তারিখ : ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সান্তাহার পৌর শহরে চুরির হিড়িক,আতঙ্কে এলাকাবাসী

সান্তাহার পৌর শহরে চুরির হিড়িক,আতঙ্কে এলাকাবাসী
[ভালুকা ডট কম : ২৭ অক্টোবর]
নওগাঁর পার্শ্ববর্তি সান্তাহার শহরটি অধিক জন গুরুত্বপূর্ন একটি ছোট্ট শহর। এখানে রয়েছে ঐতিহ্যবাহি রেলওয়ে জংশন স্টেশন। আছে একটি পৌর সভা। এই পৌর শহরে হঠাৎ করেই চুরির ঘটনা বেড়েই চলেছে। প্রায়ই কোথাও না কোথাও চুরির ঘটনা ঘটছেই। কেউ অভিযোগ করছেন আবার কেউ চুপচাপ সহ্য করছেন। চুরির ঘটনা বাড়লেও চোরকে আটক এবং চুরির মালামাল উদ্ধারে তেমন কোন অগ্রগতি নেই পুলিশের। এর ফলে রাত হলেই যেন চুরির আতঙ্ক বিরাজ করছে এলাবাসীর মধ্যে। যেন চুরির হিড়িক পড়েছে এমনটাই বলছেন এলাকাবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ৩মাসে পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছু জায়গায় হানা দিয়েছে চোরেরা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে বড় কয়েকটি চুরির ঘটনা ঘটে। এর ফলে অর্থ সংকটে পড়েছেন ঐ সকল ভুক্তভোগীরা। এসব চুরির ঘটনা ঘটলেও তা রোধে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তেমন কোনো দৃশ্যমান অগ্রগতি চোখে পড়েনি বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী। একের পর এক জায়গায় চুরি হওয়ায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এলাকাবাসী।

সান্তাহার পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকার মধ্যে বেশি চুরির ঘটনা ঘটেছে তারাপুর ও পোঁওতা এলাকায়। গত ৮অক্টোবর পোঁওতা এলাকায় হাসান আলী ও রুবেল হোসেনের গরুর গোয়ালের তালা কেটে ৯টি গরু এবং পরদিন ওই এলাকায় মোঃ মোস্তাকিমের গ্যারেজের একটি চার্জার ভ্যান থেকে চারটি ব্যাটারি চুরি হয়েছে। এরপর তারাপুর এলাকার ১১অক্টোবর স্বপন চন্দ্রের বাড়ির আলমারির তালা ভেঙে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা চুরি। গত ৩মাসে ওই এলাকায় সাবের মন্ডলের ২টা গরু, আসলাম হোসেনের স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা, আছির উদ্দীনের অটোরিকশা, জাগাঙ্গীর হোসেনের অটোরিকশা, নাহিদ হোসেন, আমজাদ হোসেন, রঞ্জিত, মোস্তফা কামাল, সাইদুল, সুজনসহ প্রত্যেকের বাড়ি থেকে একটি করে মোবাইল ফোন এবং ঢাকাপট্টি এলাকার মোঃ উজ্জ্বলের বাড়ি থেকেও একটি ফোন চুরি করেন চোরেরা। শুধু তাই নয় সান্তাহার সাইলো রোড এলাকার এক রাতে মতি, রাতুল, শাপলা, জোয়ারদারসহ ৪টি চাউলকলে চুরির ঘটনাও ঘটছে। প্রতিনিয়ত চুরি হলেও চোর বা চুরির মালামাল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়নি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এমন অবস্থায় চুরির মালামাল উদ্ধার, চোরদের আটক এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টহল জোরদারের দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বলেন, আমার কাছে শুধু গরু চুরির অভিযোগ আছে। অন্যান্য চুরির অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই