তারিখ : ১৫ জুন ২০২১, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাণীনগের অবৈধ ভাবে চলছে ব্যক্তিগত নলকূপ

রাণীনগের অবৈধ ভাবে চলছে ব্যক্তিগত নলকূপ,ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছে কৃষক ও বিএমডিএর গভীর নলকূপ
[ভালুকা ডট কম : ০৯ জুন]
নওগাঁর রাণীনগের বিধিনিষেধ ও নিয়মনীতি না মেনেই অবৈধ ভাবে চলছে ব্যক্তিগত গভীর নলক’প ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছে জমির চাষাবাদ ও অপর বিএমডিএর গভীর নলক’প। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার একডালা ইউনিয়নের নারায়নপাড়া গ্রামে। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়াই সরকারের কোন বিধিনিষেধ ও নিয়মনীতি না মেনেই অবৈধ ভাবে চালিয়ে আসছে ব্যক্তিগত এই গভীর নলক’প।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নারায়নপাড়া গ্রামের কৃষকদের মাঝে সুলভ মূল্যে সেচের পানি দেওয়ার লক্ষ্যে রামজীবনপুর মৌজায় ২০০৯সালে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতায় একটি গভীর নলক’প স্থাপন করা হয়। সেই সময় থেকে নলক’পের অপারেটরের দায়িত্ব পাল করে আসছে নারায়নপাড়া গ্রামের মৃত লোকমান আলী মাঝির ছেলে আনিছুর আলী মাঝি। এর পরবর্তি সময়ে ২০১৩সালে তৎকালীন উপজেলা বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা সেচ কমিটির যোগসাজসে নিয়ম বর্হিভ’ত ভাবে নারায়নপাড়া ও রামজীবনপুর মৌজায় একই গ্রামের মৃত আক্কাছ আলীর ছেলে হারুন-অর-রশিদকে আরেকটি ব্যক্তিগত গভীর নলক’পের লাইসেন্স ও ছাড়পত্র প্রদান করা হয়। ২০১৮ সালের পূর্বে নিয়ম অনুসারে এক গভীর নলক’প হতে অন্য একটি নলক’পের দূরত্ব সর্বনিম্ম ১৮০০ফুট হতে হবে এবং ২০১৮সালের পর এই দূরত্ব নির্ধারন করা হয় ২৫৪০ফুট। কিন্তু হারুন-অর-রশিদের ব্যক্তিগত নলক’পের দূরত্ব প্রায় ১৪০০ফুট। এই ক্ষেত্রে নির্ধারিত দূরত্বও মানা হয়নি। এই বিষয়ে পরবর্তিতে আনিছুর রহমান গত ২০১৯সালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, বিএমডিএর নির্বাহী প্রকৌশলী ও অন্যান্য দপ্তর বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে ২০২০সালের জানুয়ারী মাসের ২৮তারিখে বিএমডিএর নওগাঁর রিজিয়ন-১এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো: সমশের আলী স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয় হারুন-অর-রশিদের স্থাপন করা ব্যক্তিগত গভীর নলক’পে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে লাইসেন্স প্রদান করা হয়েছে। ওই নলক’পে সংযোগ প্রদান করা হলে বিএমডিএর স্থাপনকৃত গভীর নলক’পটি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। তাই হারুন-অর-রশিদের ১১৪নং লাইসেন্স বাতিলের পরবর্তি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা বিএমডিএকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এর পরবর্তিতে ২০২০সালের জুন মাসের ৮তারিখে উপজেলা সেচ কমিটির এক সভায় বিএমডিএর স্থাপন করা গভীর নলক’পের এরিয়ায় প্রবেশ না করা, নির্ধারিত রেটে কৃষকদের কাছে পানি সরবরাহ করাসহ ৫টি শর্ত প্রদান করা হয় হারুন-অর-রশিদকে কিন্তু হারুন কোন শর্তই আজ পর্যন্ত মেনে চলছে না। হারুন শর্ত ভঙ্গ করে অবৈধ ভাবে বিএমডিএর স্থাপন করা গভীর নলক’পের এরিয়ায় প্রবেশ করে পেশীবলের জোরে পানি সেচ দিয়ে আসছে। তার এলাকার কৃষকদের কাছ থেকে পানি সেচের নির্ধারিত মূল্য থেকে বেশি অর্থ আদায় করে আসছে। আর চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বিএমডিএর গভীর নলক’পটি। এই বিষয়টি বছরের পর বছর সমাধান না হওয়ায় পানির সেচ নিয়ে চরম বিড়ম্বনার শিকার হয়ে আসছেন এলাকার শত শত কৃষকরা। স্থানীয় বাসিন্দারা হারুন-অর-রশিদের অবৈধ নলক’পের দ্রুত অপসারন দাবী করেছেন।

বিএমডিএ অনুমোদিত নলক’পের অপারেটর আনিছুর রহমান বলেন হারুন প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়াই সে সরকারের নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করে এমন কি আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে তার নলক’প পরিচালনা করে আসছে। যার কারণে স্থানীয় কৃষকসহ বিএমডিএ অনুমোদিত নলক’পটি চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। দ্রুত এই সমস্যাটির সমাধান করা না হলে স্থানীয়দের মাঝে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে।

অভিযুক্ত হারুন-অর-রশিদ বলেন সেই সময় আমিসহ আরো কয়েকজন শেয়ারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনমুতি নিয়েই নলক’প স্থাপন করেছি। তবে বিএমডিএর গভীর নলক’পের এরিয়ার মধ্যে আমার এক অংশীদারের কিছু জমি থাকায় সেই জমিতে আমি আমার নলক’প থেকে পানি সেচ দিয়ে আসছি। আমি কোন শর্তই অমান্য করিনি।

বিএমডিএ’র রাণীনগর জোনের সদ্য বিদায়ী সহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ মো: মিজানুর রহমান বলেন তৎকালীন সময়ের সেচ কমিটি ও বিএমডিএ কর্মকর্তা কিভাবে হারুনকে এই গভীর নলক’প স্থাপনের অনুমতি দিয়েছিলো তা আমার জানার বাহিরে। কিন্তু গত বছর হারুনকে ৩শত টাকার ষ্ট্যাম্পে ৫টি অবশ্যই পালনীয় শর্তের মাধ্যমে নলক’প পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছিলো। এখন যদি হারুন সেই শর্তগুলো ভঙ্গ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা অবশ্যই গ্রহণ করা যেতে পারে।

বিএমডিএ’র রাণীনগর জোনের বর্তমান সহকারী প্রকৌশলী ফারুক হোসেন বলেন এই বিষয়ে সম্প্রতি আমি অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং গভীর নলক’প পরিচালনার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কৃষি/শিল্প বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই