তারিখ : ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে নতুন করে তিন বাজার ইজারা

উপেক্ষিত উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা
ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে নতুন করে তিন বাজার ইজারা
[ভালুকা ডট কম : ২৯ এপ্রিল]
বেশ কয়েকবছর ধরেই গাজীপুরের শ্রীপুরে  ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উপর বাজার ইজারা দিয়ে আসছিল স্থানীয় প্রশাসন। সড়ক জনপথ বিভাগের জায়গায় মহাসড়কের উপর  এসব বাজারের কারনে মানুষের জীবনের ঝুঁকি তৈরী হতো।  ঝুঁকিপূর্ণ এসব বাজারের কারনে সড়ক দুর্ঘটনায় মানুষের প্রাণহানীর ঘটনাও ঘটেছে। মহাসড়কের উপর গড়ে উঠা এসব বাজার ইজারা কার্যক্রমের উপর  উচ্চ আদালত ৩মাসের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে প্রশাসনের প্রতি বাজার বসানো কেন অবৈধ ঘোষনা করা হবে না এমন  রুল জারি করেছে গত ফেব্রুয়ারী  মাসে। এতেও কোন কাজ হয়নি। উপজেলা প্রশাসন বন্ধ করেনি ইজারার কার্যক্রম। শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসনের  ইজারা দেয়ার মেয়াদ বিগত চৈত্র মাস পর্যন্ত শেষ হয়ে গেলেও নতুন করে ইজারাদার নিয়োগ করে উপজেলা প্রশাসন।

শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসন এমসি বাজার, নয়নপুর বাজার ও জৈনা বাজারে মহাসড়কের উপর  ইজারা দিয়ে আসছিল। নয়নপুর বাজারের ইজারাদার যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম মোড়ল বলেন, স্থানীয় শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসনের ইজারা বিজ্ঞপ্তি দেখে তিনি দরপত্রে অংশ নিয়ে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে নতুন বাংলা বছর থেকে তিনি বাজারের ইজারার টাকা উঠাচ্ছেন। ইজারা সংক্রান্ত কোন পত্র উপজেলা প্রশাসন তাকে দিয়েছে কিনা সে বিষয়ে তিনি বলেন, এখনো কাগজপত্র পায়নি, তবে মৌখিক ভাবে অনুমতি দিয়েছে। তিনি নিয়ম মেনে  বাজার দরের টাকাও জমা দিয়েছেন।

এমসি বাজারে চলতি মাসের পহেলা বৈশাখ থেকে ইজারা আদায় করছেন জেলা ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার। তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসন থেকে ৬৬ লাখ টাকা দিয়ে বাজার ইজারা নিয়ে তিনি দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন। নিয়ম অনুযায়ী  চৈত্র মাসের শেষ দিন পর্যন্ত আগের ইজারাদার ইজারা উঠিয়েছিল। তিনি পহেলা বৈশাখ থেকে ইজারা উঠাচ্ছেন।

স্থানীয়রা জানান, গাজীপুরের শ্রীপুর অংশের নয়নপুর, এমসি বাজার ও জৈনা বাজার নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরী হয়। বিশেষ করে ক্ষমতাসীনদের মধ্যে। এই তিনটি বাজার প্রতিবছর প্রতিযোগীতার মাধ্যমে কোটি টাকার উপর ইজারা দেয়া হয়। ইজারা নিয়ে অনেকটা ষ্টিম রোলার চালানো হয় ভাসমান ব্যবসায়ীদের উপর। ইজারা আদায়ের কোন সুর্নিদ্দিষ্ট নিয়ম না থাকায় ইচ্ছেমতো টাকা পয়সা আদায় করা হয়। শিল্প এলাকাসমৃদ্ধ এই এলাকায় লাখো মানুষের উপস্থিতি থাকায় বাজারের ব্যবসাও হয় বেশ। যদিও মহসড়কের লেন দখল করে বাজার বসানোর কারনে যানজট সহ সড়ক দুর্ঘটনায়  মানুষের জীবন হুমকীর মুখে পড়ে।

শ্রীপুরে টেংরা নওয়াব আলী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের(ভোকেশনাল) সহকারী শিক্ষক আকরাম হোসেন মহাসড়কের উপর এসব বাজার বসানোর উপর মহামান্য উচ্চ আদালতে এক রিট দায়ের(২৪১৫/২০২১) করলে গত ১৭ফেব্রুয়ারী মাননীয় বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল ইসলাম মোল্লার দ্বৈত বেঞ্জ শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসনের ইজারা বিজ্ঞপ্তিতে থাকা মহাসড়কের উপর গড়ে উঠা এমসি বাজার, নয়নপুর ও জৈনা বাজারের নতুন করে  ইজারা ৩মাসের স্থগিতাদেশ  দিয়ে রুল জারী করেন। এদিকে রুল জারীর পরও স্থানীয় প্রশাসন নতুন করে ইজারাদার নিয়োগ করায় আদালতের আদেশেরও অবজ্ঞা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারী।

তিনি বলেন, মহাসড়কের উপর এভাবে বাজার বসানো পুরোপুরো অবৈধ। তিনি সাধারন মানুষের নিরাপত্তা ও নির্বিঘ্নে মানুষের চলাচল নিশ্চিতে রিট আবেদন করেছিলেন, কিন্তু আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে নতুন বছর থেকে নতুন ইজারাদারদা নতুন করে ইজারার টাকা উঠাচ্ছেন। তাহলে কে শুনবে কার কথা।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা মোস্তারী বলেন, বাজার ইজারার সকল প্রক্রিয়া শেষে এখন কার্যাদেশ দেয়ার পর্যায়ে রয়েছে। তাই যেহেতু যারা ইজারা পেয়েছেন তারা বাংলা সনের প্রথম থেকেই ইজারা আদায় করবে এটাই স্বাভাবিক। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে তিনি বলেন, এ সংক্রান্ত নির্দেশনা আমি এখনও পাইনি। অতিতের ধারাবাহিকতায় বাজারগুলো ইজারা দেয়া হয়েছে।

গাজীপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাইফুদ্দিন বলেন, এভাবে সড়ক ও জনপথের বিভাগের সড়কের উপর বাজার ইজারার কারনে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা তৈরী হয়। মহাসড়ক আইনে এসব বাজার সম্পূর্ণ অবৈধ। এসব বাজারের কারনে নিরাপদ মহাসড়ক গড়ার উদ্যোগ সফল হচ্ছে না। স্থানীয় প্রশাসন বাজার ইজারা দেয়ার কারনে আমরা তা উচ্ছেদও করতে পারছি না। ইজারা বন্ধের জন্য আমরা বারবার স্থানীয় প্রশাসনকে অনুরোধ জানিয়ে আসছি। তবে চলতি সপ্তায় বাঘের বাজারে আমাদের উচ্ছেদ অভিযান রয়েছে, ধারাবাহিকভাবে আমরা সকল বাজারই উচ্ছেদ করবো।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, মহাসড়কের উপর বাজার বসানো অনেকটা দৃষ্টিকটু। ইতিমধ্যেই এসব বাজারের ইজারা বন্ধের জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নিরাপদ সড়ক গড়তে এসব বাজার উচ্ছেদে জেলা প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করবে। প্রাথমিক অবস্থায় বাঘের বাজার আমরা উচ্ছেদ করবো। ধারাবাহিকতায় মহাসড়কের জেলার অংশের সকল বাজারই উচ্ছেদ করা হবে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই