তারিখ : ০৬ আগস্ট ২০২০, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২৮০ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২১৯ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকা সড়কের বিভাজন বন্ধ করে দেয়ায় চরম দুর্ভোগ

ভালুকা ফুরলেন সড়কের বিভাজনে স্টিলের গার্ডার দিয়ে বন্ধ করে দেয়ায় জনগণের চরম দুর্ভোগ
[ভালুকা ডট কম : ২৭ নভেম্বর]
জয়বেদপূর-ময়মনসিংহ ফুরলেন সড়কের ভালুকা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা বিভজনের মাঝ খানে স্টিলের গার্ডার দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় রাস্তা পারাপারে জনসাধরণের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সড়ক পরিকল্পনাবিধরা ভালুকা বাসস্ট্যান্ডে সড়ক বিভাজের একটি অংশ সামন্য কিছু জয়গায় একটু নিচু করে দিয়েছে মানুষ পারপারের জন্য। আমাদের প্রশ্ন হলো সেই টুকুও কেন স্টিলের গার্ডার দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হলো?

যদি বাসস্ট্যান্ড এলাকার জ্যামের জন্য এটি করা হয় তাহলের আমার ব্যক্তিগত ভাবে সাধারণ মানুষের পক্ষ থেকে কিছু কথা আছে। বাসস্ট্যান্ডের আ’লীগের অফিসের সামনে সড়করে উপর তিন সারিতে(ঝাওলির গাড়ি)বিভিন্ন মিলের শ্রমিকদেরকে রেখে এসে ফাঁকা সময় টুকু সড়কে ভাড়া মারার জন্য দাড়িয়ে থাকে এ ক্ষেত্রে ট্রাফিক পুলিশ কি করে? গফরগাঁও সড়কের পাশে এবং সড়কে প্রতি নিয়তই ২শতাধিক সিএসজি, অটো, ব্যাটারি চালিত রিক্সা ব্যস্ততম সময়ে দাঁড়িয়ে থেকে প্রতিনিয়তই জ্যাম লাগিয়ে রাখে এ ক্ষেত্রে ট্রাফিক পুলিশ কী করে? এবং ফুরলেন সড়কের দুই পাশে যাত্রীবাহী ভ্যান,রিক্সা দাঁড়িয়ে থাকে এ সময় ট্রাফিক পুলিশ কী করে?

রাস্তার যদি ছোট পিক আপ  অথবা মুরগী ও ডিম বহন করা গাড়ি দেখে ট্রাফিক পুলিশ শকুনের মতো গিয়ে খামছি দিয়ে গাড়ি গুলো ধরে। মনে হয় যেন ড্রাইভাররা এসব পিক আপ নিয়ে রাস্তায় নেমে অপরাধ করেছে। সড়কের ব্যস্ত সময়ে ফুট ওভার ব্রীজের নিচে অথবা বাসস্ট্যান্ড মসজিদের সামনে ট্রাফিক পুলিশ গাড়ির কাগজপত্র চেকের নামে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করছে। এতেও অনেক সময় জ্যামের সৃষ্টি হয়। বাস স্ট্যান্ডে যখন জ্যাম লেগে যায় ট্রাফিক পুলিশকে কম সময়ই জ্যাম ছুটানোর কাজ করতে দেখা যায়।

ভালুকার ফুরলেন সড়কের পশ্চিম পাশে ভালুকা সরকারী হাসপাতাল, বাজার ও সাবরেজিস্ট্রি অফিস থাকার কারণে প্রতিনিয়তই পূর্ব পাশের মানুষকে রাস্তার পার হয়ে পশ্চিম পাশে যেতে হয়। লোহার গার্ডার দিয়ে রাস্তার মাঝ খানে বন্ধ করে দেয়ায় হেঁটে এপার থেকে ওপারে যাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গেল। যদি যেতে হয় তাহলে ফুট ওভার ব্রিজ দিয়ে পার হতে হবে। আমাদের প্রশ্ন হলো, যারা এ পরিকল্পনা করে রাস্তা বন্ধ করেছেন তাদের কাছে, বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা বিভাজনের কিছু অংশ কেন নিচু রাখলেন?

এভাবে রাস্তা বন্ধ করার ফলে পূর্ব পাশের যারা বাসস্ট্যান্ডে মসজিদে গিয়ে ৫ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেন তারা আর ওই মসজিদে নামাজ আদায় করতে পারবেন না। রাস্তাটি বন্ধ করার ফলে অসুস্থ ও বয়স্ক মানুষ রাস্তার এপার থেকে ওপারে যেতে পারবেন না। যদি কোনো ব্যক্তি ২০কেজি বাজার হাতে করে নিয়ে আসেন তাঁর জন্যও ফুট ওভারব্রীজ ব্যবহার করা খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে।

সত্যিই ভালুকার মানুষ যথেষ্ট ভদ্র ও নম্র, কারণ একই সড়কের ত্রিশাল অংশে গিয়ে দেখেন ত্রিশালের লোকজন তাদের সুবিধার জন্য নিজ নিজ এলাকা দিয়ে রাস্তার বিভাজ কেটে ইউটার্ন বানিয়ে নিয়েছেন। আর ভালুকা মানুষ মাল্লিকবাড়ি মোড়ের পুর্ব পাশের লোকজন যানবাহন নিয়ে আসতে চাইলে ৮কিলো মিটার ঘুরে সিডস্টোর বাজার থেকে ইউটার্ন নিয়ে ভালুকায় আসতে হয়। ভালুকা থানার মোড় দিয়ে কোনো যানবাহন নিয়ে ভালুকা বাজারে অথবা থানায় যেতে চাইলে পল্লী বিদ্যুৎ থেকে ইউটার্ণ নিয়ে আসতে হয়। পক্ষান্তে ভালুকা বাসস্ট্যান্ডের উত্তর পাশে আক্তার মার্কেটের সামনের ইউটার্ণটি ভালুকা ট্রাফিক পুলিশ স্থায়ী ভাবে বন্ধ করে দিয়েছে।

স্থানীয় সাংসদের নির্দেশনা ক্রমে কয়েক দিনের জন্য ইউটার্ণটি সাময়িক ভাবে খোলে দিলেও পরে ট্রাফিক পুলিশ তাঁদের আরাম আয়েশ ও  সুবিধার জন্য তারা বন্ধ করে দেয়। ত্রিশালের মানুষ তাদের সুবিধার জন্য ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড মাছের আড়তের কাছে মহাসড়ক কেটে ইউটার্ণ বিনিয়ে নিয়েছে। এম,পি সাহেবের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও পুলিশ তাদের সুবিধার জন্য ভালুকার আক্তার মার্কেটের সামনের ইউটার্ণটি বন্ধ করে দিয়েছে। এ গার্ডার দেয়ার ফলে ট্রাফিক পুলিশ আরাম আয়েশে ডিউটি করতে পারবে।

জনগণের প্রস্তাব হলো মহা সড়কের উপর মিলের ঝাওলির গাড়ি সরিয়ে দেয়া, সড়কের উপর দাঁড়িয়ে থাকা যাত্রীবাহী ভ্যান,রিক্সা অপসারণ করা ও গফরগাঁও সড়কে যে সেব সিএনজি ও অটোর রিক্সা চলে এদেরকে দুই ভাগে ভাগ করে একদিন নীল ও আরেকদিন লাল গাড়ি চালানোর ব্যবস্থা করা। এতে বাসস্ট্যান্ডে জ্যাম অর্ধেকেও বেশি কমে যাবে। তারপরও আমাদের দাবী রাস্তার পারাপারের কিছু অংশের স্টিলের গার্ডার তোলে নিয়ে জনগণের চলাচলের পথ খোলে রাখার ব্যবস্থা নেয়া। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় মাননীয় সাংসদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই