তারিখ : ২৪ অক্টোবর ২০২১, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ফিড মিলের দুর্গন্ধে নাকাল সান্দিড়াবাসী

ফিড মিলের দুর্গন্ধে নাকাল সান্দিড়াবাসী,মুক্তির আশায় ইউএনও বরাবর অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ৩০ সেপ্টেম্বর]
নওগাঁর পার্শ্ববর্তি বগুড়ার আদমদীঘিতে পরিবেশ দূষণ ও দুর্গন্ধ থেকে রক্ষার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। গোল্ডেন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ এন্ড ফিড মিলে মাছ ও মুরগির খাদ্য তৈরির ফলে দূর্গন্ধে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। যার ফলে আশেপাশের এলাকার বাসিন্দারা সুস্থ্য ভাবে নি:শ্বাস নিতেও পারছেন না।

সম্প্রতি সান্দিরা গ্রামের পক্ষে একাধিক ব্যক্তি স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর প্রদান করেছেন।  উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নে সান্দিড়া গ্রামের সাইলো রোড কুলিপাড়া বাজার এলাকায় অবস্থিত এই মিলটি। ওই ফিড মিলের স্বত্বাধিকারী বেলাল হোসেন। তিনি প্রভাব ও পেশীবল দেখিয়ে দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ ভাবে জনবসতি এলাকায় মাছ ও মুরগির খাদ্য উৎপাদন করে আসছেন। এছাড়াও সান্দিরা কুলিপাড়ায় সাইলো রোডের দুই পাশ অবৈধ ভাবে দখল করে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন স্থাপনা। এই স্থাপনাগুলোর একটিতে শিশুদের জন্য মানহীন ভাবে তৈরি করা হচ্ছে জুস। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি এই সব জুস খেয়ে অনেক শিশুই অসুস্থ্য হয়ে পড়ার ঘটনাও ঘটেছে। এই জুস কারখানার দুর্গন্ধেও নাকাল হয়ে পড়েছে স্থানীয়রা।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোল্ডেন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ এন্ড ফিড মিলে মাছ ও মুরগির খাদ্য তৈরির জন্য বিভিন্ন উপকরণ ডিআরবি ব্যান্ড, ময়দা আটা, ভুট্টা, আতব ব্যান্ড, শুটকি মাছ, খৈল, ঝিনুক ব্যবহার হয়ে থাকে। এতে করে বাতাসের সাথে দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। যার কারণে ওই পথ দিয়ে যাতায়াত করতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ছোট ছোট শিক্ষার্থীসহ কয়েকটি গ্রামের লোকজনদের। ফলে জনগুরুত্বপূর্ণ ওই এলাকায় বসবাস করা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়া পরিবেশ দূষণের কারণে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতেও আছেন তারা।

এলাকাবাসী এ বিষয়ে মিলের স্বত্বাধিকারী বেলালকে অভিযোগ করে জানালেও তিনি কোন গুরুত্ব দেন না। বরং তিনি প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় অবাধে তার ফিড মিলের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। যার ফলে এলাকাবাসী নিরুপায় হয়ে ওই ফিড মিলের দূষিত বাতাসের দূর্গন্ধ থেকে প্রতিকার পেতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এবার ইউএনও জোড়ালো পদক্ষেপের মাধ্যমে একটি স্থায়ী সমাধান করবেন এমনটাই আশা এলাকাবাসীর।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবণী রায় বলেন, আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পরিবেশ অধিদপ্তরকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারা দ্রুত আইনগত পদক্ষেপ নিবেন।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩২৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই