তারিখ : ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুন ২০২০, সোমবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
৫ জন ২২৯ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৮২ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় জমে উঠেছে শীতের কাপড়ের হকার্স মার্কেট

নওগাঁয় জমে উঠেছে শীতের কাপড়ের হকার্স মার্কেট
[ভালুকা ডট কম : ২১ ডিসেম্বর]
উত্তরাঞ্চলে চলমান শৈত প্রবাহের কারণে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় সান্তাহারের ঐতিহ্যবাহি রেলওয়ে হকার্স মার্কেট জমে উঠেছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পছন্দের গরম কাপড় কেনার জন্য ক্রেতারা ভীড় করছেন। তবে গত কয়েকদিন শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় পা ফেলার জায়গা নেই মার্কেটে। বিক্রি বেড়ে গেছে কয়েকগুন। এখানে পছন্দ মতো কম দামে ভালো দেশি-বিদেশী গরম কাপড় পাওয়া যায় বলে নওগাঁ, বগুড়া ও জয়পুরহাট জেলাসহ আশেপাশের লোকজনেরা এখানে শীতের সময় কাপড় কেনার জন্য এখানে আসেন।

সূত্রে জানা গেছে গেছে যে, সান্তাহার জংশন রেলওয়ে স্টেশনের রেলগেইট সংলগ্ন স্বাধীনতা মঞ্চের পাশে প্রায় ৩০বছর আগে গড়ে ওঠে এই হকার্স মার্কেটটি। এই মার্কেটে মূলত সকল বয়সের মানুষের জন্য দেশি-বিদেশী ব্লেজার, জ্যাকেট, কোট, কম্বলসহ সকল প্রকারের গরম কাপড় সুলভ মূল্যে পাওয়া যায়। বেছে বেছে নিজেদের পছন্দ মতো কাপড় কেনার জন্য শীত মৌসুমে হাজার হাজার মানুষ এখানে গরম কাপড় কেনার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে আসেন। গরম কাপড় কেনার জন্য সমাজের সকল প্রকারের মানুষ প্রতিদিন ভীড় করেন এই মার্কেটে।

তবে বিগত মৌসুমের চেয়ে চলতি মৌসুমে শীতের অগ্রিম তীব্রতার জন্য এবছর কেনাকাটা অনেকটা ভালো হবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে ছুটির দিনগুলোতে ক্রেতাদের ভীড় ানেক বেশি হয়। গরীব, মধ্যবিত্ত ও ধনী সকল পর্যায়ের লোকেরা এখানে এসে পছন্দ মতো কাপড় কিনতে পারেন। তবে পুরুষদের চেয়ে মেয়ে ক্রেতাদের সংখ্যা তুলনামূলক ভাবে বেশি হয় এই মার্কেটে। শুধু এই মার্কেটেই নয় শহরের রাস্তার পাশের ছোট-খাটো অন্যান্য ফুটপাতের মার্কেটগুলোতেও শীতের গরম কাপড় বিক্রির ধুম পড়েছে।

মার্কেটে কাপড় কিনতে আসা গোলাম রব্বানী দুলাল বলেন এই মার্কেট গরীবের মার্কেট হিসেবে পরিচিত। এখানে সকল প্রকারের মানুষ তার পছন্দ মতো গরম কাপড় কিনতে পারেন। কাপড়গুলোর দাম হাতের নাগালে থাকায় সবাই সাধ্যমতো গরম কাপড় কিনতে পারেন। এবছর শীত একটু আগে চলে আসার কারণে আমিও এসেছি নতুন কিছু গরম কাপড় কেনার জন্য।

জেলার আত্রাই উপজেলার শাহাগোলা গ্রাম থেকে আসা আরেক ক্রেতা মোছা: কোহিনুর আক্তার বলেন আমরা মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ। আমাদের আয় কম। বড় বড় দামী মার্কেট থেকে বেশি দামে পরিবারের সদস্যদের জন্য গরম কাপড় কেনা সম্ভব নয়। তাই প্রতিবছরই শীতের মধ্যে সুযোগ করে এই মার্কেটে শীতের গরম কাপড় কেনার জন্য আসি। এখানে কম দামে নিজের পছন্দ মতো মান সম্পন্ন গরম কাপড় কেনা যায়। এবার শীত আগে আসায় আমরাও একটু আগেই এখানে কাপড় কেনার জন্য এসেছি।

মার্কেটের দোকানদার মো: রফিকুল ইসলাম বলেন এই মার্কেটটি শীতের কয়েক মাস খোলা থাকে। তবে এবার শীতের তীব্রতা একটু আগে শুরু হওয়ায় বিক্রি অনেকটাই জমে উঠেছে। আর কিছুদিন এই শীত অব্যাহত থাকলে আমাদের বিক্রি অনেকটাই ভালো হবে বলে আশা করছি।

সান্তাহার রেলওয়ে হকার্স মার্কেট সমিতির সাধারন সম্পাদক মো: নুর ইসলাম বলেন এটি এই অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহি বহুল পরিচিত মার্কেট। আমরা শীতের সময় আশেপাশের সকল জেলা ও উপজেলার হাটে এই মার্কেটের গরম কাপড় বিক্রি করে আসছি। তবে এবার অগ্রিম শীত চলে আসায় বিক্রি খুব ভালো হচ্ছে। এখানে কয়েকটি জেলার মানুষ কাপড় কেনার জন্য আসেন। আমরা ক্রেতাদের নিরাপত্তার সকল ব্যবস্থাগ্রহণ করেছি। যে কেউ এসে এখানে স্বাচ্ছন্দ ভাবে কেনাকাটা করতে পারেন।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

লাইফস্টাইল বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮২ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই