তারিখ : ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁর মাঠে মাঠে পাঁকা ধানের সোনালী শীষ

নওগাঁর মাঠে মাঠে পাঁকা ধানের সোনালী শীষে দুলছে কৃষকের স্বপ্ন
[ভালুকা ডট কম : ১২ নভেম্বর]
উত্তরের খাদ্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত নওগাঁ। শুধু খাদ্যেই নয় জেলা আদিকাল হতেই বৈচিত্র ভরপুর। ছোট ছোট নদী বহুল এ জেলা প্রাচীনকাল হতেই কৃষি কাজের জন্য প্রসিদ্ধ। ফসলের মাঠ জুড়ে বাতাসে দুলছে কৃষকের সোনালি স্বপ্ন। জেলায় মাঠের পর মাঠ এখন পাকা ধানের সোনালী চাদরে মোড়ানো। জেলায় চলতি রোপা আমন মৌসুমের ধান কাটা শুরু হয়েছে। পর পর ২বারের বন্যায় ক্ষতি হওয়ার পরও কৃষি বিভাগ মনে করছে, জেলায় আমন ধানের বাম্পার ফলন হচ্ছে। জেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪০হাজার ১১৫ মেট্টিক টন অতিরিক্ত চাল উৎপাদনের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

নওগাঁ কৃষি সসম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ শামসুল ওয়াদুদ জানান, চলতি খরিপ-২/২০২০-২০২১ মৌসুমে রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছিল ১লাখ ৯৭ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে উন্নত ফলনশীল উফশী জাতের ১লাখ ৬৮হাজার ১৭০হেক্টর, স্থানীয় জাতের ২৯হাজার ৮০হেক্টর এবং হাইব্রিড জাতের ২৫০হেক্টর।

উপজেলা ভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল, সদর উপজেলায় ৯হাজার ৭৫০হেক্টর, রাণীনগর উপজেলায় ১৮হাজার ৮৫হেক্টর, আত্রাই উপজেলায় ৫হাজার ১৩০হেক্টর, বদলগাছি উপজেলায় ১৩হাজার ৭৭০ হেক্টর, মহাদেবপুর উপজেলায় ২৮হাজার ৩৩৫ হেক্টর, পত্নীতলা উপজেলায় ২৮হাজার ৪৫০ হেক্টর, ধামইরহাট উপজেলায় ১৯হাজার ৭৯০হেক্টর, সাপাহার উপজেলায় ১২হাজার ৭৫ হেক্টর, পোরশা উপজেলায় ১৬হাজার ৬৯৫হেক্টর, মান্দা উপজেলায় ১৫ হাজার ৭৫৫ হেক্টর এবং নিয়ামতপুর উপজেলায় ২৯ হাজার ৬৬৫ হেক্টর জমিতে।

লক্ষ্য মাত্রার অতিরিক্ত, মোট ১লাখ ৯৭ হাজার ৬৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের আবাদ হয়। কৃষি বিভাগ এই পরিমাণ জমিতে হেক্টর প্রতি গড়ে ৩.১০ মেট্টিক টন হিসেবে ৬লাখ ১২হাজার ৭১৫মেট্টিক টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে।

কিন্তু জেলায় পর পর দুই বারের বন্যায় ৫ হাজার ৮শ’ হেক্টর জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যায়। বিনষ্ট হয়ে যাওয়ার পর জেলায় ১ লাখ ৯১ হাজার ৮৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান উৎপাদন নিশ্চিত হয়। ইতোমধ্যে ধান কাটাও শুরু হয়েছে।

কৃষি বিভাগ পরিমাপ করে জানিয়েছে, হেক্টর প্রতি গড়ে চাল উৎপাদিত হয়েছে ৩দশমিক ৪০ মেট্টিক টন। এতে জেলায় মোট ৬লাখ ৫২হাজার ২৯০মেট্টিকটন চাল উৎপাদনের সম্ভাবনা নিশ্চিত হয়েছে। যা ধার্যকৃত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪০ হাজার ১১৫ মেট্টিক টন বেশি।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কৃষি/শিল্প বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই