তারিখ : ২৬ জুন ২০২২, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

শিশুর ডায়াপার ব্যবহারের নিয়ম

শিশুর ডায়াপার ব্যবহারের নিয়ম
[ভালুকা ডট কম : ২৮ অক্টোবর]
আধুনিক কর্মজীবী মায়েরা ছোট  বাচ্চাদের প্রস্রাব পায়খানায় নষ্ট করা কাপড়চোপড় বা কাঁথা বদলাতে সময় পান না বিধায় ডায়াপার ব্যবহার  খুবই প্রচলিত একটি ঘটনা। ডায়াপার  থাকলে শিশু মল-মূত্র ত্যাগ করলেও তখনই তাকে পরিষ্কারের প্রয়োজন পড়ে না, তাই অনেকেই ডায়াপারের প্রতি আস্থা রাখেন। আর বেড়ানো বা ভ্রমণের সময় শিশুদের ডায়াপার ছাড়া তো চলেই না। এতে কর্মজীবী মায়ের সময় বাঁচায়।

এটি ব্যবহারের নিয়ম না জানলে শিশুর ত্বকে বিভিন্ন রোগ যেমন- ডায়াপার র‌্যাশ, ছত্রাক, এলার্জি, খোসপাঁচড়া, প্রস্রাবের ইনফেকশন এমনকি ঠান্ডায় নিউমোনিয়াও পর্যন্ত  হতে পারে। ডায়াপার কেনার সময় দেখতে হবে শিশুর বয়স ও ওজন অনুযায়ী সাইজ, কতটা মানসম্মত আরামদায়ক, শোষণ ক্ষমতা এবং লিকপ্রুফ কি না। আঁট শাট ডায়াপারে শিশুর কোমরে দাগ পড়ে যায় ও ফোস্কা দেখা দেয়।

একটি ডায়াপার একবারই ব্যবহার করা যায়। কিছু সময় পর পর ডায়াপার ভিজে গেলো কিনা পর্যবেক্ষণ করতে হবে। চার থেকে ছয় ঘণ্টার মধ্যে ডায়াপার না ভিজলেও পরিবর্তন করতে হবে। একটানা দীর্ঘ সময় ডায়াপার পরানো ঠিক না। কেউ কেউ আবার ব্যবহৃত ডায়াপার রোদে শুকিয়ে ব্যবহার করেন যা মোটেই ঠিক নয়।  শিশু প্রস্রাব বা পায়খানা করলে এটি দ্রুত পরিবর্তন করতে হবে। বদলানোর সময় শিশুর শ্রোণিদেশ সামনে থেকে পিছনে মুছতে হবে নতুবা প্রস্রাবের ইনফেকশন হয়।  শিশুকে ডায়াপার পরানোর আগে শ্রোণিদেশে জিংক অক্সাইডযুক্ত পেস্ট ডি-র‌্যাশ লাগিয়ে নিলে র‌্যাশ বা ফুসকুড়ি হয় না।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৩২৫৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই