তারিখ : ২১ জুন ২০২৪, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

কালিয়াকৈরে কারখানায় কর্মবিরতি-বিক্ষোভ

কালিয়াকৈরে শ্রমিক নিখোঁজের জেরে কারখানায় কর্মবিরতি-বিক্ষোভ
[ভালুকা ডট কম : ৩১ মে]
গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি সূতা তৈরির কারখানা থেকে এক শ্রমিক নিখোঁজের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই শ্রমিক নিখোঁজের ঘটনায় বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ করেছে শ্রমিকরা। তাদের অভিযোগ, শ্রমিক ছাটাইয়ের জেরে কারখানা কর্তৃপক্ষ তাকে গুম করেছে।নিখোঁজ শ্রমিক হলেন, নওগার আত্রাই থানার, আহসানগঞ্জ গ্রামের, আশরাফ খানের ছেলে আমীন খান। তিনি  এমএসএ স্পিনিং লিমিটেড সূতা তৈরির কারখানার এসি প্লান্টের সিনিয়র অপারেটর।

কারখানার শ্রমিক, নিখোঁজের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আমীন খান জীবিকার তাগিদে দীর্ঘদিন আগে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে আসেন। পরে তিনি উপজেলার সফিপুর আন্দারমানিক এলাকার শহিদ মিয়ার মেয়ে সুমনাকে বিয়ে করেন। পরে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই উপজেলার নিশ্চিন্তপুর এলাকার এমএসএ স্পিনিং লিমিটেড নামে একটি সূতা তৈরির কারখানায় কাজ করেন। প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার ওই কারখানায় কাজে যোগ দেন আমীন। কিন্তু এরপর থেকেই শ্রমিক আমীন নিখোঁজ হন। বুধবার সকাল ৬টায় দিকে কাজে যোগ দিয়ে তার নিখোঁজের খবরটি জানতে পারেন অন্য সহকর্মীরা। এসময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কাজে যোগ না দিয়ে কর্মবিরতি শুরু করে । এক পর্যায়ে নিখোঁজ আমীনের সন্ধান চেয়ে কারখানার ভিতর বিক্ষোভ করে। খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিখোঁজ শ্রমিককে খুজে বের করার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা শান্ত হন। এ ঘটনায় একদিনের জন্য ওই কারখানা ছুটি ঘোষণা করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। তবে শ্রমিক নিখোঁজের বিষয়ে একাধিকবার ফোন দিলেও কারখানা কর্তৃপক্ষের কেউ কথা বলতে রাজি হননি ।

শ্রমিকদের অভিযোগ, গত ঈদুল ফিতরের ছুটি শেষে ওই কারখানার শ্রমিকরা কাজে যোগদান করেন। কিন্তু এদের মধ্যে ৭০/৮০ জন শ্রমিক নানা সমস্যার কারণে সময় মতো কাজে যোগ দেয়নি। পরে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই শ্রমিকদের কারখানানা থেকে ছাটাই করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। এরপর ওই শ্রমিক আমীনের নেতৃত্বে শ্রমিকরা আন্দোলন শুরু করে। ওই আন্দোলনের মুখে ছাটাইকৃত শ্রমিকদের পুনরায় কাজে বহাল করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এরপর থেকে আমীনের ওপর ক্ষুব্ধ কারখানা কর্তৃপক্ষের লোকজন। এমনকি কারখানা কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন সময়ে পুলিশ দিয়ে তার ওপর হয়রানি করে আসছিল। ওই শ্রমিক ছাটাইয়ের জেরেই কারখানা কর্তৃপক্ষ তাকে গুম করেছে। যেকোনো অবস্থায়   আমরা শ্রমিক ভাই আমীনকে জীবিত ফেরত চাই। আমীন এখন কোথায়, কিভাবে আছেন? জীবিত নাকি মৃত কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ কেউ তার কোনো খোঁজ-খবর নিচ্ছে না বলেও বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের অভিযোগ। এসময় নিখোঁজ শ্রমিকের স্ত্রী সুমনা বলেন, সহকর্মীদের পাশে দাঁড়ানোই আমার স্বামীর কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে যেকোনো ভাবে আমার স্বামীকে ফেরত চাই।

এব্যাপারে অনেকটা দায়সারা বক্তব্য দিয়েছেন গাজীপুর-২ শিল্প পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিতাই চন্দ্র সরকার। তিনি জানান, খবর পেয়ে কারখানায় গিয়েছিলাম। কিন্তু ওই শ্রমিক ডিউটি শেষে কারখানা থেকে বের হয়ে গেছে। তিনি কারখানা থেকে নিখোঁজ হননি। তবে তার পরিবারের লোকজনকে থানায় জিডি করতে বলা হয়েছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই