তারিখ : ০৩ মার্চ ২০২৪, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

মনপুরায় তিন মাস ধরে নেই ইউএনও

মনপুরায় তিন মাস ধরে ইউএনও নেই; চরম ভোগান্তিতে জনসাধারন
[ভালুকা ডট কম : ২০ মে]
ভোলা জেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরায় তিন মাস ধরে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) পদটি শুন্য থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারন মানুষ। এ অবস্থায় ব্যাহত হচ্ছে দাপ্তরিক কার্যক্রম। গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক কর্মকান্ডে দেখা দিয়েছে স্থবিরতা। সঠিকভাবে তদারকি হচ্ছে না বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড। ইউএনও না থাকায় প্রতিনিয়ত বিপাকে পড়ছেন সেবা নিতে আসা সাধারন মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এ উপজেলায় নির্বাহি কর্মকর্তা হিসেবে ছিলেন আশীষ কুমার দাস। বদলিজনিত কারনে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি তিনি কর্মস্থল থেকে বিদায় নিয়ে অন্যত্র যোগদান করেন। তারপর থেকে তিন মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় থেকে কাউকে উক্ত পদে পদায়ন করা হয়নি।

এদিকে ইউএনও হিসেবে কাউকে এ উপজেলায় পদায়ন না করায় দীর্ঘদিন যাবৎ সহকারি কমিশনার (ভূমি) পদটিও শুন্য রয়েছে। একাধারে জনগুরুত্বপূর্ণ পদ দুটি দীর্ঘদিন ধরে শুণ্য থাকায় সেবা নিতে এসে প্রতিনিয়ত ফেরত যেতে হচ্ছে সাধারন মানুষকে।

জানা যায়, উপজেলা নির্বাহি অফিসারের তত্ত্বাবধানে উপজেলায় ৩৪ টি দপ্তর রয়েছে। ইউএনও না থাকায় এসব দপ্তরের বিভিন্ন সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে মানুষ। তদারকি না থাকায় বেশিরভাগ দপ্তরের অফিস তালাবদ্ধ দেখা গেছে দিনের পর দিন। এতে ব্যাহত হচ্ছে এসব দপ্তরের কর্মকান্ড। এছাড়াও উপজেলার একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন ইউএনও। পদটি শুন্য থাকায় ব্যাহত হচ্ছে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম।

এদিকে মনপুরায় উপজেলা নির্বাহি অফিসারের পদটিতে পদায়ন না থাকায় চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহি অফিসার আল নোমান মনপুরার অতিরিক্ত দায়িত্বে রয়েছেন। মনপুরা উপজেলাটি নদীমাতৃক হওয়ায় চরফ্যাশন থেকে এসে দাপ্তরিক কাজ করা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে। তাছাড়া উপজেলার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল থেকে মানুষ এসে সেবা না পেয়ে ফেরত যেতে হচ্ছে প্রতিদিন।

উপজেলার বিচ্ছিন্ন কলাতলির চর, কাজীর চর, ঢাল চর, চর সামসুদ্দিন থেকে আসা মাওলানা হেলাল উদ্দিন, সাহাবুদ্দিন, বারেক, আলাউদ্দিন, আলমগীর মেম্বার জানান, আমরা জরুরি কাজে এসে ইউএনও না থাকায় ফেরত যেতে হচ্ছে। এতে আমাদের অনেক দুর থেকে এসে প্রচুর খরচ ও সময় ব্যয় করেও কোন কাজ হচ্ছে না।

জসসাধারনের ভোগান্তির কথা স্বীকার করে মনপুরায় অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহি অফিসার আল নোমান বলেন, দীর্ঘ তিন মাস যাবৎ মনুপরায় ইউএনও পদায়ন নেই। আমি চরফ্যাশন থেকে উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিয়ে মনপুরায় গিয়ে কাজ করা সত্যি কষ্টসাধ্য। তাছাড়া আমি নিয়মিত না থাকায় মনপুরায় সেবা নিতে এসে মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই অতি দ্রুত মনপুরায় ইউএনও পদায়ন করা জরুরি।

এব্যাপারে ভোলা জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী জানান, ইউএনও’র অনুপস্থিতিতে জনসেবা ব্যাহত হচ্ছে সত্য। তবে চেষ্টা-তদবির চলমান রয়েছে। আশা করি দ্রুত ইউএনও যোগ দেবেন।#  



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই