তারিখ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

গণতন্ত্রের ছদ্মবেশে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা

গণতন্ত্রের ছদ্মবেশে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছে-মির্জা ফখরুল
[ভালুকা ডট কম : ২৫ আগস্ট]
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আজকে যারা মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে তারাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংস করেছে। জনগণের যে আশা-আকাঙ্খা ছিল সে আশা-আকাঙ্ক্ষা ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। আমরা যে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছি, সংগ্রাম করেছি সেই গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে।

তিনি বলেন, ১৯৭২ সালে যে সংবিধান প্রণয়ন করা হয়েছিল সেই সংবিধান তারা (বর্তমান সরকার) কেটে ছিঁড়ে তছনছ করে ফেলেছে। এই দলটিই (আওয়ামী লীগ) ১৯৭৫ সালে একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিল। আজকেও তারা গণতন্ত্রের ছদ্মবেশে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছে।

বুধবার বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের ২৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত শেষে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি উলফাত আজিজসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মুখেই মুক্তিযুদ্ধের কথা বলেন। প্রকৃতপক্ষে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী না। তাই যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের একমাত্র ধারক মনে করে তারাই মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা সেটাকে ধ্বংস করেছে।

এদিকে, আজ বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশব্যাপী সন্ত্রাস সৃষ্টি করে জনগণকে ভীতি ও আতংকের মধ্যে রেখে চিরদিন রাষ্ট্রক্ষমতা আঁকড়ে রাখতে বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এই উদ্দেশ্য পূরণে সরকার দেশব্যাপী বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে, রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন এবং কারান্তরীণ রাখার তৎপরতা অব্যাহত গতিতে চালিয়ে যাচ্ছে। মির্জা ফখরুল বলেন, দেশব্যাপী প্রায় প্রতিদিনই বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনসহ বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। তাদের নামে দেওয়া হচ্ছে নতুন নতুন মামলা।

তিনি বলেন, সরকারের লক্ষ্যই হচ্ছে বিএনপিসহ দেশের বিরোধী দলগুলোর নেতাকর্মীদের মিথ্যা ও রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় জড়িয়ে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে দেশকে বিরোধী দল শূন্য করে আওয়ামী শাসন দীর্ঘায়িত করা। এটি নিঃসন্দেহে দেশের বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের মানসিক ও রাজনৈতিকভাবে পর্যুদস্ত করার জন্য সরকারের ধারাবাহিক কূটকৌশল।

তিনি সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরীকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানান এবং মুক্তি দাবি করেন।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই