তারিখ : ১২ মে ২০২১, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

শ্রীপুরে শ্রমিকলীগের অফিসে ছাত্রলীগ নেতার হামলা

শ্রীপুরে শ্রমিকলীগের অফিসে ছাত্রলীগ নেতার হামলা-ভাংচুর, আহত- ৬
[ভালুকা ডট কম : ২৮ এপ্রিল]
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার এমসি বাজারে  জাতীয় শ্রমিকলীগ তেলিহাটি ইউনিয়ন শাখার কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় শ্রমিকলীগের চার নেতা আহত হয়। হামলায় আহতরা হলেন, তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার, আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকার ও জহিরুল ইসলাম। এদের মধ্যে গুরুতর আহত শফিক সরকার ও জহিরুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) রাত ৮টার সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতদের দাবী স্থানীয় শ্রমিকলীগের অফিসের দখল নিতে গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর সরকারের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এঘটনায় তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেতাসহ ১৪জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০/১২জনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

শ্রমিকলীগ নেতা শফিক সরকার জানান, দীর্ঘ প্রায় ১৪বছর যাবৎ উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের এমসি বাজারে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে জাতীয় শ্রমিকলীগ একটি কার্যালয় স্থাপন করে রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করতো। সম্প্রতি এমসি বাজারের নতুন ইজারাদার গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার মঙ্গলবার রাত ৮টায় শ্রমিকলীগের ওই অফিসটি দখলে নিতে লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। এসময় অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করে অফিসে আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকারকে মারধর করে। শফিক সরকার ঘটনাস্থলে আসলে তাকেও কুপিয়ে আহত করা হয়। এসময় অভিযুক্তরা অফিসের বিভিন্ন আসবাব ভাংচুর করার পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদের ছবিও ভাংচুর করেন। পাশাপাশি অফিসের সামনে থাকা শ্রমিকলীগের নাম সংবলিত সাইনবোর্ড মুছে ফেলেন। তিনি আরো বলেন, এঘটনার জের ধরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে পার্শ্ববর্তী মো: আজিজুল ইসলামের মালিকানাধীন এমলি ইলেকট্রনিক্সেও হামলা চালায়। এসময় দোকানে থাকা জহিরুল ইসলামকে মারধর করেন অভিযুক্তরা।

এবিষয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার জানান, কার্যালয়টি শ্রমিকলীগের নয়, এটা এমসি বাজারের ইজারাদারের অফিস। মঙ্গলবার রাতে এমসি বাজারের ইজারাদারের পক্ষে ওই কার্যালয়ে গেলে রফিকুল ইসলাম মোড়লের নেতৃত্বে আমার লোকজনের উপর হামলা চালায়। হামলায় তারও লোকজন আহত হয়েছে বলে জানান। এঘটনায় তিনি বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, হামলা, মারধর ও ভাংচুরের ঘটনায় পৃথক তিনটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। যা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই