তারিখ : ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

উঠান বৈঠক করে সাড়া ফেলেছেন রাসেল

উঠান বৈঠক করে সাড়া ফেলেছেন রেজাউল করিম রাসেল
[ভালুকা ডট কম : ০১ আগষ্ট]
উঠান বৈঠক করে সাড়া ফেলেছেন রেজাউল করিম রাসেল।গাজীপুর-১ আসনের বিভিন্ন এলাকায় এক বছরে প্রায় ৫ শতাধিক চা চক্র ও উঠান বৈঠক  করেছেন রেজাউল করিম রাসেল।মঙ্গলবার (০১ আগস্ট) বিকেলে উপজেলার গাছবাড়ি এলাকায় এ উঠান বৈঠক করেন।

গাজীপুর-১ সংসদীয় এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলে চা চক্র ও উঠান বৈঠক ও সভা-সমাবেশ করে সরকারের উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কাজ মানুষের কাছে তুলে ধরছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাসেল। সেই সঙ্গে পুনরায় নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে গ্রাম, পাড়া ও মহল্লায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন কালিয়াকৈর উপজেলা পরিষদের সাবেক এই চেয়ারম্যান। গত এক বছরে গাজীপুর-১ সংসদীয় এলাকায় রেজাউল করিম রাসেল ও তার কর্মী-সমর্থকরা ৫ শতাধিক চা চক্র ও উঠান বৈঠক করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। রাসেলের এই চা চক্র ও উঠান বৈঠক উপজেলাসহ পুরো দেশে হৈচৈ ফেলে দেয়। এ কর্মসূচি নজর কাড়ে দলের হাইকমান্ডেরও।

এবার গাজীপুর-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী রেজাউল করিম রাসেল বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকেই এই উঠান বৈঠকের ধারণা নিয়েছিলেন। শেখ হাসিনা তাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছেন। সরকারের উন্নয়নমূলক কাজগুলো সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার একটা ধারণা পেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকেই। এর পরই তিনি মাঠে নেমে পড়েন। শুরু করেন একের পর এক উঠান বৈঠক। এ বৈঠকে নেই কোনো মঞ্চ,  কিংবা কোনো ব্যানার। পাটি কিংবা চট বিছিয়ে তার করা অন্তত ৫ শতাধিক চা চক্র উঠান বৈঠক করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে গাজীপুরে।

কালিয়াকৈর উপজেলার চাপাইর ইউনিয়নের বড় কাঞ্চনপুর গ্রামে জন্ম নেওয়া রেজাউল করিম রাসেল স্কুলজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। মুক্তিযোদ্ধা মরহুম গাজী ছামান উদ্দিন ও কালিয়াকৈর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি  বাবার কাছে ছোটবেলায় বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনেছেন। আর তখন থেকেই জাতির পিতার আদর্শ বুকে লালন করতে শুরু করেন রাসেল। পরবর্তী সময় ছাত্রলীগ নেতা রাসেল ঢাকা কলেজের  নির্বাচিত হন সহ-সভাপতি। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাননি রাসেল।

রেজাউল করিম রাসেল  বলেন, জাতির ভরসার জায়গা বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাই আমার সম্পর্কে ভালো জানেন। তিনি যা ভালো মনে করেন, তাই করবেন। আশা করছি, নেত্রী আসন্ন নির্বাচনে আমার হাতেই নৌকা প্রতীক তুলে দেবেন। চা চক্রে উঠান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক ‌ মফিজ উদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, আমিনুল ইসলাম জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান, গফুর মেম্বার বোয়ালি ইউনিয়ন ৭ নং ওয়ার্ড কৃষক লীগের সহ-সভাপতি প্রমুখ।




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই