তারিখ : ২০ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পিছিয়ে পড়া মানুষদের অনুপ্রেরণার নাম রাহেলা

পিছিয়ে পড়া মানুষদের এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণার নাম নওগাঁর রাহেলা
[ভালুকা ডট কম : ৩০ এপ্রিল]
পিছিয়ে পড়া নারীদের কাছে এগিয়ে চলার অনুরেপ্ররণার নাম হচ্ছে মোছাঃ রাহেলা চৌধুরী টফি। কৈশোরে জীবনের অর্থ বুঝে ওঠার আগেই রাহেলাকে শুরু করতে হয়েছিল জীবন সংগ্রাম। নানা প্রতিকূলতার মাঝেও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছেন একজন মানুষ হিসেবে। তিনি সমাজের অবহেলিত মানুষদের পাশে সহযোগিতার বার্তা নিয়ে দাঁড়িয়ে আসছেন।

হাত বাড়িয়েছেন সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের সেবায়। উভয় ক্ষেত্রেই তিনি সফল হয়েছেন। প্রত্যন্ত পল্লীতে জন্মগ্রহণের পর কেবলমাত্র স্বীয় প্রচেষ্টা ও কর্মদক্ষতার মাধ্যমে বর্তমানে তিনি নওগাঁ জেলার একটি পরিচিত মুখ। সমাজের নির্যাতিত ও পিছিয়ে পড়া নারীদের নেতৃত্ব বিকাশের জন্য অনুকরণীয় এক দৃষ্টান্তর রাহেলা। ইতিমধ্যই সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের এক পরম বন্ধু হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছেন রাহেলা চৌধুরী।

মোছাঃ রাহেলা চৌধুরী টফি মহাদেবপুর উপজেলার প্রত্যন্ত জোয়ানপুর গ্রামের মৃত-আব্দুর রাজ্জাক সরদার ও মাতা: মৃত-বেগম সুফিনাত জুলফিকারের সাধারণ পরিবারের ঘরে ১৯৭২খ্রি: পহেলা মার্চে প্রথম সন্তান হিসেবে জন্ম নেন। এরপর তৎকালীন সমাজ ব্যবস্থার কাছে হার মেনে ১৪বছর বয়সে বদলগাছী উপজেলার বদলগাছী ইউনিয়নের চাকরাইল  গ্রামের আব্দুল আউয়াল চৌধুরীর সঙ্গে পারিবারিক ভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। পরবর্তিতে নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে স্বামী ও শ্বশুড় পরিবারের কারো কাছ থেকে তেমন একটা সহযোগিতা না পেলেও শত বাঁধা উপেক্ষা করে এসএসসি পাশ করেছেন। নিজের এক ছেলে আর এক মেয়েকে শিক্ষিত করেছেন।

২০১৬সালে জেলা পরিষদ নির্বাচনে (সংরক্ষিত-২) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনি সফল হতে পারেননি। পরবর্তিতে ২০১৯অপরাজিতা প্রকল্পের সাথে যুক্ত হয়ে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ গ্রহন করে আগের চেয়ে নিজের জ্ঞান ও দক্ষতার পরিধি বৃদ্ধি করে নেন। জনগনের মাঝে সম্পৃক্ততা বাড়াতে তিনি ২০০১সাল থেকে সমাজ সেবামূলক কাজের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। নারীর রাজনৈতিক অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, লিগ্যাল এইড প্রাপ্তি ও উঠান বৈঠক বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে সব সময় তিনি মানুষের পাশেই থাকছেন।

বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে মানুষের কাছে যোগ্যতা প্রামাণ করে ২০২২সালের জেলা পরিষদ নির্বাচনে ০৬ নং সাধারণ আসনে সদস্য হিসেবে বিজয়ী হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেন রাহেলা। সেই নির্বাচনে তার প্রতিপক্ষ পুরুষ প্রার্থী ১০/১২ লক্ষ টাকা খরচ করেন। কালো টাকা, পেশী শক্তি ও পুরুষ তান্ত্রিকতাকে মোকাবেলা করে রাহেলা মাত্র ০১ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। যদি নির্বাচনে কালো টাকা ব্যবহার না হতো তাহলে তিনি  কমপক্ষে ৪০ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হতে পারতেন বলে জানান রাহেলা।

রাহেলা চৌধুরী বলেন জেলা পরিষদের সাধারণ আসনে সদস্য নির্বাচিত হওয়ার ক্ষেত্রে অপরাজিতা প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। অপরাজিতা প্রকল্প উৎসাহ, সাহস, তথ্য সহায়তা, এ্যাডভোকেসীসহ প্রচার-প্রচারনায় ব্যাপক সহায়তা করেছে। অপরাজিতা প্রকল্পের স্বপ্নেই আমি জেলা পরিষদের সাধারণ আসনের সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। অপরাজিতা কর্মীগন গোপনীয়তা বজায় রেখে নির্বাচনে বিজয়ের লক্ষে ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার-চেয়ারম্যানদের সঙ্গে এডভোকেসী করেছেন। আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে সমাজের অসহায়, গরীব, দু:খী, পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য আরো বেশি বেশি কাজ করার স্বপ্ন বুনছেন তিনি।

তিনি বর্তমানে বদলগাছী উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে প্রতিটি ইউনিয়নে মহিলা আওয়ামীলীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করতে গিয়ে দুই হাজারের অধিক নারীকে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করেছেন এবং শতাধিক নারীকে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সহায়তায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মুল কমিটিতে অর্ন্তভূক্ত করেছেন। রাহেলা চৌধুরী শত শত সালিশি প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেন এবং অনেক মামলা ইউপি অপরাজিতা নেটওয়ার্র্র্র্কের সভাপতির মাধ্যমে গ্রাম আদালতে প্রেরণ করেন। তিনি স্বপ্ন দেখেন সমতার সমাজ শীঘ্রই প্রতিষ্ঠিত হবে। যে সমাজ ব্যবস্থায় নারী-পুরুষ সমান আত্ম- বিকাশের সুযোগ পাবে। চলমান পুরুষতান্ত্রিকতার পরিবর্তে গড়ে উঠবে বৈষম্যহীন নারী-পুরুষের সমতাভিত্তিক নতুন সমাজ ব্যবস্থা।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই