তারিখ : ২৬ অক্টোবর ২০২১, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

অভিযোগ থাকার পরেও বিনা ময়নাতদন্তে লাশ দাফন

অভিযোগ থাকার পরেও শ্রীপুরে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ দাফন
[ভালুকা ডট কম : ২৩ সপ্টেম্বের]
গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার কেওয়া পূর্বখন্ড গ্রামের ৫নং ওয়ার্ডে গত বুধবার গভীর রাতে  মা” মালেকা বেগম (৬২) মৃত্যুকে অস্বাভাবিক মনে হলে গতকাল বৃহস্প্রতিবার সকালে ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে ময়না তদন্ত করে লাশ দাফনের জন্য শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু অভিযোগের তদন্তকারী র্কমর্কতা এসআই কামরুল ইসলাম লিখিত অভিযোগ থাকার পরও লাশ বিনা ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফনের অনুমতি দেয়ায় হতভাগ হয়েছেন। নিহত মালেকা বেগম পৌর এলাকার কেওয়া পূর্বখন্ড এলাকার মৃত এমএ মান্নানের স্ত্রী।

থানার অভিযোগ ও ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন জানান, আমার বাড়ি থেকে একটু দুরে আপন ছোট ভাই আমিনুল ইসলামের বাড়িতে মা বসবাস করতেন। আমার মায়ের নামে সহায়-সম্পত্তি থাকার কারণে ছোট ভাই আমিনুল ইসলাম কখনো মায়ের সাথে দেখা করতে দিত না। এমনকি মায়ের ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিতে চাইলেও বারবার ভয়-ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দিত বলে তিনি দাবী করেন। হঠাৎ করে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে চারটার দিকে মায়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনতে পেয়ে হতভাগ হয়ে পড়ি। কিন্তু মায়ের কি হয়েছিল? কোন হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয়েছে? কেন মারা গিয়েছে এই বিষয়ে কিছু জানেন না তিনি। এইসব বিষয়ে ছোট ভাই আমিনুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলেও তিনি এইসব বিষয়ে না জানিয়ে দ্রুত দাফন-কাফনের ব্যবস্থা শেষ করেন। দ্রুত সময়ে দাফন করায় আমার ধারনা হচ্ছে মায়ের মৃত্যুটি স্বাভাবিক হয়নি।

ইকবাল হোসেন আরো জানান, আমার মায়ের নামে দুই বিঘা সম্পত্তি ছিল, এই সম্পত্তি লিখে নেওয়ার জন্য আগেও আমার মাকে শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করেছে। আমার মনে হয় আমিনুল এই সম্পত্তি মায়ের কাছ থেকে জোর করে আগেই লিখে নিয়েছে। যেহেতু জমি সংক্রান্ত বিষয়ে একটি ঝামেলা রয়েছে তাই হঠাৎ করে মায়ের এই মৃত্যুকে আমার কাছে স্বাভাবিক মনে হয়নি তাই আমি প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়ে ছিলাম। থানায় লিখিত অভিযোগ থাকার পরেও লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফন করা হয়েছে। আমি এ বিষয়ে আদালতে মামলা করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আমিনুল ইসলামের সাথে একাধিকবার মোবাইলে যোগাযোগ করে তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।শ্রীপুর থানার অফির্সাস ইনর্চাজ (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান,করোনা পজিটিভ থাকায় আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। লাশটি ঢাকার উত্তরার একটি হাসপাতালে মারা যাওয়ায় ওই এলাকার সংশ্লিষ্ট থানায় আবেদন করতে হবে।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩২৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই