তারিখ : ১৫ আগস্ট ২০২২, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পত্নীতলায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে আগুন

পত্নীতলায় আটক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে আগুন
[ভালুকা ডট কম : ০৮ জানুয়ারী]
নওগাঁর পত্নীতলায় নির্বাচন পরবর্তি সহিংসতা থামছেই না। একের পর এক ঘটছে সহিংসতা। এবার উপজেলার ঘোষনগর ইউনিয়নের আটক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা পারভীনের গ্রামের বাড়ি কমলাবাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে বলে করেছেন পত্নীতলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ রায়হান ইসলাম।

স্থানীয় মাহমুদা আক্তার জানান, রাত ১২টার দিকে হঠাৎ আমরা আগুনের শিখা দেখতে পাই। এরপর গ্রামবাসী ছুটে এসে দেখি বাড়িতে আগুন জ্বলছে। বাড়ির সামনে একটা গাড়ি রাখার বড় গ্যারেজ ছিলো সেখানে ৫ থেকে ৬ টি মোটরসাইকেল ছিল। এছাড়া বাড়ির অন্যান্য আসবাবপত্র এরইমধ্যে আগুনে সব কিছু পুড়ে গেছে। বর্তমানে এই গ্রামে কোনো পুরুষ মানুষ নেই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আগুন দিবে। আমরা মহিলা মানুষ কিভাবে এই আগুন নেভাবো। তারপরও অনেক চেষ্টা করে কিছুটা আগুন নেভানো গেছে। এরপর ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে তারা এসে আগুন নেভাতে চেষ্টা করছে। কিন্তু এরইমধ্য আগুনে বাড়ির অনেক কিছু পুড়ে গেছে। চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা পারভীনের মেয়ের জামাই আতিকুর রহমান রাসেল জানান, আমার শাশুড়ি এবং শ্বশুর দুজনই এখন জেলে আসে। আমি আর আমার স্ত্রী দুজনেই নওগাঁ শহরে থাকি, এজন্য বাড়িতে কেউ নেই। এই সুযোগে রাত ১২টার দিকে কে বা কারা আমার শ্বশুর বাড়িতে আগুন লাগিয়েছে। এখন আগুন নেভানোর মানুষ ওই গ্রামে নেই। পরে ফায়ার ফার্ভিস এর লোকেরা এসেছে। মামলার ভয়ে অধিকাংশ পুরুষ মানুষ গ্রাম থেকে পালিয়েছে।

পত্নীতলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ রায়হান ইসলাম জানান, খবর পাওয়ার পর আমরা এসে আগুন প্রায় নিয়ন্ত্রণে এনেছি। বাড়ির অনেক আসবাসপত্র পুড়ে গেছে। মনে হচ্ছে কেউ আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। তবে কিভাবে আগুন লাগলো বা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্তের পর জানা যাবে। পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) শামসুল আলম বলেন, আগুন লাগার ঘটনা জানার পর সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হবে।

উল্লেখ্য, পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বুধবার সন্ধ্যায় নির্বাচনি সহিংসতার ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় বুধবার রাতে ফারহানা পারভীন তার স্বামী মতিউর রহমানসহ ৪জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ফারজানাকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত আরও আড়াই হাজার মানুষকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ঘোষনগর ইউনিয়নসহ উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন এর ফলাফল স্থগিত করেছে উপজেলা নির্বাচন অফিস।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫১৩১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই