তারিখ : ২৮ জানুয়ারী ২০২১, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

দুর্নীতির অভিযোগে যে কোনও ব্যক্তিকে দুদক ডাকতে পারবে-হাইকোর্ট

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসীকে দুদকে হাজির হতে হবে
দুর্নীতির অভিযোগে যে কোনও ব্যক্তিকে দুদক ডাকতে পারবে-হাইকোর্ট
[ভালুকা ডট কম : ২৪ ডিসেম্বর]
দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেলে  সরকারি কর্মকর্তাসহ যে কোনও ব্যক্তিকে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকতে পারবে উল্লেখ করে রায় প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) বিচারপতি মো. মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চের সাক্ষরের পর রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশিত হয়।এর আগে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ঘুষ গ্রহণ করে  কারাগারে আটক বিভিন্ন আসামির সঙ্গে আঁতাত করে জামিন করিয়ে বিপুল অর্থ লোপাটসহ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধানে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করে দুদক।

গত ২৯ অক্টোবর দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিম স্বাক্ষরিত তলবাদেশে  বলা হয়েছে, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার ও জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ঘুষ গ্রহণ করে জিকে শামীমসহ বিভিন্ন আসামির সঙ্গে আঁতাত করে জামিন করিয়ে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নেয়াসহ জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। সে অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য দেয়ার জন্য ৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের কপি ও চাহিদা দেওয়া নথি-পত্রসসহ তাকে হাজির হতে অনুরোধ করা হয়। পরে ওই নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ১ নভেম্বর রিট দায়ের করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপা।

উল্লেখ্য,  গত ৩ ডিসেম্বর বিচারপতি মো. মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই মর্মে  রায় দেন  যে দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেলে  সরকারি কর্মকর্তাসহ যে কোনও ব্যক্তিকে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকতে পারবে। এ রায় অনুযায়ী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপাকে এখন তলবাদেশে পালন করে দুদকে  হাজির হতেই হবে বলে জানিয়েছিলেন আইনজীবীরা।

এ প্রসঙ্গে মানবাধিকার আইনজীবী এডভোকেট মঞ্জিল  মোরশেদ বলেছেন, দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেলে  সরকারি কর্মকর্তাসহ যে কোনও ব্যক্তিকে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকতে পারবে- এটা  আইনি বিধান। এটা না করা হলে দুদকের প্রাথমিক তদন্ত কাজটাই তো ব্যহত হবে। তবে  প্রভাবশালীরা আইনের ফাঁক ফোকর খুঁজে  প্রক্রিয়াটা বিলম্বিত করতে চেষ্টা  করে।

আদালতে রুপার পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ, জেডআই খান পান্না ও অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন দোলন। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. খুরশীদ আলম খান। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আসাদুজ্জামান মনির।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩০৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই