তারিখ : ০১ অক্টোবর ২০২২, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার

নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি
[ভালুকা ডট কম : ২৭ আগস্ট]
খাদ্যমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এবং তাঁরই নির্দেশে ১৯৭১ সালে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের মুক্তির জন্য এ দেশের আপামর জনগন মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। স্বাধীন সার্বভোম বাংলাদেশ গঠিত হওয়ার পর সেই আলোকে সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়। কিন্তু ১৯৭৫ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্যে দিয়ে একদিকে যেমন গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিল অন্যদিকে দেশ থেকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করা হয়েছে। দেশে উগ্রবাদী সন্ত্রাসী শক্তির প্রকাশ ঘটতে শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে পুনরায় বাংলাদেশে সরকার গঠিত হলে দেশ থেকে উগ্রবাদী সন্ত্রাসীদের কঠোর হাতে দমন করা হয়। তারপরও দেশে মাঝে মাঝে উগ্রবাদি শক্তি ম্থাাচারা দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দেয়ার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

খাদ্যমন্ত্রী শনিবার বিকালে নওগাঁ শহরের কালিতলা এলাকায় শ্রী শ্রী বুড়া কালিমাতা মন্ডপ প্রাঙ্গনে শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেছেন। হিন্দু ধর্মীয় কল্যান ট্রাষ্ট নওগাঁ জেলা আয়োজিত এ আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকারের উপ-সচিব উত্তম কুমার রায়। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনা করেন নওগাঁ সদর আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক, হিন্দু ধর্মীয় কল্যান ট্রাষ্টের ট্রাষ্টি তপন কুমার সেন, নওগাঁ জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি নির্মলকৃষ্ণ সাহা, সাধারন সম্পাদক বিভাষ মজুমদার গোপাল, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খিষ্ট্রান ঐক্য পরিষদের আহবায়ক পিযুষ কুমার সরকার, মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের সহকারী পরিচালক সাথী মজুমদ্রা,  নওগাঁ সেবাশ্রম সংঘের অধ্যক্ষ স্বামী দিগবিজয়ানন্দজী মহারাজ এবং শ্রী শ্রী বুড়া কালিমাতা পূজা মন্ডপ কমিটির সভাপতি নিরোদবরন সাহা চন্দন।

খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছেন বলে এখনও দেশে সকল ধর্মের মানুষ নিরাপদে তাঁদের ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে পালন করতে পারছেন। তিনি আছেন বলেই এখনও দেশের সর্বত্রই খোলা মাঠে খোলা জায়গায় স্বারম্ভরে সারাদেশে দূর্গা উৎসব উদযাপিত হয়ে আসছে। অথচ এক সময় এমন অবস্থা ছিলনা।

দেশে চরম উগ্রবাদ, বাংলাভাই জেএমবি’র মত উগ্র সাম্প্রদায়িকতার সৃষ্টি হয়েছিল। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ যেমন কংসদের হত্যা করে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। ঠিক তেমনই প্রধথানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব উগ্রবাদ এবং বাংলাভাইদের কঠোরহাতে দমন করে  বাংলাদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

মন্ত্রী বলেন বর্তমানে একটি মহল সরকারের বিরুদ্ধে নানামুখি গুজব রটিয়ে বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে সাধারন মানুষকে বিভ্রান্ত করার প্রয়াস  চালাচ্ছে। তিনি  সর্বক্ষেত্রে উন্নয়নের কথা তুলে ধরে দেশের মানুষকে ঐসব কুচক্রীমহল থেকে সচেতন থাকার আহবান জানান।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫২২২ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই