জানান, মামলা লেখার সময় আসামী হুমায়ুন কবির সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে মোতাহার বলেন তোমাদের জানার দরকার নাই আমি তাকে চিনি। হুমায়ুন কবির জানান, কহিনুর বেগমের মেয়েকে কোথায় কবে বিয়ে দিয়েছে এবং কিভাবে মারা গেছে তা জানা নেই। মামলায় আসামী হওয়ার পর পুলিশ তদন্ত করতে আসলে দুই মাস পরে জানি আমি আসামী। আমার দুটি মামলা ৩ নং আসামী মোতাহারের ভায়রা মোঃ ইয়াসিনের সাথে জমি জমার বিরোধ থাকায় আমাকে উদ্দেশ্যমূলক আসামী করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বোরহানউদ্দিন থানার এসআই স্বপন কুমার হাওলাদার জানান, মামলাটি অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হইতেছে। সরেজমিন তদন্ত শেষে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।#

তজুমদ্দিনে ইউএনডিপি’র বিকাশের মাধ্যমে অর্থ সহায়তা প্রদান
ভোলার তজুমদ্দিনে দাতা সংস্থা ইউএনডিপি বাংলাদেশ এর আই সি বি এ এ আর প্রকল্পের আওতায় ৫শত দরিদ্র ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ১ হাজার ৫শত টাকা করে অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়।

ইউএনডিপির স্থানীয় প্রতিনিধি কামরুজ্জামান কিরন জানান, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় অপদকালীন সময়ে সরকারের নানামুখী কার্যক্রমের সাথে মানবিক সহায়তা হিসাবে নারী ও শিশুদের প্রয়োজনীয় উপকরণ কিনতে এই সহায়তা প্রদান করা হয়। উপজেলা সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি ও ইউএনডিপির স্থানীয় প্রতিনিধির তত্ত্বাবোধায়নে এসব সুবিধাভোগীর তালিকা তৈরী করা হয়।

কাজিকান্দি গ্রামের সুবিধাভোগী কহিনুর বেগম জানান, বিকাশের মাধ্যমে টাকা প্রদান করায় আমরা সঠিকভাবে হাতে পেয়েছি। করোনার মহামারীর মধ্যে নগদ টাকা পেয়ে আমি ব্যাপক উপকৃত হয়েছি।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৬০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই