তারিখ : ৩০ নভেম্বর ২০২২, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে দূধর্ষ ডাকাতি,আহত ৩

নান্দাইলে দূধর্ষ ডাকাতি শেষে ককটেল বিস্ফোরন,আহত ৩
[ভালুকা ডট কম : ২৪ সেপ্টেম্বর]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলা সদরে দূধর্ষ ডাকাতি ও ডাকাতি শেষে ককটেল বিস্ফোরন করে ডাকাতদের প্রস্থানের ঘটনায় সমালোচনার মুখে পড়েছে উপজেলার আইনশৃঙ্খলা। এ ঘটনায় একজন এসআই সহ বাজারের দুই জন পাহাদার আহত হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টার দিকে নান্দাইল উপজেলা সদর পুরাতন মধ্যবাজারের দুটি স্বর্ণালংকার (জুয়েলারী) দোকান ও একটি ফলের দোকানে এ দূধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

জুয়েলারী দুটি দোকানের নাম হচ্ছে ‘বিসমিল্লাহ জুয়েলার্স’ ও ‘মুক্তা জুয়েলার্স’। ২০ লক্ষাধিক টাকার স্বর্ণলংকার ও নগদ টাকা অস্ত্রে মুখে ডাকাতি করে নিয়ে যায় ডাকাত দল। তবে সিসি ক্যামেরার আওতাধীন নান্দাইল উপজেলা সদরে এমন দূধর্ষ ডাকাতির ঘটনাকে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি বলে দায়ী করছে সুশীল সমাজ। ফলে ডাকাতির ঘটনা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উপজেলার আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা ঝড় উঠেছে। এছাড়া সম্প্রতিকালে নান্দাইল উপজেলা সদরের বিভিন্ন দোকান ও বাসা-বাড়িতে বেশ কয়েকটি চুরি ও ডাকাতির ঘটনা ঘটে। কিন্তুু এসমস্ত ঘটনায় জড়িত কোন চোর বা ডাকাতকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয় পুলিশ প্রশাসন। ফলে দিন দিন চুরি-ডাকাতি বেড়েই চলছে।

জানাগেছে, দূধর্ষ এ ডাকাতির ঘটনায় নান্দাইল আসনের দুই বারের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ মো. আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌরীপুর সার্কেল শেখ মুস্তাফিজুর রহমান ও নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আকন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ বিষয়ে সংসদ আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন উক্ত ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত গ্রেফতার সহ অপরাধ চক্রটিকে আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশ প্রশাসনকে জোরালো ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ২৫ জনের মতো একদল ডাকাত বাজারের চার জন পাহারাদারকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বেধে রাখে। পরে তারা (ডাকাত দল) দুটি জুয়েলার্স সহ একটি ফলের দোকানে লুটপাট করে। এর পরপরই নান্দাইল মডেল থানার উপ-পরিদর্শক পূর্ণ চিচাম ঘটনাস্থলে আগমন ঘটলে। ডাকাত দল দ্রুত কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরন করে সেখান থেকে পালিয়ে পায়। তবে ডাকাত দলের সাথে পিস্তল, রানদা সহ অন্যান্য অস্ত্র ছিল বলে জানাগেছে। এ দিকে বাজারে পাহারাদার ৪/৫জনের মধ্যে দুই জন পাহারাদার ডাকাতের হামলায় গুরুতর আহত হলে তাদেরকে নান্দাইল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং ককটেল বিস্ফোরণের আঘাতে এসআই পূর্ণ চিছাম আহত হয়েছেন।

এসআই পূর্ণ চিছাম জানান, ‘ডাকাতদল আমাদের গাড়ী দেখামাত্রই আমাদের সামনে ককটেল ছুড়ে মারে দ্রুত পালিয়ে যায়। তখন ককটেল বিস্ফোরনের ধোয়ায় চতুর্দিক অন্ধকারে পরিণত হয়। তবে আল্লাহর রহমতে বাজারে অবস্থানরত কোন পাহারাদার ও আমাদের জানের কোন ক্ষতি হয় নাই।,

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, দ্রুত ডাকাত চক্রটিকে ধরার জন্য তদন্ত চলছে। আমরা অপরাধীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করছি, খুব শীঘ্রই তারা (ডাকাতরা) আইনের হাতে গ্রেফতার হবে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৫৩৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই