তারিখ : ৩১ অক্টোবর ২০২০, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম


বিস্তারিত বিষয়

শ্রীপুরে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার সাথে খামারীদের মতবিনিময়

প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার সাথে খামারীদের মতবিনিময়,করোনার প্রভাবে শ্রীপুরে প্রাণি সম্পদ কমেছে
[ভালুকা ডট কম : ১৫ অক্টোবর]
গাজীপুরে শ্রীপুরে এ বছর বিভিন্ন জাতের ১২ লাখের বেশি গরুর সংখ্যা কমে গেছে। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় উৎপাদন কম ও বিক্রির কারণে এ সংখ্যা কমেছে। পোল্ট্রি খামারীরা লেয়ার মুরগী বিক্রির কারণে চাহিদার তুলনায় ডিম উৎপাদন কমে গেছে। ফলে ডিমের বাজারও এখন উর্ধমুখী।

বৃহষ্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় শ্রীপুর উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার সাথে খামারীদের মতবিনিময়কালে এসব তথ্য উঠে আসে। গত অর্থ বছরের সাথে বর্তমান অর্থ বছরের প্রাণিসম্পদের তুলনা করলে গরু ও ডিম উৎপাদন কমে যাওয়ার বিষয়টি চিহ্নিত হয়।

বাংলাদেশ পোল্ট্রি খামার রক্ষা জাতীয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মহসীন জানান, করোনাকালের শুরুতে হঠাৎ করে বাজারে ডিমের চাহিদা কমে যায়। এসময়ে খামারীরা পরিস্থিতি মোকাবিলায় অনেকটা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। শ্রীপুরের দুই হাজার খামারীর মধ্যে বেশিরভাগ খামারী নিয়মিত ডিম দেয়া মুরগীগুলো বিক্রি করে দেন। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে খামারীরা নতুন বাচ্চা খামারে তোলেন। নিয়মিত ডিম দেয়ার জন্য আরও কমপক্ষে মাস দু’য়েক সময় লাগবে। বর্তমানে শ্রীপুর এলাকায় ডিমের বাজার মুল্য প্রতি পিস ৯টাকা করে। নতুন মুরগী থেকে নিয়মিত ডিম উৎপাদন শুরু হলে ডিমের মূল্য কমে যাবে বলে জানান তিনি।

খামারীদের সমস্যার কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, শ্রীপুর উপজেলায় সরকারিভাবে প্রাণি সম্পদের জন্য যে ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হয় তা মাত্র একটি খামারে ব্যবহারের উপযোগী। দেশের বাইরে থেকে যে হিমায়িত মাংস (রেডমিট) আমদানি করা হচ্ছে তা বন্ধ করতে হবে। তা না হলে দেশের মোটাতাজাকরণ সেক্টর ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেন খামারীরা।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মুহাম্মদ রোকুনুজ্জামান জানান, চাহিদার তুলনায় ভ্যাকসিনের সরবরাহ অপ্রতুল। সাম্প্রতিক জরিপে গত অর্থ বছরের তুলনায় এ অর্থ বছরে বিভিন্ন জাতের গরু সংখ্যা কমপক্ষে ১১ লাখ কম। পোল্ট্রি জোনের গাজীপুর জেলার শ্রীপুরে প্রাণি সম্পদের পরিমাণ বেশি। মোট দুজন চিকিৎসক রয়েছেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ কার্যালয়ে। মাঠকর্মী রয়েছেন মাত্র তিনজন। চাহিদার তুলনায় জনবল কম। তিনি দাবী করেন বাংলাদেশ পাঁচ বছর আগেই মাংসের চাহিদা পূরণের সক্ষমতা অর্জন করেছে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মুহাম্মদ রোকুনুজ্জামান, বাংলাদেশ পোল্ট্রি খামার রক্ষা জাতীয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মহসীন, উপজেলা ভেটেরিনারী সার্জন ডা. মোহাম্মদ সামিউল বাছির, ডা. নিপা, অধ্যাপক হাবিবুর রহমান মৃধা, খামারী নেতা আব্দুল মতিন, তোফাজ্জল হোসেন, জুলফিকার, তাইফুল ইসলাম প্রমূখ।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কৃষি/শিল্প বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই