তারিখ : ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

খালেদা জিয়া ভালো আছেন তবে একা হাঁটতে পারছেন না

খালেদা জিয়া ভালো আছেন তবে একা হাঁটতে পারছেন না- চিকিৎসক
[ভালুকা ডট কম : ০১ এপ্রিল]
গুরুতর অসুস্থ বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য আজ (সোমবার) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কারাগার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেয়া হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনকে হাসপাতালের কেবিন ব্লকের ৬ তলায় ৬২১ ও ৬২২ নং কক্ষে নেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তির পর বেগম খালেদা জিয়াকে দেখে এসেছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

খালেদা জিয়াকে দেখে এসে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে হাসপাতালে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. এ কে মাহবুবুল হক জানান, বেগম জিয়া ভালো আছেন। তিনি বসে আমাদের সাথে কথা বলেছেন। আগের পরীক্ষা অনুযায়ী ওষুধ দেয়া হয়েছে। তার জয়েন্টে ব্যথা আছে, ডায়াবেটিস আছে।  তার ডায়াবেটিস স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি, শরীর দুর্বল। তার ঘুম কম হয়, খাবারের রুচি কমে গেছে। তিনি একা  হাঁটাচলা করতে পারছেন না, হাঁটার সময় আরেকজনের সাহায্য নিচ্ছেন।

মাহবুবুল হক আরো জানান, ডাক্তাররা তার কথা শুনে ওষুধ দিয়েছেন। তিনি তা গ্রহণ করেছেন। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. এ কে মাহবুবুল হক আরো জানান, ইতোমধ্যে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য নতুন মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। নতুন বোর্ডের ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপারসন কোনো আপত্তি জানাননি। তিনি এ বোর্ডে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য ইন্টারন্যাল মেডিকেল বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. জিলন মিঞা সরকারের সভাপতিত্বে সাত সদস্যের এই নতুন মেডিকেল বোর্ডে রয়েছেন রিউমাটোলোজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, কার্ডিওলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তানজিমা পারভিন, ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের ডা. বদরুন্নেসা আহমেদ, অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. চৌধুরী ইকবাল মাহমুদ।

এ ছাড়া, নতুন মেডিকেল বোর্ডে সহকারী হিসেবে থাকছেন আরও দুইজন- রিউমাটোলোজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. শামীম আহমেদ ও খালেদার জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও নিকটাত্মীয় ডা. মামুন। এর আগে গত মাসের শুরুর দিকেও খালেদা জিয়াকে একবার বিএসএমএমইউয়ে নেয়ার কথা উঠেছিল। তবে খালেদা জিয়া রাজি না হওয়ায় তাকে শেষ পর্যন্ত সেবার হাসপাতালে নেয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, হাইকোর্টের নির্দেশে গত বছরের ৬ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে এক মাসের চিকিৎসা প্রদান শেষে গত ৭ নভেম্বর তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

আজ খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে আনার খবরে সেখানে উপস্থিত দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আবারও বিশেষায়িত হাসপাতালে নিয়ে তার  চিকিৎসার দাবি জানিয়েছেন। এ সময় দলের নেতাকর্মীরাও হাসপাতালের বাইরে জড়ো হন বেগম জিয়াকে একনজর দেখার জন্য।

ওদিকে আজ সোমবার নাইকো দুর্নীতি মামলায় শুনানির জন্য বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করার নির্ধারিত দিন থাকলেও গুরুতর অসুস্থতার জন্য তাকে আদালতে হাজির না করে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। এ সময় বেগম জিয়ার আইনজীবীরা সময় চেয়ে আবেদন করলে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান আগামী ১০ এপ্রিল মামলার শুনানির পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই