তারিখ : ০১ মার্চ ২০২১, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মাঝে শীতবস্ত্র দিলেন নওগাঁর প্রকৌশলীরা

শীতার্ত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র পৌছে দিলেন নওগাঁর প্রকৌশলীরা
[ভালুকা ডট কম : ২৫ জানুয়ারী]
নওগাঁর উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে দ্বিতীয় ধাপের মৃদ্যু শৈত প্রবাহ। ঘনকুয়াশার সঙ্গে হাড় কাপানো কনকনে শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। চরম দুর্ভোগে পড়েছে খেটে খাওয়া দিনমজুররা। জেলার পত্নীতলা উপজেলার দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের বড় চাঁদপুর ও পাটিচড়া গ্রাম আদিবাসী অধ্যুষিত গ্রাম।

এই গ্রামগুলো ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠির (আদিবাসী) মানুষদের বসবাস। প্রচন্ড এই শীতে পিছিয়ে পড়া এই সব আদিবাসি মানুষদের কাছে এখন পর্যন্ত সরকারি ভাবে কিংবা ব্যক্তি উদ্যোগে শীত নিবারনের জন্য কোন গরম কাপড় পৌছেনি। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ নওগাঁ উপকেন্দ্রের উদ্যোগে এই সব সুবিধা বঞ্চিত ও পিছিয়ে পড়া প্রায় ৩শতাধিক মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র হিসেবে কম্বল বিতরন করা হয়েছে।

“উন্নত জগৎ গঠন করুন” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ১৯৪৮সাল থেকে প্রকৌশলীদের নিয়ে গঠিত এই সংগঠন সারা দেশব্যাপী নানা রকমের সামাজিক ও কল্যাণকর কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার বিকেলে ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠির মাঝে এই শীতবস্ত্রগুলো বিতরন করা হয়।

বড়চাঁদপুর গ্রামের আদিবাসী জনেস, মংলা, শিবানী ও পাটিচড়া গ্রামের আদিবাসী শান্তি মুরমু, বাবুরামসহ অনেকেই আবেগে আপ্লুত হয়ে বলেন প্রচন্ড এই শীতে এখন পর্যন্ত আমাদেরকে কেউ একটি গরম কাপড় দেয়নি। পরিবার-পরিজন নিয়ে ঝুপড়ি ঘরে কোন মতে শীত নিবারন করছি। আর গরম কাপড়ের অভাবে আমরা মাঠে কাজ করতে পারছি না। মাঠে কাজ না করলে আমাদের ভাগ্যে খাবার জোটে না। আজ এই বাবুরা নওগাঁ থেকে এসে আমাদেরকে কম্বল দিয়ে গেলো। আমরা খুব খুশি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার সাজেদুর রহমান, এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার মাকসুদুল আলম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার আরিফউজ্জামান খাঁন, শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার আবু সাইদ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার প্রবীর কুমার পাল, নওগাঁ পৌর সভার সহকারি প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার এ.এম.এইচ. সঙ্গি প্রমুখ।

এসময় ইঞ্জিনিয়াররা বলেন বর্তমান সরকারের নানা উদ্যোগে ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠির মানুষদের জীবন মান আগের চেয়ে অনেটাই উন্নত হয়েছে। প্রচন্ড এই শীতে জনজীবন একেবারেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সমাজের খেটে খাওয়া ও দিনমজুর শ্রেণির মানুষদের জীবন-যাপন অনেকটাই কষ্টসাধ্য হয়ে দাড়িয়েছে। অনেক মানুষই গরম কাপড়ের অভাব নিয়েই দিন কাটাচ্ছে। তাই সরকারের পাশাপাশি সমাজে যারা বিত্তবান রয়েছেন আমরা সবাই যদি এই সব শীতার্ত মানুষদের পাশে একটু একটু করে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিই তাহলে আমাদের দেশে কোন মানুষকেই আর শীতে কষ্ট করতে হতো না। আজ আমরা ব্যক্তিগত উদ্যোগে এই অঞ্চলের কিছু ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠির মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র দিতে পেরে নিজেদের ধন্য মনে করছি। আগামীতেও এই সব মানুষদের জন্য সংগঠনের উদ্যোগে আরো বড় ধরনের সহযোগিতা প্রদানের কর্মকান্ড অব্যাহত রাখা হবে।#


 



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩০৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই