তারিখ : ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হঠাৎ সক্রিয় বিএনপি

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হঠাৎ সক্রিয় বিএনপি
[ভালুকা ডট কম : ২০ এপ্রিল]
কয়েকমাস বিরতির পর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে দল ও এর অঙ্গসহযোগী সংগঠনগুলো। ফলে বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীদের মধ্যে একটি চাঙ্গা ভাব দেখা যাচ্ছে। কোন কোন মহল থেকে প্রশ্ন উঠেছে, খালেদার মুক্তির দাবিতে দলটি হঠাৎ সক্রিয় কেন? প্যারোল ইস্যুতে কি এই সক্রিয়তা? জবাবে দলটির নেতারা বলছেন, তাদের আন্দোলন চলমান রয়েছে এবং আন্দোলনের মাধ্যমেই তাদের দলীয় প্রধানকে মুক্ত করবেন।

এদিকে বিএনপি’র প্রতীকে বিজয়ী সংসদ সদস্যদের শপথ নেয়ার সঙ্গে খালেদা জিয়ার মুক্তিকে শর্ত হিসেবে জুড়ে দেবার বিষয়টি বাজে দৃষ্টান্ত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। আজ (শনিবার) দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে এ কথা বলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, বেগম জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিনিময়ে বিএনপির নির্বাচিতরা শপথ নেবে এ ধরণের বক্তব্য অসত্য ও গুঞ্জন মাত্র।

বিগত সংসদ নির্বাচনের সময় হামলা-মামলার শিকার দলীয় নেতা-কর্মীদের দেখতে ঢাকা থেকে কুমিল্লা সফরকালে জেলার বুড়িচং এ এক পথসভায় মির্জা ফখরুল বলেছেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র পুনঃরুদ্ধার করা হবে।

এ প্রসঙ্গে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, কারাগারে বেগম জিয়া গুরুতর অসুস্থ। উনার অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি এবং পছন্দমত হাসপাতালে চিকিৎসা হওয়া দরকার। সেটা দেশেই হোক আর দেশের বাইরেই হোক, এ সিদ্ধান্ত উনিই নেবেন। আর আমাদের দাবি হলো ওনাকে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়া হোক। কারণ যেসব মামলায় উনি আবদ্ধ এসব মামলায় তার জামিন হতে পারে এবং মুক্ত হতেই পারেন।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়া। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন। কারাবন্দির পর থেকে বিভিন্ন সময় বিএনপির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন, বিবৃতি, অবস্থান কর্মসূচি, কালো পতাকা প্রদর্শন, মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি দেয়া হয়। এরপর দীর্ঘদিন খালেদার মুক্তির দাবিতে রাজপথে বিএনপিকে সেভাবে দেখা যায়নি। এ নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে প্রচণ্ড ক্ষোভও দেখা যাচ্ছে।

সম্প্রতি এ ইস্যুতে কর্মসূচি পালন করছে দলটি। গত ৭ এপ্রিল রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গণঅনশন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি এবং ৮ এপ্রিল ২০ দলের শরিকদের নিয়ে বৈঠক করে তারা। ইতোপূর্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের মধ্যে দূরত্ব দেখা গেলেও গণঅনশন কর্মসূচিতে জামায়াত ছাড়া দুই জোটের উল্লেখযোগ্য নেতারা অংশ নেন।

বিএনপির অঙ্গসহযোগী সংগঠনগুলোকে চাঙ্গা করতে ইতোমধ্যে মৎস্যজীবী দল, কৃষক দল, মহিলা দল, তাঁতী দলসহ বেশ কয়েকটি দলের পূর্ণাঙ্গ ও আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। অন্য সংগঠনও প্রক্রিয়াধীন। এছাড়াও বিএনপির জেলা কমিটিও পুনর্গঠন প্রক্রিয়াধীন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই