তারিখ : ১৫ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

শিশুর কানে ময়লা বা খৈল হলে করণীয়

শিশুর কানে ময়লা বা খৈল হলে করণীয়
[ভালুকা ডট কম : ০১ ফেব্রুয়ারী]
মানুষের কর্নকুহরে নিঃসৃত একপ্রকার হলুদাভ নিঃসরণকে কানের খৈল বলে। কর্ণকুহরের বাইরের দেওয়ালের ঘর্মগ্রন্থি ও সেবাম গ্রন্থির মিশ্রিত ক্ষরণই খৈল। একে "কানের ময়লা" বলে ডাকা হয়। কানে খৈলের প্রয়োজন আছে। এটি কর্ণকুহরের ত্বকের সুস্থতা বজায় রাখে। ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক, পোকামাকড় ও পানি থেকে কানকে রক্ষা করে। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে এর উপস্হিতি কর্ণকুহর আটকে দিয়ে কানের পর্দার উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে এবং শ্রবণের বিঘ্নতা ঘটাতে পারে।

কানের ময়লা ধীরে ধীরে কর্ন গহবর থেকে এগিয়ে আসে তারপর তা ঝরে পড়ে যায়। আমাদের চোয়ালের হাড়ের সাথে কানের সংযোগ রয়েছে।ফলে খাদ্য চিবানো বা নানা কারণে যখনই আমরা কান নাড়াচাড়া করি তখনই কানের ভেতরে নাড়া পড়ে এবং জমে থাকা ময়লা ধীরে ধীরে বাইরের দিকে আসতে শুরু করে। একই সাথে কর্ন-কোষ বৃদ্ধি পায় এবং ময়লাকে বাইরের দিকে ঠেলে দেয়। সব মিলিয়ে কান পরিস্কার করার কোনো দরকার পড়ে না।

বরং কান পরিস্কার না করলেও তা পরিস্কার থাকে। অন্যদিকে কান পরিস্কার করা হলে কানে ফোঁড়া হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এ ছাড়া কান পরিস্কার করার সময় ময়লাকে আরো ভেতরে ঠেলে দেয়া হতে পারে তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে। পরিস্কার করতে যেয়ে কানের পর্দায় খোঁচা লেগে ছিঁড়ে যেতে পারে যা বিপদের কারণ। কান পরিস্কার করার প্রয়োজন না থাকলেও কানে অলিভ তেল দেয়া যেতে পারে । তেল কানের ময়লা বের করতে সাহায্য করে। কানের এই শুকনা খইল অলিভ ওয়েল দিলে উপকার হয়।

বাচ্চাদের কানে ব্যথা হয় ভিন্ন কোনো কারণে। তবে কোনো কোনো সময় ময়লা জনিত কারণে কানে ব্যাথা হতে পারে। তবে সে জন্য ময়লা পরিস্কার করতে হলে একজন নাক, কান ও গলা রোগ বিষেশজ্ঞের সাহায্য নিতে হবে। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই